Inqilab Logo

শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ১৭ আষাঢ় ১৪২৯, ০১ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

ভারতীয় বিএসএফের অস্ত্র ছিনতাই, ভোমরা স্থল বন্দরে কয়েক ঘন্টা আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম বন্ধ

সাতক্ষীরা জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১০ মে, ২০২২, ৫:৩৫ পিএম

ভারতীয় সিমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের অস্ত্র ছিনতাই হয়েছে। এ ঘটনায় ঘোজাডাঙ্গায়

বিএসএফের বাঁধার মুখে সকাল থেকে বন্ধ হয়ে যায় সাতক্ষীরার ভোমরা স্থল বন্দরে সব ধরণের
আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম। পরে পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হলে দুপুর ২টার দিকে আবারো
আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম শুরু হয়। মঙ্গলবার (১০ মে) ভোররাতে ভোমরা বন্দরের বিপরীতে ভারতের বশিরহাট মহাকুমার ঘোজাডাঙ্গা এলাকায় এই অস্ত্র ছিনিয়ে নেওয়ার
ঘটনা ঘটে। ভারতীয় বিএসএফ দাবি করছে, তাদের একটি অস্ত্র হারিয়ে গেছে। অস্ত্র উদ্ধারে
বাংলাদেশ সিমান্তের বিজিবির সহযোগিতা চেয়েছেন তারা।
ভোমরা বন্দরের সহকারি কমিশনার আমির আল মামুন জানান, সকাল থেকেই দুপুর পর্যন্ত সব ধরণের
আমদানি রপ্তানি-কার্যক্রম বন্ধ ছিল। এই সময়ের মধ্যে একটি আমদানিকৃত পন্যবাহী ট্রাকও
দেশে প্রবেশ করেনি। ভারতীয় বিএসএফ ভোমরা বন্দরের বিপরীতে ঘোজাডাঙ্গা সিমান্তের গেট
বন্ধ করে দিয়ে সেখানে অবস্থান নেওয়ার কারনে এই অচালাবস্থার সৃষ্টি হয়। বিএসএফ জানিয়েছে,
তাদের অস্ত্র হারিয়ে গেছে। সেটি উদ্ধার না হওয়া পর্যন্ত সব ধরণের কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। কিন্তু
বেলা ২টার পর থেকে ভারত থেকে পন্যবাহী ট্রাক বন্দর দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে শুরু করেছে।
ভোমরা বন্দরের ওপারে বিএসএফের বাঁধার মূখে দুপুর পর্যন্ত বাংলাদেশে প্রবেশের অপেক্ষায়
আটকা পড়েছিল শতাধিক পন্যবাহি ট্রাক।
সাতক্ষীরা ৩৩ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্ণেল আল মাহমুদ জানান, বিএসএফ দাবি করেছে
তাদের একটি অস্ত্র হারিয়ে গেছে। এই ধরণের একটা তথ্য আমাদের দিয়েছে। বর্তমানে
বিএসএফ ওদের বর্ডারে অপারেশন চালাচ্ছে। আমাদের এখানেও অপারেশন চালানোর অনুরোধ
করেছে। কিছু লোক বাংলাদেশ থেকে সেখানে গিয়েছে এমন তথ্য তাদের কাছে থাকতে পারে।
তবে, আমাদের সেটি দেয়নি। তিনি আরো বলেন, আমাদের সীমান্ত এলাকায় আমরা অস্ত্রটি উদ্ধারে
চেষ্টা করছি। ওপার থেকে ছিনিয়ে নিয়ে আমাদের বাংলাদেশের মধ্যেও চলে আসতে পারে। তিনি আরো বলেন,
অস্ত্রটা যে বাংলাদেশের লোক নিয়েছে এটার কোন প্রমাণিত তথ্য এখনো পাওয়া যায়নি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ