Inqilab Logo

বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ১৫ আষাঢ় ১৪২৯, ২৮ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

‘প্রতিদ্বন্দ্বী’র হাত ধরে এ বার টুইটার সামলাতে আসছেন পরাগের স্ত্রী?

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ মে, ২০২২, ৩:৩৩ পিএম

ইলন মাস্কের মালিকানাধীন মাইক্রোব্লগিং সংস্থা টুইটারে যোগ দিতে পারে অর্থলগ্নি সংস্থা অ্যান্ড্রেসেন হোরোভিটজ। তবে যদি তা হয় তা হল এই সংস্থার সহ-প্রতিষ্ঠাতা মার্ক অ্যান্ড্রিসেনের জন্য পরিস্থিতি কঠিন হয়ে দাঁড়াতে পারে।

কারণ টুইটারের প্রতিদ্বন্দ্বী সংস্থা মেটা-র পরিচালন পর্ষদেরও অন্যতম সদস্য মার্ক। মেটা-তেও অর্থলগ্নি করেছে তার সংস্থা। এর ফলে এখন যদি তাকে টুইটারের জন্যও কাজ করতে হয় তা হলে অর্ম্তদ্বন্দ্ব তৈরি হতে পারে বলেও মনে করা হচ্ছে। এ ক্ষেত্রে টুইটার সামলানোর দায়িত্ব পেতে পারেন, খোদ টুইটারের সিইও পরাগ আগরওয়ালের স্ত্রী বিনীতা অগ্রবাল। আন্দ্রেসেন সংস্থার এক জন গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার হওয়ার সুবাদেই বিনীতা এই দায়িত্ব পেতে পারেন।

এর আগে বিনীতা অনেক বায়োটেক এবং মেডিক্যাল কোম্পানিতে বিনিয়োগ করেছেন। যদিও ইলন তার স্বামী পরাগকে সিইও পদ থেকে সরাতে পারেন বলে জল্পনা তৈরি হয়েছে। এ ক্ষেত্রে যদি পরাগকে সরানো হয় এবং অ্যান্ড্রেসেন সংস্থার তরফ থেকে বিনীতা টুইটারের দায়িত্ব সামলাতে আসেন তা হলে জটিলতা আরও বাড়তে পারে বলেও মনে করা হচ্ছে। মাস্ক আগেই বলেছিলেন, টুইটারের নেতৃত্বের উপর তার বিশ্বাস নেই। তার পরই জল্পনা তৈরি হয় যে, পদ খোয়াতে পারেন পরাগ। এমনকি, ইলন নিজেই কিছু দিন টুইটারের সিইও পদে বসতে পারেন বলেও জল্পনা তৈরি হয়েছে।

প্রসঙ্গত, আন্দ্রেসেন হোরোভিটজের তরফ থেকে বৃহস্পতিবার ঘোষণা করা হয় যে, এই সংস্থা টুইটারে তিন হাজার ৭৮ কোটি টাকা বিনিয়োগ করতে রাজি। পাশাপাশি মেটা-ঘনিষ্ঠ হওয়া সত্ত্বেও, আন্দ্রেসেন সংস্থার সহ-প্রতিষ্ঠাতা বেন হরোভিটজ একটি টুইট-বার্তায় জানান, ইলন সম্ভবত বিশ্বের একমাত্র ব্যক্তি যার টুইটারের সমস্যা সমাধান করার সাহস, বুদ্ধিমত্তা এবং দক্ষতা রয়েছে। সূত্র: রয়টার্স।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন