Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ২৩ আষাঢ় ১৪২৯, ০৭ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

ঈদের ছুটিতে পর্যটক ভোগান্তির শঙ্কা

কক্সবাজারে সড়ক উন্নয়ন কাজ শেষ হয়নি

বিশেষ সংবাদদাতা, কক্সবাজার থেকে | প্রকাশের সময় : ৩০ এপ্রিল, ২০২২, ১২:০০ এএম

আসন্ন ঈদুল ফিতরের ছুটিতে কক্সবাজারে ব্যাপক পর্যটক আগমনের আশা করা হলেও সড়ক উন্নয়ন কাজ শেষ না হওয়ায় পর্যটক ভোগান্তির আশঙ্কা থেকেই যাচ্ছে। কক্সবাজার শহরের রাস্তাঘাটের যেই অবস্থা তাতে করে এই ভোগান্তির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। পবিত্র রমজান মাসে কক্সবাজারের হোটেল মোটেলগুলোতে পর্যটক ছিল না বললেই চলে। তবে ঈদের ছুটিতে ব্যাপক আকারে পর্যটক আগমনের আশা করছেন হোটেল-মোটেল মালিকসহ পর্যটন সংশ্লিষ্টরা। কিন্তু কক্সবাজার শহরের প্রধান সড়ক’সহ বিভিন্ন অলিগলিতে উন্নয়ন কাজ এখনো শেষ না হওয়ায় ঈদের ছুটিতে কক্সবাজারে ভ্রমণকারী পর্যটকদের ভোগান্তিতে পড়তে হবে এ আশঙ্কা সকলের।
এদিকে কক্সবাজার পৌরসভার চলমান উন্নয়ন প্রকল্প থেকে প্রথমধাপে প্রায় দেড়শো কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ২৯টি সড়ক-উপ সড়কের উদ্বোধন এপ্রিলে হওয়ার কথা থাকলেও তা পিছিয়ে গেছে। স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের মিউনিসিপ্যাল গভর্নেস সার্ভিসেস প্রজেক্ট (এমজিএসপি›র) ৮টি প্রকল্পের ৩২ কিলোমিটার সড়কের কাজ ইতোমধ্যে ৯৫ ভাগ শেষ হওয়ায় এমন সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছিলেন মেয়র মুজিবুর রহমান। তিনি জানান, এখন শেষ মুহুর্তের কাজ চলছে। এই কাজ দ্রুত শেষ হলে এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহে এসব সড়কের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করার কথা ছিল। কিন্তু তা পিছিয়ে গেছে। কক্সবাজার পৌরসভার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট একেএম তারিকুল আলম জানান, মিউনিসিপ্যাল গভর্নেস সার্ভিসেস প্রজেক্ট (এমজিএসপি›র) ৮টি প্রকল্পের কাজ শেষের পথে। এখন উদ্বোধনের অপেক্ষা মাত্র।
এদিকে কাজের অগ্রগতি সম্পর্কে কক্সবাজার পৌরসভার উপ-সহকারী প্রকৌশলী ইঞ্জিনিয়ার টিটন দাশ জানান, পৌর এলাকায় কয়েকটি প্রকল্পের অধিনে প্রায় তিনশো কোটি টাকার কাজ চলছে। এরমধ্যে বেশিরভাগ কাজ শেষ হয়েছে। আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহে প্রায় দেড়শো কোটি টাকার কাজ উদ্বোধন হবে। কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র ও কক্সবাজার জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান বলেন, আসন্ন পর্যটন মৌসুমকে সামনে রেখে কক্সবাজার শহরের অভ্যন্তরীণ সড়কগুলোর উন্নয়ন কাজ এগিয়ে চলেছে। এছাড়াও সৈকত এলাকা এবং হোটেল-মোটেল জোনের সড়কগুলোতে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কাজ চলছে।
এদিকে কক্সবাজার শহরের কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল থেকে হলিডে মোড় পর্যন্ত প্রায় ৫ কি.মি প্রধান সড়কে ২৫৮ কোটি টাকার কাজ চলছে। জুন ২০২২ সালের মধ্যে এই সড়কের কাজ সমাপ্ত হওয়ার কথা রয়েছে। এখন মূলত এই সড়কে ভোগান্তির কোনো শেষ নেই। এই জনভোগান্তির কথা চিন্তা করে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান লেফটেন্যান্ট কর্নেল (অব) ফোরকান আহমদ সড়কটি দ্রুত যান চলাচল উপযোগী করার কথা বলেছেন। এ প্রসঙ্গে পঁচাতারাকা হোটেল, হোটেল সীগাল এর সিইও ইমরুল হাসান রুমী বলেন, কক্সবাজারকে ঘিরে গড়ে উঠেছে পাঁচ তারাকা হোটেল সীগালসহ আরো তারাকা হোটেল। কিন্তু পর্যটন শহরের সড়ক উপসড়কের উন্নয়ন কাজের মন্তর গতিতে পর্যটকরা বিরক্ত।
আসন্ন ঈদুল ফিতরের ছুটিতে কক্সবাজারে পর্যটক আগমন প্রসঙ্গে হোটেল মোটেল ও গেস্ট হাউস মালিক সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব আবুল কাশেম সিকদার বলেন, ইতোমধ্যে বিভিন্ন হোটেল-মোটেলে ভালো বুকিং হয়েছে। তারা আশা করছেন ঈদের ছুটিতে ভালো পর্যটক আসবেন কক্সবাজারে। কক্সবাজার সৈকত এবং হোটেল মোটেল জোন আবার মুখরিত হবে পর্যটকদের পদচারণায়। এ প্রসঙ্গে ট্যুরিস্ট পুলিশের এক কর্মকর্তা জানান ট্যুরিস্ট পুলিশ পর্যটকদের সার্বক্ষণিক সেবায় প্রস্তুত রয়েছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ঈদের ছুটি


আরও
আরও পড়ুন