Inqilab Logo

বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ১৫ আষাঢ় ১৪২৯, ২৮ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

রক্ত জমাট বাঁধায় জনসন টিকায় শর্তারোপ এফডিএর

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ মে, ২০২২, ১২:০১ এএম

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, দক্ষিণ আফ্রিকা ও ইউরোপের বেশ কিছু অংশে জনসন অ্যান্ড জনসনের করোনাভাইরাসের টিকার ব্যবহারেরে ওপর জারি করা হল নিষেধাজ্ঞা। কেন এ নিষেধাজ্ঞা? গবেষকরা জানিয়েছেন, কয়েকটি ক্ষেত্রে বিরল রক্ত জমাট বাঁধার পার্শ্বপ্রতিμিয়ার রিপোর্টের পরই তড়িঘড়ি জারি করা হয় এ নিষেধাজ্ঞা। কারা এ টিকা গ্রহণ করতে পারবেন সে ব্যাপারে মার্কিন টিকা বিশেষজ্ঞরা একটি নির্দিষ্ট গাইডলাইন সামনে এনেছেন। গবেষকরা বলেছেন, সেসব ব্যক্তি এ টিকা গ্রহণ করতে পারবেন যারা এর আগে কোনো টিকা গ্রহণ করেননি। অথবা বিশেষভাবে জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকা নেওয়ার আবেদন করবেন।
ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের তরফে বলা হয়েছে যে, টিকাটি শুধুমাত্র প্রাপ্তবয়স্কদের দেওয়া উচিত যারা আলাদা কোনো টিকা ভ্যাকসিন গ্রহণ করেননি। অথবা বিশেষভাবে জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকা নেওয়ার আবেদন করবেন। মার্কিন কর্তৃপক্ষ কয়েক মাস ধরে সুপারিশ করেছে যে আমেরিকানরা তাদের কোভিড টিকা হিসাবে ফাইজার বা মডার্না টিকা ব্যবহার করার।
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এখনও পর্যন্ত প্রায় ৬৮ লাখ ব্যক্তি এই ভ্যাকসিন নিয়েছেন। তাঁদের মধ্যে মোট ছ’জনের ক্ষেত্রে রক্ত জমাট বাঁধার ঘটনা হয়েছে। এরপরেই সাবধানতা অবলম্বন করে প্রয়োগ বন্ধ করল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওষুধের নিয়ন্ত্রক ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ)। এফডিএ-র বক্তব্য, টিকা গ্রহণের পর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া থেকে রেহাই পেতেই এর ব্যবহার স্থগিত করা হয়েছে। টিকা গ্রহণের পরেই রক্ত জমাট বেঁধে একজনের মৃত্যু হয়। আরেক টিকা গ্রহণকারীর শারীরিক অবস্থা গুরুতর। যে ৬০ জনের ক্ষেত্রে এই সমস্যা লক্ষ্য করা গিয়েছে তাদের সকলের বয়সই ১২ থেকে ৪৮ বছরের মধ্যে। এফডিএ-এর ভ্যাকসিন প্রধান ডঃ পিটার মার্কস বলেছেন রক্ত জমাট বাঁধার ঝুঁকির তথ্যের উপর নজর দেওয়ার পরে এবং তারা জনসন অ্যান্ড জনসনের -এর টিকা সীমাবদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।এফডিএ গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে ১৮ বছর বা তার বেশি বয়সী প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য এই টিকা অনুমোদন করেছিল।
মার্চের মাঝামাঝি পর্যন্ত, ফেডারেল বিজ্ঞানীরা পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া সংক্রান্ত ৬০ টি কেস শনাক্ত করেছিলেন, যার মধ্যে নয়টি মারাত্মক বলে উল্লেখ করেছেন ৫০ বছরের কম বয়সী মহিলাদের মধ্যে এই সমস্যাটি বেশি দেখা যায় বলেও জানানো হয়েছে। মার্কস বলেছেন এফডিএ বিষয়টি গভীর ভাবে পর্যালোচনা করেছেন এবং তারা দেখেছেন যেহেতু মহিলারা জন্মনিয়ন্ত্রণ ওষুধ গ্রহণ করে যা তাদের জমাট বাঁধার ঝুঁকি বাড়ায়। জনসন অ্যান্ড জনসনের এই ভ্যাকসিনের উৎপাদন হচ্ছে বেলজিয়ামে। অন্যান্য টিকাগুলির থেকে এটি কিছুটা আলাদা। একবার টিকার ডোজ নিলেই যথেষ্ট। অন্যান্য টিকার ক্ষেত্রে সাধারণত নির্দিষ্ট সময় অন্তর দুটি করে ডোজ নিতে হচ্ছে। এক্ষেত্রে সেই ব্যাপার নেই।অন্যদিকে সাধারণ ফ্রিজেই সংরক্ষণ করা যায় জনসন অ্যান্ড জনসনের করোনা টিকা। ফলে দুর্গম স্থান, উষ্ণতর দেশে পাঠানো ও সংরক্ষণ করাও বেশ সহজ। কিন্তু রক্ত জমাট বাঁধার মত বিরল ঘটনা সামনে আসতেই নিয়ন্ত্রণ জারি করা হয় জনসন অ্যান্ড জনসনের করোনা টিকার। সে সঙ্গে এই টিকার পরিবর্তে মার্কিনীদের ফাইজার বা মডার্নার টিকা নেওয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে। সূত্র : ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ