Inqilab Logo

শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ১৭ আষাঢ় ১৪২৯, ০১ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

গোয়েন্দা তথ্য দেয়ার কথা বলেও আবার অস্বীকার যুক্তরাষ্ট্রের

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৬ মে, ২০২২, ১:২৪ পিএম

যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সংবাদমাধ্যম নিউইয়র্ক টাইমস খবর দিয়েছিল যে, যুক্তরাষ্ট্র যেসব গোয়েন্দা তথ্য সরবরাহ করেছে তা বেশ ক'জন রুশ জেনারেলকে হত্যা করতে ইউক্রেনের বাহিনীকে সহায়তা করেছে। তবে এ তথ্যই আবার সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

মার্কিন সরকারের অজ্ঞাতপরিচয় কিছু সূত্র উল্লেখ করে নিউইয়র্ক টাইমস বলছে, রণক্ষেত্রে রুশ বাহিনীর বিভিন্ন ইউনিট এবং তাদের ভবিষ্যৎ চলাচলের ওপর যুক্তরাষ্ট্র তাৎক্ষণিক গোয়েন্দা তথ্য ইউক্রেনের হাতে তুলে দিয়েছে। অর্থাৎ, রুশ বাহিনী কোথায় অবস্থান করছে, কোন পথ দিয়ে চলাচল করছে এসব তথ্য ইউক্রেনের সামরিক বাহিনীর কাছে সরবরাহ করা হয়েছে। তবে এসব মৃত্যুর কতগুলো মার্কিন গোয়েন্দা তথ্যের সুবাদে ঘটেছে সে বিষয়ে পরিষ্কার করে কিছু বলা হয়নি।

হোয়াইট হাউজের একজন মুখপাত্র নিউইয়র্ক টাইমসের এই খবরকে 'বিভ্রান্তিকর' এবং 'দায়িত্বহীন' বলে উল্লেখ করেছেন। জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের মুখপাত্র এড্রিয়েন ওয়াটসন বলেছেন, "তাদের দেশকে রক্ষার জন্য" ইউক্রেনকে এসব গোয়েন্দা তথ্য সরবরাহ করা হয়েছে এবং এর পেছনে "রুশ জেনারেলদের হত্যা করার কোন উদ্দেশ্য ছিল না।"

এদিকে, রাশিয়া বলছে যে ইউক্রেনীয় সৈন্যদের বেশ কয়েকটি অবস্থানের ওপর তারা রাতভর গোলাবর্ষণ করেছে। তবে দক্ষিণের মারিউপোল শহরের আজভস্টাল ইস্পাত কারখানায় আশ্রয় নেওয়া বেসামরিক লোকজন যাতে সেখান থেকে বের হয়ে যেতে পারে সেজন্য ওই কারখানা এলাকায় যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করেছে।

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলছে যে তারা ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলের বিভিন্ন জায়গায় আক্রমণ চালিয়ে ইউক্রেনের ৬০০ যোদ্ধাকে হত্যা করেছে। আজভস্টাল কারখানায় ইউক্রেনীয় বাহিনীর কমান্ডার ডেনিস প্রকোপেঙ্কো বুধবার শেষ রাতে বলেছেন, "রুশ সৈন্যরা কারখানার কিছু জায়গায় ঢুকে পড়ার পর সেখানে ইউক্রেনীয় যোদ্ধাদের সঙ্গে রক্তক্ষয়ী লড়াই" চলছে।

ইউক্রেনীয় যোদ্ধারা বলছে রাশিয়া তাদেরকে 'ধ্বংস' করে দিতে চাইছে। সংবাদদাতারা বলছেন, মারিউপোল শহরে রাশিয়া তিনদিনের জন্য যে যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করেছে সেটা এই কারখানা এলাকায় কার্যকর হবে কি না তা পরিষ্কার নয়। ধারণা করা হচ্ছে, ওই কারখানার ভেতরে প্রায় ২০০ বেসামরিক নাগরিক আশ্রয় নিয়েছে।

তবে আজভস্টাল কারখানার ভেতরে রুশ সৈন্যদের ঢুকে পড়ার খবর অস্বীকার করেছে ক্রেমলিন। ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেছেন, প্রেসিডেন্ট পুতিন গত মাসেই কারখানার ভেতরে ঢুকে হামলা না করার নির্দেশ দিয়েছিলেন। প্রেসিডেন্ট পুতিন তার প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগুকে নির্দেশ দিয়েছিলেন কারখানাটি এমনভাবে ঘিরে রাখতে যাতে সেখান থেকে "একটা মাছিও বের হয়ে যেতে না পারে।"

রুশ বাহিনী কয়েক সপ্তাহ ধরে এই কারখানাটি অবরোধ করে রেখেছে। এই কারখানাটিকে দেখা হচ্ছে ইউক্রেনীয় যোদ্ধাদের শেষ ঘাঁটি হিসেবে। একারণে এর নিয়ন্ত্রণ রাশিয়ার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ। সূত্র: বিবিসি।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: যুক্তরাষ্ট্র


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ