Inqilab Logo

শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ১৮ আষাঢ় ১৪২৯, ০২ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

ভোজ্যতেলের মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করুন

বিভিন্ন ইসলামী দলের তীব্র প্রতিবাদ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৭ মে, ২০২২, ১২:০১ এএম

ভোজ্যতেল সয়াবিনের অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত অবিলম্বে প্রত্যাহার করুন। রোজার আগে থেকে সিন্ডিকেট চক্র সয়াবিনের মূল্য বৃদ্ধির জন্য পাঁয়তারা চালিয়ে আসছে। এক লাফেই প্রতি লিটার সয়াবিনের দাম ৩৮ টাকা বৃদ্ধি করে সরকার জনগণের সাথে বিমাতাসূলভ আচরণ করছে। ভোজ্যতেলের মূল্য বৃদ্ধিতে জনদুর্ভোগ অস্বাভাবিকভাবে বাড়বে। গতকাল বিভিন্ন ইসলামী দলের নেতৃবৃন্দ পৃথক পৃথক বিবৃতিতে এসব কথা বলেন।

খেলাফত মজলিস : ভোজ্যতেল বিশেষ করে সয়াবিন তেলের অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধির তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে সকল নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম কমানোর দাবি জানিয়েছেন খেলাফত মজলিসের আমীর মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক ও মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদের। এক যৌথ বিবৃতিতে তারা বলেন, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে জনগণের নাভিশ্বাস উঠেছে। এর মধ্যে ঈদের আগ থেকে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে বাজারে সয়াবিন তেলের কৃত্রিম সঙ্কট সৃষ্টি করা হয়েছে। এ সঙ্কটের মধ্যেই হঠাৎ করে
সয়াবিন তেল দাম লিটার প্রতি ৩৮ টাকা বৃদ্ধি করে প্রতি লিটার ১৯৮ টাকা করা হয়েছে। এখন ৫ লিটারের এক বোতল তেলের দাম বেড়ে হয়েছে ৯৮৫ টাকা। সয়াবিন তেলের সাথে পামওয়েলের দামও বাড়ানো হয়েছে। এক লিটার তেলের দাম এক লাফে ৩৮ টাকা বৃদ্ধি কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। দেশের বাজার মুনাফালোভী সিন্ডিকেটের হাতে বন্দী। এভাবে ভোজ্যতেলের লাগামহীন মূল্যবৃদ্ধি জনগণের উপর মারাত্মক জুলুম। জনগণের উপর শোষণ জুলুম বন্ধ করতে হবে। খেলাফত মজলিসের নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে সয়াবিন তেল ও পাম সুপার তেলের বর্ধিত মূল্য প্রত্যাহারের দাবি জানান।
ইসলামী ঐক্যজোট : ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মাওলানা আব্দুর রকিব অ্যাডভোকেট ও মহাসচিব অধ্যাপক মাওলানা আব্দুল করিম এক যুক্ত বিবৃতিতে ভোজ্যতেলের অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধির তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছেন। তারা বলেন, ভোজ্যতেলসহ নিত্যপণ্য সামগ্রির আকাশচুম্বি মূল্য বৃদ্ধির দরুণ জনগণের নাভিশ্বাস উঠছে। এক লাফেই প্রতি লিটার তেলের দাম ৩৮ টাকা বৃদ্ধি করে সাধারণ জনগণের সাথে অমানবিক আচরণ করা হচ্ছে। সয়াবিনের মূল্য বৃদ্ধির সাথে সাথে অন্যান্য খাদ্য সামগ্রির দামও বেড়ে যাবে। এতে জনগণের ভোগান্তি চরম আকার ধারণ করবে। তারা বলেন, ভোজ্যতেলের বাজার সিন্ডিকেট চক্রের হাতে জিম্মি। তারা ভোক্তাদের স্বার্থে অবিলম্বে সয়াবিনের মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের জোর দাবি জানান।
মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম পরিষদ : প্রায় ১৫ মাসে নয় বার ও ৩ মাসের মাথায় আবারও ভোজ্যতেলের দাম এক লাফে ৩৮ টাকা বৃদ্ধির সিদ্ধান্তের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে ইসলামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম পরিষদ।
ভোজ্যতেলের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদ জানিয়ে এক বিবৃতিতে ইসলামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম পরিষদ সভাপতি শহিদুল ইসলাম কবির বলেন, কোন কারণ ছাড়াই দফায় দফায় নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য ভোজ্যতেলের মূল্য বৃদ্ধি দারিদ্র্য সীমার নীচে থাকা নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের জন্য মরার উপর খাঁড়ার ঘা। জনগনকে ক্ষতিগ্রস্ত করে গুটি কয়েক ব্যবসায়ীকে লাভবান করতে ভোজ্যতেলের মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত অমানবিক।
শহিদুল ইসলাম কবির বলেন, প্রধানমন্ত্রী সংসদে দাঁড়িয়ে বেগুনের মূল্য বৃদ্ধির ফলে দেশবাসীকে মিষ্টি কুমড়ার বেগুনি খাবার পরামর্শ দিয়েছিলেন। এবারে সরকারের পক্ষ থেকে ভোজ্যতেলের ক্ষেত্রে ভর্তুকি না দিয়ে মূল্য বৃদ্ধির পরিস্থিতিতে তিনি কি সাধারণ মানুষকে পানি ব্যবহার করার পরামর্শ দিবেন?



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভোজ্যতেল

১৫ মে, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন