Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ১৬ আষাঢ় ১৪২৯, ২৯ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

নিজেদের দেয়া তথ্যই অস্বীকার যুক্তরাষ্ট্রের

ওয়াশিংটন মিথ্যার সবচেয়ে বড় মেশিন : চীন রাশিয়ান জ্বালানি নিষিদ্ধ করার খরচ নিয়ে অস্বস্তিতে ইউরোপ ষ ইউক্রেনে রাশিয়ার অগ্রগতি থামাতে পারছে না পশ্চিমারা ষ জেলেনস্কি যুদ্ধ চেয়েছিলেন, জা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৮ মে, ২০২২, ১২:০৩ এএম

যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সংবাদমাধ্যম নিউইয়র্ক টাইমস খবর দিয়েছিল যে, যুক্তরাষ্ট্র যেসব গোয়েন্দা তথ্য সরবরাহ করেছে তা বেশ ক’জন রুশ জেনারেলকে হত্যা করতে ইউক্রেনের বাহিনীকে সহায়তা করেছে। তবে এ তথ্যই আবার সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এদিকে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ‘বানোয়াট মিথ্যার সবচেয়ে বড় মেশিন’, বলে মন্তব্য করেছে চীন।

মার্কিন সরকারের অজ্ঞাতপরিচয় কিছু সূত্র উল্লেখ করে সম্প্রতি নিউইয়র্ক টাইমস বলছে, রণক্ষেত্রে রুশ বাহিনীর বিভিন্ন ইউনিট এবং তাদের ভবিষ্যৎ চলাচলের ওপর যুক্তরাষ্ট্র তাৎক্ষণিক গোয়েন্দা তথ্য ইউক্রেনের হাতে তুলে দিয়েছে। অর্থাৎ, রুশ বাহিনী কোথায় অবস্থান করছে, কোন পথ দিয়ে চলাচল করছে এসব তথ্য ইউক্রেনের সামরিক বাহিনীর কাছে সরবরাহ করা হয়েছে। তবে এসব মৃত্যুর কতগুলো মার্কিন গোয়েন্দা তথ্যের সুবাদে ঘটেছে সে বিষয়ে পরিষ্কার করে কিছু বলা হয়নি। হোয়াইট হাউজের একজন মুখপাত্র নিউইয়র্ক টাইমসের এই খবরকে ‘বিভ্রান্তিকর’ এবং ‘দায়িত্বহীন’ বলে উল্লেখ করেছেন। জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের মুখপাত্র এড্রিয়েন ওয়াটসন বলেছেন, তাদের দেশকে রক্ষার জন্য” ইউক্রেনকে এসব গোয়েন্দা তথ্য সরবরাহ করা হয়েছে এবং এর পেছনে ‘রুশ জেনারেলদের হত্যা করার কোন উদ্দেশ্য ছিল না।’

এদিকে, রাশিয়া বলছে যে ইউক্রেনীয় সৈন্যদের বেশ কয়েকটি অবস্থানের ওপর তারা রাতভর গোলাবর্ষণ করেছে। তবে দক্ষিণের মারিউপোল শহরের আজভস্টাল ইস্পাত কারখানায় আশ্রয় নেওয়া বেসামরিক লোকজন যাতে সেখান থেকে বের হয়ে যেতে পারে সেজন্য ওই কারখানা এলাকায় যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করেছে। রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলছে যে, তারা ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলের বিভিন্ন জায়গায় আক্রমণ চালিয়ে ইউক্রেনের ৬০০ যোদ্ধাকে হত্যা করেছে। আজভস্টাল কারখানায় ইউক্রেনীয় বাহিনীর কমান্ডার ডেনিস প্রকোপেঙ্কো বুধবার শেষ রাতে বলেছেন, ‘রুশ সৈন্যরা কারখানার কিছু জায়গায় ঢুকে পড়ার পর সেখানে ইউক্রেনীয় যোদ্ধাদের সঙ্গে রক্তক্ষয়ী লড়াই’ চলছে। ইউক্রেনীয় যোদ্ধারা বলছে রাশিয়া তাদেরকে ‘ধ্বংস’ করে দিতে চাইছে। সংবাদদাতারা বলছেন, মারিউপোল শহরে রাশিয়া তিনদিনের জন্য যে যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করেছে সেটা এই কারখানা এলাকায় কার্যকর হবে কি না তা পরিষ্কার নয়। ধারণা করা হচ্ছে, ওই কারখানার ভেতরে প্রায় ২০০ বেসামরিক নাগরিক আশ্রয় নিয়েছে।

এদিকে, চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান বৃহস্পতিবার নিয়মিত ব্রিফিংয়ে বলেছেন, ইউক্রেনের উন্নয়নের জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তার দায়িত্ব বিবেচনা করা উচিত এবং ইউক্রেন সমস্যার দ্রুত রাজনৈতিক সমাধানের জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সাথে জড়িত হওয়া উচিত। ঝাও লিজিয়ান বলেন, ‘আমি উল্লেখ করতে চাই যে ইউক্রেনীয় সঙ্কটের সূচনাকারী এবং সবচেয়ে বড় চালক হিসাবে, মার্কিন সরকারের উচিত রাশিয়ান-ইউক্রেনীয় সংঘাতের পরিপ্রেক্ষিতে তার দায়িত্বকে সংবেদনশীলভাবে মূল্যায়ন করা এবং পুনর্বিবেচনা করা এবং ইউক্রেনীয় সঙ্কটের রাজনৈতিক সমাধান দ্রুত খুঁজে পেতে সহায়তা করার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সাথে জড়িত হওয়া উচিত।’

চীনা কর্মকর্তারা এবং মিডিয়া আউটলেটগুলো ‘নিয়মিতভাবে ক্রেমলিনের প্রচার, ষড়যন্ত্রের তত্ত্ব এবং বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রচার করে’ বলে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের একটি বিবৃতির পরিপ্রেক্ষিতে মন্তব্য করার সময় ঝাও লিজিয়ান উল্লেখ করেছিলেন যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে এই ধরনের মন্তব্যগুলো নিজেরাই ভুল তথ্য। তিনি যোগ করেছেন যে, এই ধরনের বিবৃতি আবারও প্রমাণ করেছে যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ‘সবচেয়ে বড় মিথ্যা-বানোয়াট মেশিন।’

পরমাণু বহনে সক্ষম ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা রাশিয়ার : পরমাণু অস্ত্র বহনে সক্ষম ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছেন ভøাদিমির পুতিন যাকে পশ্চিমাদের জন্য একটি বড় হুমকি হিসাবে দেখা হচ্ছে। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, পোল্যান্ড ও লিথুয়ানিয়ার মধ্যে বাল্টিক সাগরে কালিনিনগ্রাদের পশ্চিমাঞ্চলীয় ছিটমহলে রাশিয়ান সেনারা পারমাণবিক বহনে সক্ষম ইস্কান্দার মোবাইল ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থার সিমুলেটেড ‘ইলেক্ট্রনিক লঞ্চ’ পরীক্ষা করেছে।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, বাহিনী ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা, বিমানঘাঁটি, সুরক্ষিত অবকাঠামো, সামরিক সরঞ্জাম এবং শত্রুর কমান্ড পোস্টের লঞ্চার অনুকরণ করে লক্ষ্যবস্তুতে একক এবং একাধিক হামলার পরীক্ষা করেছে।
প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় যোগ করেছে, ‘সম্ভাব্য প্রতিশোধমূলক ধর্মঘট’ এড়াতে কর্মীরা তখন তাদের অবস্থান পরিবর্তন করার জন্য একটি কৌশল চালায়। তবে, সিমুলেটর পরীক্ষার সময় কোন প্রকৃত ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করা হয়নি। পরীক্ষার সময় ১০০টিরও বেশি সৈন্য জড়িত সামরিক ইউনিটগুলো ‘বিকিরণ এবং রাসায়নিক দূষণের পরিস্থিতিতে ক্রিয়াকলাপ’ পরীক্ষা করেছে বলে জানা গেছে।

পারমাণবিক ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে ব্রিটেনকে মাটিতে ধ্বংস করার ভøাদিমির পুতিনের বন্ধুদের হুমকি দেখায় যে, ক্রেমলিন পশ্চিমের প্রতি অভিযান চালিয়ে যাওয়ার সময় রাশিয়ান রাষ্ট্রীয় পন্ডিতরা কতটা অসংযত বোধ করে।

রাশিয়ান জ্বালানি নিষিদ্ধ করার খরচ নিয়ে অস্বস্তিতে ইউরোপ : ইউরোপ জুড়ে, ক্রমবর্ধমান জ্বালানির দাম সাধারণ ভোক্তা এবং ব্যবসায়ী মালিকদের সংকল্প পরীক্ষা করছে যারা সস্তা রাশিয়ান জ্বালানির উপর মহাদেশটির নির্ভরতা এবং রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনের ইউক্রেনে আক্রমণের বিরুদ্ধে এর বিদ্রোহের মধ্যে আটকে আছে।
সরকারগুলি রাশিয়া থেকে জ্বালানি সরবরাহ প্রতিস্থাপন করার চেষ্টা করছে। তারা দাবি করছে যে, তাদের নিয়মিত অর্থপ্রদান একটি যুদ্ধে অর্থায়ন করছে যা হাজার হাজার বেসামরিক মৃত্যু এবং ব্যাপক ধ্বংসলীলা দেখেছে। তারা রুবেলে অর্থ প্রদানের দাবিতে মস্কোর সাথে একটি স্নায়ু-বিধ্বংসী শোডাউনের মুখোমুখি হয় এবং রাশিয়া সরবরাহ বন্ধ করে দেয়, যেমনটি গত সপ্তাহে বুলগেরিয়া এবং পোল্যান্ডে করেছিল।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলি রাশিয়া থেকে ৪০ শতাংশ গ্যাস এবং ২৫ শতাংশ তেল আমদানি করে এবং ইউরোপের বর্তমান সময়সূচী আরও পাঁচ বছরের জন্য মস্কো থেকে জ্বালানির স্বাধীনতার পূর্বাভাস দেয় না। নৃশংসতা প্রকাশের সাথে সাথে, ইইউ নিষেধাজ্ঞাগুলি তীক্ষ্ণ করতে চাইছে। বুধবার ইউরোপীয় ইউনিয়নের নির্বাহী শাখা ২০২২ সালের শেষ নাগাদ অপরিশোধিত তেল এবং পরিশোধিত পণ্য আমদানি বন্ধ করার প্রস্তাব করেছে। এটি অবশ্যই ২৭টি সদস্য দেশ দ্বারা অনুমোদিত হতে হবে, যা খুবই কঠিন হবে কারণ কেউ কেউ অন্যদের তুলনায় রাশিয়ান তেলের উপর বেশি নির্ভরশীল। তবুও, প্রাকৃতিক গ্যাসের চেয়ে তেল প্রতিস্থাপন করা সহজ, যা বিদ্যুৎ এবং বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য ব্যবহৃত হয়।

ইউক্রেনে রাশিয়ার অগ্রগতি থামাতে পারছে না পশ্চিমারা : একটি ধীরে ধীরে পুনরুত্থিত হওয়া রাশিয়ান সেনাবাহিনী পূর্ব ইউক্রেনে ক্রমবর্ধমান সাফল্য অর্জন করছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং তার মিত্ররা রাশিয়ানদের আটকাতে ইউক্রেনীয়দের জরুরী প্রয়োজনে প্রচুর পরিমাণে অস্ত্র সরবরাহ করছে। কিন্তু তাদের এ প্রচেষ্টাও ব্যর্থ হচ্ছে। উভয় পক্ষই প্রচণ্ড লড়াই করছে, উভয় পক্ষই ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি করছে, এবং উভয় পক্ষের জন্য এটি সময়ের বিরুদ্ধে একটি প্রতিযোগিতায় পরিণত হয়েছে। ইউক্রেনীয়রা যদি নতুন অস্ত্রের আগমনের জন্য যথেষ্ট সময় ধরে রাখতে পারে, তবে একটি ভাল সুযোগ রয়েছে যে তারা কেবল রাশিয়ার লাভকে উল্টাতে পারে না বরং একটি নিষ্পত্তিমূলক পরাজয় ঘটাতে পারে যা বছরের পর বছর ধরে ইউরোপে রাশিয়ার উচ্চাকাঙ্খাকে বাধা দিতে পারে, বিশ্লেষক এবং মার্কিন ও পশ্চিমা কর্মকর্তারা বলছেন।

রাশিয়ানরা নতুন অস্ত্র আসার আগে এবং তাদের নিজেদের ক্লান্ত সৈন্য এবং ক্ষয়প্রাপ্ত বর্ম তাদের অগ্রসর হওয়ার ক্ষমতার সীমাতে পৌঁছানোর আগে লাভ করার জন্য চাপের মধ্যে রয়েছে। রাশিয়ান সামরিক বাহিনী তাদের বাহিনীকে পুনরুজ্জীবিত করার প্রক্রিয়ার মধ্যে রয়েছে, যুদ্ধের প্রথম সপ্তাহগুলিতে ধ্বংস বা ধ্বংস হওয়া ইউনিটগুলিকে পুনরুজ্জীবিত করছে এবং ধীরে ধীরে কিন্তু স্থিরভাবে তাদের পূর্ব ইউক্রেনে নিয়ে যাচ্ছে। রাশিয়ানরা জ্বালানি ও গোলাবারুদ স্টোরেজ ডিপো এবং অস্ত্র সরবরাহের জন্য ব্যবহৃত রেললাইনের মতো গুরুত্বপূর্ণ অবকাঠামোর বিরুদ্ধেও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা বাড়াচ্ছে। ইউক্রেন জুড়ে জ্বালানীর ক্রমবর্ধমান ঘাটতি সামনের লাইনে জ্বালানি সরবরাহ বজায় রাখার ক্ষমতা নিয়ে উদ্বেগকে উদ্বেলিত করেছে।

জেলেনস্কি যুদ্ধ চেয়েছিলেন, জানালেন ব্রাজিলের সাবেক প্রেসিডেন্ট : ব্রাজিলের সাবেক প্রেসিডেন্ট লুইজ ইনাসিও লুলা দা সিলভা বলেছেন, ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি তার দেশকে যুদ্ধে নিক্ষেপ করতে আগ্রহী ছিলেন। ‘তিনি যুদ্ধ চেয়েছিলেন। যদি তিনি যুদ্ধ না চাইতেন, তবে তিনি আরও একটু আলোচনা করতেন,’ দা সিলভা, যিনি ২০০৩-২০১০ সাল পর্যন্ত প্রেসিডেন্ট হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন, বুধবার প্রকাশিত টাইম ম্যাগাজিনকে দেয়া একটি সাক্ষাতকারে এ কথা বলেছিলেন। দা সিলভা বলেন, পশ্চিমারা জেলেনস্কিকে উৎসাহিত করছে। ‘তিনি মনে করেন তিনি আপনার কেকের চেরি। আমাদের একটি গুরুতর কথোপকথন করা উচিত, ঠিক আছে, আপনি একজন ভালো কৌতুক অভিনেতা ছিলেন। তবে আসুন আমরা আপনাকে টিভিতে দেখানোর জন্য যুদ্ধ না করি,’ সাবেক প্রেসিডেন্ট বলেছিলেন।

ইউক্রেনের সেনাদের প্রশিক্ষণ কর্মসূচি জোরদার করেছে আমেরিকা : মার্কিন নির্মিত অস্ত্রের সঙ্গে অনেক বেশি পরিচিত করে তোলার জন্য ইউক্রেনের সেনা সদস্যদেরকে প্রশিক্ষণ দেয়ার কর্মসূচি জোরদার করেছে আমেরিকা। মার্কিন সংবাদমাধ্যম ‘দ্য হিল’ বৃহস্পতিবার পেন্টাগনের কয়েকজন কর্মকর্তার বরাত দিয়ে এই তথ্য তুলে ধরেছে। তবে পত্রিকাটি পেন্টাগনের কর্মকর্তাদের নাম প্রকাশ করে নি। দ্য হিলের তথ্য অনুযায়ী, ইউক্রেনের কয়েকশ সেনা বর্তমানে ইউরোপের কয়েকটি দেশে মার্কিন প্রশিক্ষকদের অধীনে প্রশিক্ষণ নিচ্ছে যেখানে মার্কিন নির্মিত আর্টিলারি সিস্টেম, ড্রোন এবং রাডারের কাছে পরিচিত করে তোলা হচ্ছে।

ইউক্রেনের সঙ্কট ন্যাটোর দুর্বলতা প্রকাশ করেছে : ইউক্রেনে ন্যাটো দেশগুলো দ্বারা সরবরাহ করা বহুল আলোচিত জ্যাভলিন এবং এনএলএডব্লিউ ম্যান-পোর্টেবল অ্যান্টি-ট্যাঙ্ক মিসাইল সিস্টেমগুলি যুদ্ধক্ষেত্রে খারাপ পারফরম্যান্স করেছে এবং অসংখ্য বিপর্যয়ের সৃষ্টি করেছে। বৃহস্পতিবার রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় দ্বারা প্রকাশিত একটি ভিডিওতে একজন ইউক্রেনীয় বন্দী এ তথ্য জানিয়েচেন। ‘মার্কিন সামরিক সহায়তা, আমার মনে, অতিমাত্রায় উচ্চারিত হয়েছে কারণ বহুল আলোচিত এটিডব্লিউএস (অ্যান্টি-ট্যাঙ্ক উয়েপন সিস্টেম) এবং গ্রেনেড লঞ্চার, তাদের জ্যাভেলিন এবং এনএলএডব্লিউ যেগুলো ব্যাপকভাবে প্রচার করা হয়েছিল, অনুশীলনে তাদের মূল্য প্রমাণ করতে ব্যর্থ হয়েছে। তারা বিপর্যয়ের সম্মুখীন হয়েছে, সাধারণত চারটি অস্ত্রের মধ্যে একটি দিয়ে গুলি চালানো হয় এবং লক্ষ্যবস্তু থেকে ৫০ মিটার দূরে ডাড বা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে,’ ইউক্রেনীয় যুদ্ধবন্দী বলেছেন।

কিছু অস্ত্র ব্যাচে অ্যান্টি-আরমার সিস্টেম রয়েছে যার সার্ভিস লাইফ মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে এবং স্টোরেজ ব্যাটারি ব্যয় করেছে, তিনি যোগ করেছেন। ‘কিছু অস্ত্রের মেয়াদোত্তীর্ণ পরিষেবা জীবন সহ স্টোরেজ ব্যাটারি ছিল যখন বেশিরভাগ ব্যাচের মেয়াদ শেষ হওয়ার তারিখের বছরগুলি নির্দেশ করে,’ ইউক্রেনীয় যুদ্ধবন্দী প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, ইউক্রেনীয় সেনাদের ন্যাটোর অস্ত্র-বিরোধী অস্ত্র ব্যবস্থা চালানো শেখার ভিত্তি প্রমাণ করার জন্য প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছিল।

রাশিয়ার বিরুদ্ধে পশ্চিমারা বাকি বিশ্বকে পাশে পাচ্ছে না : রাশিয়ার উপর নিষেধাজ্ঞা এখনও সীমাবদ্ধ রয়েছে ন্যাটো, ইইউ দেশ এবং প্রশান্ত মহাসাগরে আমেরিকার মিত্রদের মধ্যে। বিশ্বের জনসংখ্যার অর্ধেকেরও বেশি প্রতিনিধিত্বকারী দেশগুলিই জাতিসংঘে রাশিয়ার আগ্রাসনের নিন্দা করতে অস্বীকার করেছে। বেইজিং রাষ্ট্রীয় মিডিয়া এবং যুদ্ধের জন্য ন্যাটোকে দোষারোপ করে সরকারী বিবৃতির মাধ্যমে অর্থনৈতিকভাবে এবং আনুষ্ঠানিকভাবে মস্কোর পিছনে দাঁড়িয়েছে। এদিকে পশ্চিমা আপত্তি সত্ত্বেও সউদী আরবসহ বড় তেল উৎপাদনকারীরা রাশিয়ার সঙ্গে একটি উৎপাদন চুক্তির পাশে দাঁড়িয়েছে।

রাশিয়ান অস্ত্র, তেল এবং কৃষি পণ্যের গ্রাহকদের পুতিনের ক্রোধ এড়াতে স্পষ্ট প্রণোদনা রয়েছে, তবে এটি গল্পের শুধুমাত্র অংশ। বৈশ্বিক দক্ষিণে অনেকেই পশ্চিমা প্রতিক্রিয়াকে কপট হিসাবে দেখেন। যখন ইউরোপীয় দেশগুলো ইউক্রেনে বিলিয়ন বিলিয়ন সাহায্য পাঠাচ্ছে এবং ইউক্রেনীয় শরণার্থীদের উন্মুক্ত অস্ত্র দিয়ে স্বাগত জানাচ্ছে, অন্যান্য সংঘাত এবং অন্যান্য শরণার্থীদের প্রতিক্রিয়া সম্পূর্ণ ভিন্ন ছিল। এদিকে, এমন সময়ে যখন বিশ্ব ভূ-রাজনৈতিক ব্লকে ভেঙ্গে যাচ্ছে- একদিকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং অন্যদিকে চীন এবং রাশিয়া, অনেক নেতাই বরং ‘মাঝখানে আটকে থাকার চেয়ে পাশে থাকবেন,’ ডেভিড মিলিব্যান্ড বলেছেন, যিনি ইন্টারন্যাশনাল রেসকিউ কমিটির সিইও এবং সাবেক ব্রিটিশ পররাষ্ট্র সচিব। সূত্র : এক্সিওস, বিবিসি, ডেইলি সাবাহ, তাস, মিরর, ওয়াশিংটন পোস্ট।



 

Show all comments
  • Md Ali ৭ মে, ২০২২, ৯:০৪ এএম says : 0
    দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধোত্তর বিশ্বব্যবস্থায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একচেটিয়া ক্ষমতার ফলে আফ্রিকা, এশিয়া ও মধ্যপ্রাচ্যের যে ক্ষতি হয়েছে তা অপূরণীয়।এজন্য বিশ্বব্যাবস্তায় ক্ষমতার ভারসাম্য রক্ষার্থে ইউক্রেনকে উস্কানি না দিয়ে রাশিয়ার সকল যৌক্তিক দাবি মেনে নিয়ে শান্তিপূর্ণ সমাধান করা উচিৎ।
    Total Reply(0) Reply
  • Ikhtiar Uddin ৭ মে, ২০২২, ৯:০৪ এএম says : 0
    America is the biggest wars agent in the world.
    Total Reply(0) Reply
  • F. S. Tawrat ৭ মে, ২০২২, ৯:০৫ এএম says : 0
    যত রকম ভুয়া তথ্য দেয়। মারতে মারতে ইউক্রেনকে ধংস করে দিচ্ছে। আর আমেরিকা এসব তথ্য দিয়ে ইউক্রেনকে যুদ্ধ থেকে বের হতে দিচ্ছে না। আমেরিকা সিস্টেমে ধংস করছে ইউক্রেন কে।
    Total Reply(0) Reply
  • Sakibul Hasan ৭ মে, ২০২২, ৯:০৫ এএম says : 0
    মার্কিন ইন্টেলিজেন্স ইউক্রেনের কতটা কাজে আসে সেটাই দেখার বিষয়। মিশন কমপ্লিট করতে হবে ইউক্রেনকেই। এফএসবিকে ফাঁকি দেয়া এতোটা সহজ হবে না।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: যুক্তরাষ্ট্রের


আরও
আরও পড়ুন