Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ০২ কার্তিক ১৪২৬, ১৮ সফর ১৪৪১ হিজরী

চবি’র পঞ্চাশ বছর রাঙাতে বর্ণাঢ্য আয়োজন

প্রকাশের সময় : ১৬ নভেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

শাকিরুল হক, চবি থেকে : হাঁটি হাঁটি পা পা করে অবশেষে কাল চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয়ের (চবি) বয়স ৫০ পূর্ণ হতে যাচ্ছে। আর এই অর্ধশত বছর পূরণের দিনটিকে স্মরণীয় করে রাখতে বিশ^বিদ্যালয় প্রশাসন ও সাবেক শিক্ষার্থীদের সম্মিলিত প্রয়াসে দুই দিনব্যাপী বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।
প্রথম দিন শুক্রবার বিকাল তিনটায় সুবর্ণ জয়ন্তীর র‌্যালি দিয়ে অনুষ্ঠানের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হলেও পরদিন সকাল সাড়ে দশটায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঢাকা থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সুবর্ণ জয়ন্তীর ডাক টিকেট উন্মোচন ও অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করবেন।
গতকাল মঙ্গলবার চট্টগ্রামের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের বঙ্গবন্ধু সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলন করে দুই দিনব্যাপী আনুষ্ঠানিকতার বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী। তিনি জানান, শুক্রবার বিকাল ৩টায় চারুকলা ইনস্টিটিউট থেকে সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের নিয়ে জাঁকজমকপূর্ণ শোভাযাত্রার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হবে। এ শোভাযাত্রা শেষ হবে সিআরবি শিরীষতলা গিয়ে। পরে জিইসি কনভেনশন সেন্টারে প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের দেয়া হবে অভ্যর্থনা। আর এ অভ্যর্থনার নাম দেয়া হয়েছে ওয়েলকাম নাইট। এখানে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আগত প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের জন্য চট্টগ্রামের বিখ্যাত মেজবান-এর আয়োজন করা হবে। তাছাড়া ওয়েলকাম নাইটকে আনন্দঘন করে তুলতে গান পরিবেশন করবেন উপমহাদেশের প্রখ্যাত শিল্পি রুনা লায়লাসহ সন্দীপন ও হৈমন্তি রক্ষিত মান ।
দ্বিতীয় দিন শনিবার অনুষ্ঠানের নাম দেয়া হয়েছে ওয়েলকাম ডে। এদিন প্রধান অতিথি থাকবেন জাতীয় সংসদের ¯িপকার শিরীন শারমিন চৌধুরী ও সুবর্ণ জয়ন্তী বক্তা থাকবেন প্রফেসর ইমেরিটাস ড. আনিসুজ্জামান। আর বিশেষ অতিথি থাকবেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ হোসেন, পানিস¤পদমন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি, ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর। এছাড়া সম্মানিত অতিথি থাকবেন নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী, সিটি মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ স¤পাদক আ জ ম নাছির উদ্দিন, ইউজিসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক আব্দুল মান্নান।
ক্যাম্পাসের দ্বিতীয় দিনের অনুষ্ঠানের মূল স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে কেন্দ্রীয় খেলার মাঠ। অনুষ্ঠানে আলোচনা সভার পর চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র ও মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা দেয়া হবে। পরে দুপুর ১২টায় শুরু হবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। চলবে রাত সাতটা পর্যন্ত। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের শুরুতে প্রথমে সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা এবং পরে ওয়ারফেজ, লালন, আর্টসেল অনুষ্ঠানে অংশ নেবে। আরো থাকছেন সঙ্গীতশিল্পী তপন চৌধুরী ও দিনাত জাহান মুন্নী ।
অন্যদিকে বিভাগ অনুযায়ী প্রতি ২০০ জনের জন্য কেন্দ্রীয় মাঠে একটি করে অর্ধশতাধিক বুথের ব্যবস্থা করা হবে। বুথ থেকে রেজিস্ট্রেশনকৃত সাবেক শিক্ষার্থীদের ব্যাগ, স্যুভেনিয়র, নাস্তার প্যাকেট সরবরাহ করা হবে। দুপুরে প্রায় ৩৫ হাজার বর্তমান ও সাবেক শিক্ষার্থীর জন্য থাকবে খাবারের আয়োজন। কেন্দ্রীয় খেলার মাঠের এক কোণে প্রতিব্যাচে একসাথে দুই হাজার সাবেক শিক্ষার্থীর জন্য খাবারের ব্যবস্থা করা হবে। আর বর্তমান শিক্ষার্থীরা একই খাবার টোকেন নিয়ে নিজ নিজ হলের ডাইনিং হলে খেতে পারবেন।
সাবেক শিক্ষার্থীদের পরিচিতি কার্ড ইতোমধ্যে প্রতিব্যাচের প্রতিনিধিরা দূরবর্তী শহরে কুরিয়ারে ও কাছের স্থানগুলোতে হাতে হাতে দিচ্ছেন। না পেলে তাঁরা ১৮ নভেম্বর জিইসি কনভেনশন সেন্টার থেকে নিজ ব্যাচের প্রতিনিধির কাছ থেকে সংগ্রহ করতে পারবেন।
যাতায়াতের সুবিধার্থে ঢাকা থেকে সূবর্ণ জয়ন্তীর জন্য একটি বিশেষ ট্রেনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়া ১৯ নভেম্বর সকালে নগরের বটতলী ও ষোলশহর রেলওয়ে স্টেশন থেকে ছয়টি শাটল ট্রেন সকাল ৮টা থেকে আধাঘণ্টা পর পর বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাবে। নগরের ১০ স্থানে থাকবে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩০টি বাস। তবে বাসের যাত্রা শুরুর স্থান এখনো নির্ধারণ হয়নি।
এ দিকে সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে বিশ^বিদ্যালয়ের বর্তমান শিক্ষার্থীদের মধ্যে চরম আনন্দ ও উৎকন্ঠ বিরাজ করছে। তাদের ভাষ্য মতে, আমরা আজকে বিশ^বিদ্যালয়ের ৫০ বছর পূরণের বর্তমান ছাত্র হিসেবে সাক্ষী হয়ে থাকতে পেরে নিজেদেরকে সৌভাগ্যবান মনে করছি। তাছাড়া অনেক পুরাতন বড় ভাই-বোনদের সাথে পরিচিত হওয়া যাবে। যা অত্যন্ত সুখকর।
বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ও সুবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠানের প্রধান সমন্বয়ক কামরুল হুদা জানান, সুবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন নয় হাজার ৬১২ জন প্রাক্তন ও ২০ হাজার ৯০১ জন বর্তমান শিক্ষার্থী। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সুবর্ণ জয়ন্তী আয়োজন কমিটির অন্যতম সদস্য ও চট্টগ্রাম চেম্বারের সভাপতি মাহবুবুল আলম, প্রো-ভিসি শিরীণ আখতার, প্রক্টর আলী আজগর চৌধুরী, বিভিন্ন অনুষদের ডিন, হল প্রভোস্টসহ আয়োজক কমিটির সদস্যরা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ