Inqilab Logo

শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ১৮ আষাঢ় ১৪২৯, ০২ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

সাংবাদিক শিরিন হত্যা বিশ্বকে নাড়া দিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের নিন্দা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ মে, ২০২২, ১২:০১ এএম

ফিলিস্তিনে আল-জাজিরার সাংবাদিক শিরিন আবু আকলেহ হত্যা ঘটনা নাড়িয়ে দিয়েছে বিশ্বকে। আল-জাজিরা বলছে, তাকে ঠান্ডা মাথায় হত্যা করেছে ইসরাইলের সেনারা। সারা বিশ্বের মিডিয়া, সাংবাদিকদের অধিকার বিষয়ক গ্রæপ, বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠন, বিশ্ব নেতারা, বিভিন্ন দেশ, জাতিসংঘ সহ সব শ্রেণির মানুষ এই নৃশংস হত্যার নিন্দা জানাচ্ছে। হোয়াইট হাউজ থেকে নিন্দা জানানো হয়েছে। এ ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত দাবি করেছেন হোয়াইট হাউজের প্রেস সেক্রেটারি কারিন জ্যাঁ পিয়েরে। তিনি এই হত্যার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন। অন্যদিকে কংগ্রেসওম্যান রাশিয়া তৈয়ব যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি পরিষদে ‘মোমেন্ট অব সাইলেন্স’ বা নীরবতা পালনের আহŸান জানিয়েছেন। তিনি প্রতিনিধি পরিষদে বক্তব্য দেয়ার সময় কান্না থামিয়ে রাখতে এক রকম লড়াই করেন। এমন অবস্থায় রাশিয়া তৈয়ব বলেন, সাংবাদিক শিরিন আবু আকলেহ’কে হত্যার খবরে মানুষের ঘুম ভেঙেছে। গত ২০ বছরের ওপরে এই ফিলিস্তিনি মার্কিন সাংবাদিককে দেখে আসছি। তার মৃত্যুর খবরে আমাদের নীরবতা পালন করা উচিত। ওদিকে বিবৃতিতে কারিন বলেন, হত্যার কারণ নির্ধারণের জন্য পূর্ণাঙ্গ তদন্ত দাবি করি আমরা। এই ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত ও এর জন্য দায়ীদের বিরুদ্ধে বিচার দাবি করছি। সাংবাদিকরা যাতে সহিংসতার ভীতিহীন, জীবনের প্রতি হুমকিহীন এবং অন্যায় আটক থেকে সুরক্ষিত থাকতে পারেন সে জন্য আমরা মিডিয়ার স্বাধীনতা ও সাংবাদিকদের সুরক্ষা সমর্থন করি। ওদিকে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এই হত্যার অবিলম্বে, পূর্ণাঙ্গ তদন্ত দাবি করেছে। মুখপাত্র নেড প্রাইস এই হত্যার নিন্দা জানিয়েছেন। বলেছেন, যারা এর জন্য দায়ী অবশ্যই তাদের বিচার করতে হবে। একই দাবি জানিয়েছেন জাতিসংঘে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত লিন্ডা থমাস গ্রিনফিল্ড। সাংবাদিকদের তিনি বলেন, এ খবর বাস্তবেই ভীতিকর। তিনি (শিরিন) ছিলেন খুবই সম্মানীত। তিনি দায়িত্ব পালন করছিলেন, যেমন প্রতিটি দিন আপনারা করেন। তার পরিবার, বন্ধুবান্ধব ও সহকর্মীদের প্রতি আমার সমবেদনা। ওদিকে নিন্দা জানিয়েছে সাংবাদিকদের অধিকার বিষয়ক আন্তর্জাতিক সংগঠন কমিটি টু প্রটেক্ট জার্নালিস্টস (সিপিজে)। তারা কর্তৃপক্ষের প্রতি দ্রæত, অবিলম্বে এবং স্বচ্ছ তদন্ত দাবি করেছে। সিপিজের মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আফ্রিকা কর্মসূচি বিষয়ক সমন্বয়ক শেরিফ মানসুর বলেছেন, শিরিন ফিলিস্তিনি বংশোদ্ভ‚ত মার্কিন নাগরিক। তিনি পশ্চিমতীরে দায়িত্ব পালন করছিলেন। এ সময় সুপরিচিত এই সাংবাদিককে হত্যা করা হয়েছে। প্যালেস্টাইন টিভির প্রতিনিধি ক্রিস্টিন রিনাবি বলেছেন, ১২ বছরের বেশি আমি জেরুজালেমে সাংবাদিকতা করছি। এ সময়ে আমি শিরিনের কাছ থেকে শুধু সাংবাদিকতা নয়, সব কিছু শিখেছি। আমরা শিরিনকে হারিয়েছি। কারণ, ফিলিস্তিনিদের হত্যা করা একেবারে সহজ ব্যাপার হয়ে গেছে। এই বেদনা প্রকাশ করার কোনো ভাষা নেই। এখানে সাংবাদিকদের কোনো নিরাপত্তা নেই। আল-জাজিরা।



 

Show all comments
  • নাসির ১৩ মে, ২০২২, ১:৪২ এএম says : 0
    সাংবাদিকদের কোনো দেশেই নিরাপত্তা নেই।
    Total Reply(0) Reply
  • নাসির ১৩ মে, ২০২২, ১:৪৩ এএম says : 0
    এখন সবচেয়ে খারাপ একটি পেশা হয়ে গেছে সাংবাদিক । যাদের কোনো নিরাপত্তা নেই। আমরা দ্রুত এ হত্যার বিচার চাই
    Total Reply(0) Reply
  • আহমদ ১৩ মে, ২০২২, ১:৪৬ এএম says : 0
    বিশ্বে প্রতি বছর অনেক সাংবাদিক মারা যাচ্ছে। অথচ এ হত্যাগুলোর কোনো বিচার হচ্ছে না। সাংবাদিকরা কাজ করে দেশে ও জাতির জন্য। আজ তাদের কোনো নিরাপদ নেই। আমরা সাংবাদিকদের কাজ ও পেশার নিরাপত্তা চাই
    Total Reply(0) Reply
  • shirajumazum ১৩ মে, ২০২২, ৮:৩৮ এএম says : 0
    Take initiatives is better than censure. who will be say why today the situation is very measurable in the world? communalist is the causes for this. once we all are the flowers of same garden but today we all forgot the past. now we are playing with fire. other wise could not see such unwanted death out of unjust. still have time be sincere and take action please
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ