Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬ আশ্বিন ১৪২৭, ০৩ সফর ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

পাকিস্তানের অপকর্ম আড়াল করতেই খালেদা জিয়া শহীদদের সংখ্যা নিয়ে বিতর্ক তৈরি করেছেন : হানিফ

প্রকাশের সময় : ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানের করা অপকর্ম আড়াল করতেই বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ। গতকাল রোববার দুপুরে বঙ্গবন্ধু এভিনিউর আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় তিনি এ অভিযোগ করেন। ১৫ ফেব্রুয়ারি ঢাকার ১৫টি স্থানে ১৪ দল আয়োজিত একযোগে মানববন্ধন সফল করার লক্ষ্যে এ বিশেষ বর্ধিতসভার আয়োজন করা হয়। মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, একাত্তরে পাকিস্তানের অপকর্মকে আড়াল ও নতুন করে জাতির মধ্যে বিভেদ সৃষ্টির উদ্দেশ্য দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করে সার্বভৌমত্বকে হুমকির মুখে ফেলা। এই দুই লক্ষে বিএনপি চেয়ারপারসন দেশের স্বাধীনতা নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি করছেন। কিন্তু তিনি যতই ষড়যন্ত্র করুন না কেন, দেশের জনগণ তা সফল হতে দেবে না।
তিনি বলেন, বিএনপি কখনই বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও এর আদর্শে বিশ্বাসী ছিল না। তারা পাকিস্তানের আদর্শ ধারণ ও লালন করেছে সবসময়। পাকিস্তানের আদর্শে আদর্শিত হয়েই তাদের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করার জন্য দেশের জনগণের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে বিএনপি। সে কারণে বেগম খালেদা জিয়া স্বাধীনতার ৪৪ বছর পরে স্বাধীনতার মীমাংসিত বিষয় নিয়ে নতুন করে বিতর্ক সৃষ্টি করেছেন।
আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, একাত্তরের পরাজিত শক্তি পাকিস্তান আমাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করতেই পারে। কিন্তু আমাদের দুর্ভাগ্য স্বাধীন বাংলাদেশে মুক্তিযোদ্ধার দল হিসাবে দাবীদার মুক্তিযুদ্ধের ‘বিশ্বাসঘাতক’ জিয়াউর রহমান ও তার স্ত্রী খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে বিএনপি আজ দেশের স্বাধীনতার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে পাকিস্তানের পক্ষ নিয়েছে।
তিনি বলেন, আগামীকালের মানববন্ধন হবে বিএনপি এবং পাকিস্তানের অন্যায় এবং স্বাধীনতার বিরুদ্ধে অবস্থানের বিরুদ্ধে। এটা আওয়ামী লীগ কিংবা ১৪ দলের নয়। এ প্রতিবাদ গোটা দেশের স্বাধীনতাকামী মানুষের, যারা দেশের স্বাধীনতা বিশ্বাস করে তাদের প্রত্যেকের এ মানববন্ধনে উপস্থিত হওয়া উচিত।
ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেন, পাকিস্তান আমাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র বন্ধ না করলে তাদের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করতে হবে। প্রয়োজনে আমাদের পাকিস্তানের পণ্য বর্জন করতে হবে।
তিনি বলেন, আজকে দেশে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হচ্ছে এবং তাদের শাস্তি হচ্ছে। তাদের মত খালেদা জিয়ার অপরাধও কম নয়। তাই তাকেও গ্রেফতার করে শাস্তি দেয়ার আহ্বান করছি সরকারের কাছে।
মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম বলেন, পাকিস্তানের আচারণ ও খালেদা জিয়ার আচারণ একই। তাই তাদের বক্তব্যকে পার্থক্য করার সুযোগ নেই। পাকিস্তানের মত খালেদা জিয়াও দেশের মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের সংখ্যা নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি করেছেন। তাই আমাদের এ অপশক্তির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।
ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি কামাল আহমেদ মজুমদারের সভাপতিত্বে এ বর্ধিত সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মুকুল চৌধুরী, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হাজী সেলিম, আওলাদ হোসেন প্রমুখ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পাকিস্তানের অপকর্ম আড়াল করতেই খালেদা জিয়া শহীদদের সংখ্যা নিয়ে বিতর্ক তৈরি করেছেন : হানিফ
আরও পড়ুন