Inqilab Logo

শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ১৭ আষাঢ় ১৪২৯, ০১ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

ইসরায়েলের স্বাধীনতা দিবসে কুঠার হামলার অভিযোগে ২ ফিলিস্তিনি আটক

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৯ মে, ২০২২, ১০:৩১ এএম

গত ৫ মে ইসলায়েলের মধ্যাঞ্চলীয় শহর এলাদে কুঠার হামলা চালিয়ে ৩ পথচারীকে হত্যা ও আরও ৪ জনকে গুরুতর আহত করার অভিযোগে দুই ফিলিস্তিনি তরুণকে আটক করেছে ইসরায়েলি পুলিশ। তাদের নাম আসাদ ইউসেফ আল রিফাই (১৯) এবং সুভি ইমাদ স্বেইহাত (২০)।

ইসরায়েলের পুলিশ, সেনাবাহিনী ও দেশটির অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা বাহিনী রোববার এক যৌথ বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, ‘সম্প্রতি ইলাদ শহরে ভয়ঙ্কর হামলা চালিয়ে ৩ জন বেসামরিক ব্যক্তিকে হত্যাকারী দুই ফিলিস্তিনিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। রোববার শহরের বাইরের একটি পরিত্যাক্ত খনি থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।’
গত ৫ মে ছিল ইসরায়েলের স্বাধীনতা দিবস। ওই দিন রাতে এলাদের একটি জনাকীর্ণ সড়কে কুঠার ও ছুরি হাতে হামলা করেন আসাদ ইউসেফ আল রিফাই এবং সুভি ইমাদ স্বেইহাত। তাদের হামলায় মোট সাতজন হতাহত হন।
পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আসাদ ইউসেফ ও সুভি ইমাদ— দু’জনই ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীর অঞ্চলের জেনিন শহরের বাসিন্দা। ইসরায়েলের স্বাধীনতা দিবসে হামলার উদ্দেশে তারা এলাদে প্রবেশ করেছিলেন। তবে, এই দু’জন কোনো সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর সঙ্গে যুক্ত কিনা তা এখনও স্পষ্ট হয়নি।
ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস ও ভয়াবহ এই হামলার নিন্দা জানিয়েছেন। তার রাজনৈতিক দল ফাতাহের পক্ষ থেকে দেওয়া এক বিবৃতিতে এ সম্পর্কে বলা হয়, বেসামরিক লোকজনের ওপর হামলা ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনের মধ্যকার সম্পর্ককে আরও তলানির দিকে ঠেলে দেবে।
অন্যদিকে, ফাতাহের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী ও বৈরী পক্ষ এবং ফিলিস্তিনের গাজা ভূখণ্ডের নিয়ন্ত্রণকারী দল হামাস এ হামলার প্রশংসা করলেও সরাসরি দায় স্বীকার করেনি।
১৯৪৮ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় ইসরায়েল। যে ভূখণ্ডটি বর্তমানে ইসরায়েল নামে পরিচিত, সেখানে সেই সময় অন্তত সাড়ে সাত লাখ ফিলিস্তিনি পরিবারের বসবাস ছিল। এসব পরিবারকে নির্মমভাবে উচ্ছেদ করা হয় তাদের বসতি ও গ্রামসমূহ থেকে।
ইসরায়েলের প্রধান বাণিজ্যিক ও অর্থনৈতিক কেন্দ্র তেল আবিবের নিকটবর্তী এলাদ শহরটি রক্ষণশীল ও গোঁড়া ইহুদি অধ্যুষিত শহর বলে পরিচিত। ১৯৪৮ সালে ফিলিস্তিনি গ্রাম আল মুজাইরিয়াহ ধ্বংস করে তার ওপর এই শহরটি প্রতিষ্ঠা করা হয়। সূত্র: আলজাজিরা



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ