Inqilab Logo

রোববার, ২৬ জুন ২০২২, ১২ আষাঢ় ১৪২৯, ২৫ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

রাজশাহীর বাজারে আম বিক্রি শুরু

গুঁটি আমের মণ ১০০০-১৪০০, গোপালভোগ ১৬০০ টাকা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৪ মে, ২০২২, ১২:৩৩ এএম

 

শুরু হলো মধু মাস। গতকাল থেকে বাজারে পাওয়া যাচ্ছে রাজশাহীর আম। তবে আমচাষীরা বলছেন, বাজার জমে উঠতে আরও সপ্তাহখানেক সময় লাগবে।
এর আগে গত বৃহস্পতিবার অপরিপক্ক আম বিক্রি ঠেকাতে আম সংগ্রহের সময়সীমা নির্ধারণ করে দিয়েছে জেলা প্রশাসন। নির্ধারিত সময়সীমা অনুযায়ী শুক্রবার থেকে গুটি আম সংগ্রহ শুরুর কথা থাকলেও বাজারে অল্প পরিমাণে গোপালভোগও পাওয়া যাচ্ছে।
রাজশাহী, চাপাইনবাবগঞ্জ ও নওগাঁর আম চাষিরা জানান, স্থানীয় প্রশাসনের অনুমতি নিয়েই গাছ থেকে পাকা গোপালভোগ আম তোলা হয়েছে। রাজশাহীতে আমের সবচেয়ে বড় মোকাম বানেশ্বর হাটে গিয়ে দেখা যায়, আচার প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানগুলো মণপ্রতি ৮০০ থেকে ৮৫০ টাকা দরে গুটি আম কিনছেন; অন্যদিকে পাইকাররা কাচা আম কিনছেন মণপ্রতি ১০০০ থেকে ১৪০০ টাকা দরে।
বাজার ঘুরে অল্প পরিমাণ গোপালভোগও দেখা যায়। প্রতিমন গোপালভোগ আম বিক্রি হচ্ছে ১২০০ থেকে ১৬০০ টাকায়। আমচাষীরা বলছেন, এই বছর রাজশাহীতে আমের ফলন অন্যান্য বছরের তুলনায় কম।

বানেশ্বরের আমের আড়তদার আব্দুর রাজ্জাক সাংবাদিকদের বলেন, এ বছর গাছে গাছে আমের মুকুল কম এসেছে, তীব্র খরার কারণে গুটিও ঝরে পড়েছে অনেক। তার ওপর পোকার আক্রমণে অনেক গাছেই আমের ফলন কম হয়েছে। ফলে কৃষকদের লোকসানের মুখে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে বলে জানান তিনি।
রাজধানী জেলা প্রশাসকের বেঁধে দেয়া সময় অনুযায়ী জাতভেদে গুটি আম ১৩ মে, গোপালভোগ ২০ মে, লক্ষ্মণভোগ বা লখনা এবং রাণী পছন্দ ২৫ মে, হিমসাগর বা খিরসাপাত ২৮ মে, ল্যাংড়া ৬ জুন, আম্ররুপালী ও ফজলি ১৫ জুন, আশনা ও বারী-৪ আম ১০ জুলাই এবং ১৫ জুলাই গৌড়মতি আম সংগ্রহ ও বাজারজাতকরণ শুরু হবে।

জেলা প্রশাসন জানিয়েছেন, বাজারে যেন অপরিপক্ব আম না যায় সেজন্য ফল গবেষক, কৃষি বিভাগের কর্মকর্তা ও চাষিদের সঙ্গে আলোচনা করেই আম নামানোর সাম্ভাব্য তারিখ ঠিক করা হয়েছে। নির্ধারিত সময়ের আগে অপরিপক্ক আম নামালে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। রাজশাহী জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোজদার হোসেন জানান, কিছু এলাকায় চলতি মৌসুমে গাছে আম কম থাকলেও এবারো লক্ষ্যমাত্রা অর্জন হবে। কারণ গাছে আম কম থাকলে তা বড় হয়। গাছে আম কম থাকলে ঝরে পড়েও কম। সভায় কৃষি বিভাগের কর্মকর্তারা ছাড়াও ফল গবেষক, আম চাষি, ব্যবসায়ী ও কুরিয়ার সার্ভিসের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ, রাজশাহী মহানগর এবং ৯ উপজেলায় এ বছর ১৮ হাজার ৫১৫ হেক্টর জমিতে আমবাগান আছে। আম উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ২ লাখ ১৪ হাজার ৬৭৬ মেট্রিক টন। হেক্টরপ্রতি উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ১১ দশমিক ৫৯ মেট্রিক টন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রাজশাহীর বাজারে আম বিক্রি
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ