Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮, ০৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

মিয়ানমারে কয়েকটি মুসলিম গ্রামে অকল্পনীয় ধ্বংসকান্ড সংঘর্ষে নিহত ৮

প্রকাশের সময় : ১৪ নভেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক
মিয়ানমারের পশ্চিমাঞ্চলীয় রাখাইন রাজ্যের মুসলিম অধ্যুষিত কয়েকটি গ্রামে ব্যাপক ধ্বংসকা- চালানো হয়েছে। স্যাটেলাইট থেকে তোলা বিভিন্ন ছবি বিশ্লেষণের পর এ তথ্য জানিয়েছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ বা এইচআরডাব্লিউ।
গত ২২ অক্টোবর এবং ৩ ও ১০ নভেম্বরের স্যাটেলাইট চিত্র বিশ্লেষণ করে সংস্থাটি বলছে, রাখাইনের মংদাউ জেলার পিয়াং পিত, কিত ইয়ো পিন এবং ওয়া পিক গ্রামে ৪৩০টি ভবন ধ্বংস করা হয়েছে।
এইচআরডাব্লিউ'র এশিয়া অঞ্চলের পরিচালক ব্রাড অ্যাডামস গতকাল (রোববার) বলেছেন, স্যাটেলাইট চিত্রগুলো থেকে এটা স্পষ্ট যে, সেখানে ধারণার চেয়েও বেশি ধ্বংসকা- চালানো হয়েছে। গত মাসে সীমান্ত চৌকিতে দুর্বৃত্তদের হামলার পর থেকেই রাখাইন রাজ্যকে অবরুদ্ধ করে রেখেছে দেশটির সেনাবাহিনী। দেশটির সরকার বলছে, রোহিঙ্গা মুসলমানেরা নিরাপত্তা চৌকিতে হামলা চালিয়েছে। তবে তারা কোনো প্রমাণ উপস্থাপন করতে পারেনি। রাখাইনে সেনাবাহিনীর অবরোধের কারণে মনে করা হচ্ছে, মুসলিম গ্রামগুলোতে যেসব ধ্বংসকা- চালানো হয়েছে, তার সঙ্গে খোদ সেনারা জড়িত রয়েছে।
গত কয়েক বছর ধরেই রাখাইন রাজ্যের উগ্র বৌদ্ধরা মাঝে মধ্যেই সেখানকার মুসলিম অধ্যুষিত এলাকায় হামলা চালিয়ে আসছে। তারা বহু মুসলমানকে হত্যা করেছে এবং শত শত ঘর-বাড়ি আগুনে জ্বালিয়ে দিয়েছে।
এদিকে, মিয়ানমারের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম গতকাল (রোববার) দাবি করেছে, ‘রোহিঙ্গা মুসলিম গেরিলাদের সঙ্গে সেনাবাহিনীর সংঘর্ষে ৮ জন নিহত হয়েছে। এছাড়া ৩৬ জনকে আটক করা হয়েছে’। মিয়ানমারের রোহিঙ্গা মুলসমানদেরকে বিশ্বের সবচেয়ে নির্যাতিত জনগোষ্ঠী হিসেবে গণ্য করা হয়। সূত্র : পার্স টুডে।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।