Inqilab Logo

শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ১৮ আষাঢ় ১৪২৯, ০২ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

ফের বেড়েছে তেল-চিনি ও মুগ ডালের দাম

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৫ এপ্রিল, ২০২২, ১১:২৮ এএম

পাগলা ঘোড়ার মতো ছুটতে থাকা সয়াবিন তেলের দাম নিয়ন্ত্রণে সরকার নানা পদক্ষেপ নিলে কমে আসে দাম। স্বস্তি মিলে ক্রেতাদের মাঝে। তবে রমজানকে কেন্দ্র করে ফের বাড়তে শুরু করেছে দাম। সিন্ডিকেট করেই দাম বাড়ানো হচ্ছে বলে অভিযোগ ক্রেতাদের। রোজায় বেড়েছে চিনি, মুগ ডাল, আটা, ময়দার দামও। তবে কমেছে আলু, পেঁয়াজ, গরুর মাংস ও ব্রয়লার মুরগির দাম।

শুক্রবার (১৫ এপ্রিল) রাজধানীর কারওয়ান বাজার, খিলক্ষেত কাঁচাবাজার, টাউন হল বাজার ও হজ্ব ক্যাম্পের মুক্তিযোদ্ধা কাঁচাবাজার ঘুরে এমন চিত্র দেখা যায়।

বাজারে প্রতি লিটার বোতলজাত সয়াবিত তেলে ৫ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ১৬০-১৭০ টাকা, গত সপ্তাহে যা ছিল ১৫৮-১৬৫ টাকা। খোলা পামওয়েল বিক্রি হচ্ছে ১৪০-১৪৫ টাকা, এক সপ্তাহ আগেও ছিল ১৩৩ থেকে ১৪০ টাকা এবং পামওয়েল সুপার বিক্রি হচ্ছে ১৪৫-১৪৮ টাকা, গত সপ্তাহে বিক্রি হচ্ছিল ১৪০-১৪৫ টাকা লিটার। তবে দাম কমেছে খোলা সয়াবিন তেলের।
বড় দানার মসুর ডাল প্রতি কেজি ৯৫-১০০ টাকা, মাঝারি দানার ১১০-১১৫ টাকা, ছোট দানার ১২০-১৩০ টাকা। মুগ ডাল মানভেদে ১২০-১৪০ টাকা, অ্যাংকর ৫৫-৬০ টাকা, ছোলা ৭০-৭৫ টাকা।

প্রতিকেজি দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২৫-৩০ টাকা, একই দামে বিক্রি হচ্ছে আমদানি করা পেঁয়াজও। দেশি রসুন ৪০-৬০ টাকা, আমদানি ৯০-১২০ টাকা। দেশি শুকনা মরিচ ১৮০-২০০ টাকা। দেশি হলুদ ২০০-২২০ টাকা, দেশি আদা ৯০-১৪০ টাকা, তেজপাতা ১৫০-১৯০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। দাম কমে আলু বিক্রি হচ্ছে ১৬-২০ টাকা।

বাজারে শসা প্রতি কেজি ৫০-৬০ টাকা, ধনেপাতা ৮০-১০০ টাকা, করলা ৬০-৮০ টাকা, কাঁচা মরিচ ৮০-১০০ টাকা, পটল ৫০-৬০ টাকা, ঢেঁড়স ৫০-৬০ টাকা এবং লাউ ৬০-৭০ টাকা, বরবটি ৬০-৭০ টাকা, লাল শাকের আঁটি ১০-১৫ টাকা, পালং শাকের আঁটি বিক্রি হচ্ছে ১০-১৫ টাকা।
রুই মাছের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩০০-৪৫০ টাকা। এক কেজি ওজনের ইলিশ মাছ বিক্রি হচ্ছে ১৩০০-১৬০০ টাকা। তেলাপিয়া, পাঙাস মাছের কেজি বিক্রি হচ্ছে ১৬০-১৭০ টাকা। শিং মাছের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩০০-৪৬০ টাকা। শৈল মাছের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪০০-৬০০ টাকা।
দাম কমে প্রতি কেজি গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৬৫০-৬৮০ টাকা, খাসির মাংস প্রতি কেজি ৮৫০-৯৫০ টাকা। ব্রয়লার মুরগি ১৫৫-১৭০ টাকা এবং দেশি মুরগি ৫০০-৫৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

সরু চাল বিক্রি হচ্ছে ৬০-৭০ টাকায়, মাঝারি আকারের চাল ৪৮-৫৬ টাকা এবং মোটা চাল বিক্রি হচ্ছে ৪৫-৪৮ টাকা কেজি দরে। প্যাকেট আটা বিক্রি হচ্ছে ৪২-৪৫ টাকা, খোলা ৩৫-৪০ টাকা কেজি, প্যাকেট ময়দা ৫৫-৫৮ টাকা এবং খোলা ৪৮-৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: নিত্যপণ্যে

১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন