Inqilab Logo

সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ২০ আষাঢ় ১৪২৯, ০৪ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

কাশ্মীর ইস্যু এখন উত্থাপনের উপযুক্ত সময় : ইলহান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৬ এপ্রিল, ২০২২, ১২:০০ এএম

মার্কিন কংগ্রেসের প্রথম মুসলিম নারী সদস্য ইলহান ওমর বলেছেন যে, ভারতীয় যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘনের শিকারদের সাথে দেখা করা এবং ‘তাদের অনুভব করার’ জন্য মার্কিন কংগ্রেসে কাশ্মীর সমস্যাটি উত্থাপন করা আগের চেয়ে আরও বেশি প্রয়োজনীয় হয়ে উঠেছে।

‘আজাদ জম্মু ও কাশ্মীরে (এজেকে) কাশ্মীরি জনগণের সাথে দেখা করা, যারা ভারতের যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘনের কারণে বুলেটের ক্ষতকে লালন পালন করে, এটি একটি অবিশ্বাস্য অভিজ্ঞতা,’ কাশ্মীর এবং ফিলিস্তিনের বিষয়ে তার সাহসী অবস্থান সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হলে ইলহান ওমর বলেছিলেন। তিনি জানিয়েছেন, তার এই সরাসরি অভিজ্ঞতা তাকে ‘মানবাধিকার এবং মানব মর্যাদার জন্য দাঁড়ানোর বাধ্যবাধকতার’ অধীনে রেখেছে। পাকিস্তান সরকারের আমন্ত্রণে তার চার দিনের সফরের সময়, মার্কিন কংগ্রেসওম্যান এজেকে-এর নিয়ন্ত্রণ রেখা (এলওসি) পরিদর্শন করেন এবং প্রেসিডেন্ট, প্রধানমন্ত্রী এবং মন্ত্রিপরিষদের সদস্যসহ বেশ কয়েকজন গুরুত্বপূর্ণ সরকারি কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠক করেন। তিনি লাহোর প্রাচীন শহরও পরিদর্শন করেন।

ইলহান বলেছিলেন যে, তিনি সর্বদা কংগ্রেসে কাশ্মীর এবং ফিলিস্তিনের প্রশ্ন তুলেছেন কিন্তু, তিনি যোগ করেছেন, ‘আমি ব্যক্তিগতভাবে জায়গাটি দেখার সুযোগ পাইনি। জনগণের সাথে প্রথম দেখা করা এবং তাদের জিজ্ঞাসা করা অবিশ্বাস্যভাবে ভয়ঙ্কর ছিল যে তারা কীভাবে একজন আইন প্রণেতা এবং মানবাধিকারের উকিল হিসাবে আমার সাথে অংশীদারিত্বে থাকতে চান।’ তিনি কংগ্রেসে বিষয়টি উত্থাপন করবেন কিনা জানতে চাওয়া হলে, তিনি বলেছিলেন যে, লোকেদের সাথে ব্যক্তিগতভাবে দেখা করে এবং তাদের কষ্ট পেতে দেখে অন্যদের কাছ থেকে শোনার চেয়ে কংগ্রেসে বিষয়টি উত্থাপন করার প্রয়োজনীয়তা আরও জরুরি হয়ে পড়ে। নিজের সম্পর্কে, ইলহান বলেছিলেন যে তার গল্পটি ছিল ‘বিচার এবং বিজয়’।

মার্কিন কংগ্রেসওম্যান বলেছেন যে, পাকিস্তানি প্রবাসীরা পাকিস্তান এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে একটি শক্তিশালী বন্ধন সরবরাহ করেছে, উল্লেখ করেন যে এই সম্পর্কগুলি গত ৭৫ বছরে শক্তিশালী হয়েছে। তিনি বলেছিলেন, আমেরিকানরা পাকিস্তানিদের উদ্যোক্তা মনোভাব, তাদের উদ্ভাবন এবং প্রযুক্তি ও স্বাস্থ্যসেবার অগ্রগতির উপর তাদের ফোকাস থেকে উপকৃত হয়েছে। লাহোরের ঐতিহাসিক প্রাচীর ঘেরা নগরীতে তার অভিজ্ঞতার বিষয়ে, মার্কিন কংগ্রেসওম্যান বলেছিলেন যে তিনি লাহোরের প্রাচীরের শহর পরিদর্শন করার সময় একটি গির্জা, একটি শিখ মন্দির এবং একটি মসজিদের কাছাকাছি একটি হিন্দু মন্দির খুঁজে পেয়ে মুগ্ধ হয়েছিলেন, যা ছিল সাংস্কৃতিক সম্প্রীতির সবচেয়ে ভালো উদাহারন। তিনি উল্লেখ করেছিলেন যে, পাকিস্তান সফর (বিদেশী) জনগণকে দেশ সম্পর্কে তাদের ভ্রান্ত ধারণা দূর করতে সহায়তা করবে।

ইলহান বলেছিলেন যে, ভারতের দ্বারা পাঞ্জাব নদীর পানির শোষণমূলক ব্যবহারের বিরুদ্ধে লড়াই করবেন, যেভাবে তিনি এল সালভাদর, গুয়াতেমালা এবং হন্ডুরাসের ক্ষেত্রে করেছিলেন। তিনি পাকিস্তানের সংখ্যালঘু নারীদের রাজনীতিতে সক্রিয় অংশ নেয়ার আহ্বান জানান। সূত্র : ট্রিবিউন।



 

Show all comments
  • Harunur Rashid ২৬ এপ্রিল, ২০২২, ১:৪৯ এএম says : 0
    You are simply great madam rep.
    Total Reply(0) Reply
  • Saleh Choudhury ২৬ এপ্রিল, ২০২২, ৪:৫৯ এএম says : 0
    Modi is,actually running a Kakistocracy. He has only used his whims to scrap the special status of Kashmir. Now he is proceeding for establishing Lynch law in Kashmir.
    Total Reply(0) Reply
  • আজিম উদ্দিন ২৬ এপ্রিল, ২০২২, ৫:০০ এএম says : 0
    আমরা একদিন পরাধীন ছিলাম, যে প্রতিশ্রুতি নিয়ে, মেজুরিটির ভিত্তিতে বাংলাদেশ পাকিস্তানের অন্তর্ভুক্ত হল, দেখা যায় তার কোনটি পাকিস্তান সরকার পূরণ করেনি, বরং অত্যাচারের শিকার হয়েছে এদেশের আপামর জনসাধারণ। ফলশ্রুতিতে আন্দোলনে নেমে পরিশেষে সশস্ত্র সংগ্রামের মাধ্যমে স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয়। তেমনি কাশ্মীরা যেহেতু মুসলিম, এবং সংখ্যাঘরিষ্ট মুসলিম, আলাদা জাতিস্বত্বা,আলাদা সাংস্কৃতিক গুনে পৃথক রাষ্ট্র তৈরী করার অধিকার তারা রাখে।
    Total Reply(0) Reply
  • Jakir Al Faruki ২৬ এপ্রিল, ২০২২, ৫:০০ এএম says : 0
    ভারত ইসরাইল কে কপি করছে। তারা ইসরাইলের মতো জনসংখ্যায় পরিবর্তন এনে কাশমিরিদের শেষ করে দিতে চায়। ভারতের সব বিবেকবান মানুষদের এই আগ্রাসনের বিরোধিতা করা উচিত।
    Total Reply(0) Reply
  • Sk Sumon ২৬ এপ্রিল, ২০২২, ৫:০০ এএম says : 0
    চুক্তিবদ্ধ হয়েই কাশ্মীর ভারতের সাথে যুক্ত হয়েছিল, যেহেতু ভারত সরকার চুক্তির ৩৭০/৩৬ প্রত্যাহার করে নিয়েছে, এতে কাশ্মীর পুনরায় স্বাধীন হয়েগেছে, ভারতের উচিত হবে অন্যের স্বাধীন দেশ থেকে তার সমস্ত আর্মি পুলিশ দ্রুত প্রত্যাহার করা!
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মার্কিন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ