Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২, ১৪ আষাঢ় ১৪২৯, ২৭ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

ভারতে মানবাধিকার লঙ্ঘন নিয়ে পার্লামেন্টে বিদ্ধ বরিস

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ এপ্রিল, ২০২২, ১২:০৬ এএম

সদ্য ভারত থেকে ঘুরে গিয়েছেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। সেই সফরে ভারতে মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়টি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে তার কী কথা হল, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধে ভারতের অবস্থান নিয়েই বা বরিস কী ভেবেছেনÑ এ সব প্রশ্নে বুধবার ব্রিটিশ পার্লামেন্টে বিরোধীদের প্রশ্নবাণের মুখে পড়ল বরিস প্রশাসন। তবে এক ঘণ্টার ওই প্রশ্নোত্তর পর্বে বরিস নিজে পার্লামেন্টে উপস্থিত ছিলেন না। তার তরফে হাজির ছিলেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা ভিকি ফোর্ড। বরিসের অনুপস্থিতি নিয়ে বিরোধীদের বেঞ্চে অবশ্য কম চর্চা হয়নি। শুরুতেই স্পিকারের অনুমতি নিয়ে ভারতে মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়ে প্রথম প্রশ্নটি তোলেন স্কটিশ ন্যাশনাল পার্টির এমপি ইয়েন বø্যাকফোর্ড। কাশ্মীরে মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়ে মোদী-বরিসের কী কথা হয়েছে, সে বিষয়ে তিনি ভিকির কাছে জানতে চান। বø্যাকফোর্ড বলেন, ‘‘এই মুহ‚র্তে ইউরোপে ভ্লাদিমির পুতিনের ক্রিয়াকলাপ আমাদের আলোচনার কেন্দ্রে থাকলেও বিশ্বের অন্য প্রান্তে সহিংসতা বা মানবাধিকার লঙ্ঘনের যে সমস্ত ঘটনাগুলি ঘটে চলেছে, সেগুলি থেকে নজর সরানো উচিত নয়।’’ ভারতে মানবাধিকার লঙ্ঘনের উদাহরণ হিসাবে কিছু দৃষ্টান্তও তুলে ধরেন তিনি। বিরোধী লেবার দলের সদস্য নিক টমাস-সাইমন্ডস আরও এক ধাপ সুর চড়িয়ে দিল্লির জহাঙ্গিরপুরীতে বুলডোজারের মুখে উচ্ছেদের প্রসঙ্গটি তোলেন। সেই সূত্রে একটি জেসিবি কারখানায় প্রধানমন্ত্রীর সফর নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে বরিসের ‘নড়বড়ে’ রাজনৈতিক কর্তৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন তোলেন দেন তিনি। পাশাপাশি ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধ প্রসঙ্গে বরিসকে বিঁধেছেন নিক। তার মতে, এমন সুযোগ পেয়েও বরিস তার সদ্বব্যহার করতে পারলেন না। এবিপি।

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বরিস

২৬ মে, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন