Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫, ১২ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে কৃষি অফিসের কার্যক্রম উৎকণ্ঠা নিয়ে কাজ করেন সংশ্লিষ্টরা

প্রকাশের সময় : ১৬ নভেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম | আপডেট : ১০:৩৩ পিএম, ১৫ নভেম্বর, ২০১৬

হারুনুর রশিদ, রায়পুর (লক্ষ্মীপুর) থেকে

লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলা কৃষি অধিদফতর পরিত্যক্ত জরাজীর্ণ ভবনে কয়েক যুগ ধরে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলছে সরকারি অফিসের কাজকর্ম। এ ভবনটি নির্মাণের পর দীর্ঘদিনেও সংস্কার না হওয়ায় ৩টি অফিস কক্ষে কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ সংশ্লিষ্ট জনগণ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চরম উৎকণ্ঠার মধ্যে কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। জরাজীর্ণ ভবনটি ধসে পড়ে যেকোনো সময় ঘটতে পারে বড় দুর্ঘটনা। গত বৃহস্পতিবার কর্মচারী সফিকুল ইসলাম, ফজুল করিম ও মিজানুর রহমানের মাথায় ছাদের পলেস্তারা খসে পড়ে গুরুতর আহত। পরে পাশের লোকজন তারে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়েছেন। এ পর্যন্ত পলেস্তারা খসে পড়ে কমপক্ষে অর্ধশতাধিক গ্রাহক ও ১০ থেকে ১২ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী আহত হয়েছেন। অফিস সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা প্রতিষ্ঠার পর ১৯৬৫ সালে এ ভবনটি উপজেলা কৃষি অফিস হিসেবে ব্যবহার শুরু হয়। এরপর কয়েক বছর গেলেই ভবনের বিভিন্ন স্থানে প্লাস্টার ধসে বড় বড় ফাটল ধরায় মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ ও জরাজীর্ণ হয়ে পড়েছে। কয়েক যুগ ধরে ভবনটির দরজা-জানালা ভাঙ্গা, ছাদের প্লাস্টার উঠে গিয়ে রড বের হয়ে গেছে। সামান্য বৃষ্টি হলেই ভবনের ছাদ দিয়ে পানি পড়ে অফিসের গুরুত্বপূর্ণ রেকর্ডের কাগজপত্র নষ্ট হয়ে যায়। সংস্কারের জন্য সংশ্লিষ্ট অফিসের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বছরের পর বছর আবেদন করলেও তা সংস্কারের কোনো উদ্যোগ নেয়নি। অফিসে কাজের জন্য প্রতিদিন কর্মকর্তা ও কর্মচারীসহ আগত লোকজন চরম আতঙ্ক ও ঝুঁকির মধ্য দিয়ে তাদের কাজ করছেন। গত কয়েক মাস ধরে প্রতিনিয়ত ভবনটির ইট-সুরকি পলেস্তারা খসে খসে পড়ছে। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. জহির উদ্দিন বলেন, অফিসের কাজের জন্য বাধ্য হয়ে কর্মচারীরা পরিত্যক্ত ভবনে ঢুকছেন, কাজকর্মের ফাঁকে সবসময় তারা আতঙ্কের মধ্যে থাকেন কখন তাদের গায়ে প্লাস্টার খসে পড়ে। বিষয়টি ইউএনও ও উপজেলা চেয়ারম্যানসহ সবাইকে একাধিকবার বলে সরজমিনে দেখানো হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শিল্পী রানী রায় জানান, কৃষি অফিস থেকে লিখিতভাবে জানালে এলজিআরডির সাথে আলোচনা করে সংস্কারের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাগ্রহণ করা হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।