Inqilab Logo

শুক্রবার, ১৯ আগস্ট ২০২২, ০৪ ভাদ্র ১৪২৯, ২০ মুহাররম ১৪৪৪

ইউক্রেনের সঙ্কটের সমাধান খুঁজতে পুতিনকে অনুরোধ শলৎজের

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৪ মে, ২০২২, ৫:০০ পিএম | আপডেট : ৯:৪৭ পিএম, ১৪ মে, ২০২২

 

 

জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ শলৎজ শুক্রবার রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সাথে ফোনালাপের সময় দ্রুততম যুদ্ধবিরতি এবং ইউক্রেনের পরিস্থিতির একটি কূটনৈতিক সমাধানের জন্য অনুসন্ধানের আহ্বান জানান। পাশাপাশি বিশ্বব্যাপী ক্রমবর্ধমান খাদ্য সঙ্কটের জন্য মস্কোর দায়বদ্ধতার দিকে ইঙ্গিত করেছেন তিনি। জার্মান মন্ত্রিসভার মুখপাত্র স্টেফেন হেবেস্ট্রেট সাংবাদিকদের একথা জানিয়েছেন।

‘গুরুতর সামরিক পরিস্থিতি এবং ইউক্রেনের যুদ্ধের ফলাফলের আলোকে, বিশেষ করে মারিউপোলে, রাশিয়ান প্রেসিডেন্টের সাথে কথোপকথনে, চ্যান্সেলর একটি যুদ্ধবিরতি অর্জন, মানবিক পরিস্থিতির উন্নতি এবং যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সংঘাতের কূটনৈতিক সমাধানের জন্য অগ্রগতির উপর জোর দিয়েছিলেন,’ মুখপাত্র উল্লেখ করেছেন।

‘চ্যান্সেলর এবং রাশিয়ান প্রেসিডেন্ট খাদ্য পণ্যগুলির সাথে বৈশ্বিক পরিস্থিতি নিয়েও আলোচনা করেছেন যা রাশিয়ার আক্রমণাত্মক যুদ্ধের কারণে বিশেষ করে খারাপ হয়েছে,’ তিনি বলেছিলেন, ‘চ্যান্সেলর পুনর্ব্যক্ত করেছেন যে, রাশিয়া এই বিষয়ে একটি বিশেষ দায়িত্ব বহন করে।’

মুখপাত্র আরও বলেছেন যে, চ্যান্সেলর ‘দ্ব্যর্থহীনভাবে ইউক্রেনে নাৎসিবাদ ছড়িয়ে পড়েছে এমন অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছেন।’ তার মতে, ইউক্রেনে সংঘাত থামানোর প্রচেষ্টার বিষয়ে কথোপকথন ৭৫ মিনিট স্থায়ী হয়েছিল। ‘১১ মে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কির সাথে চ্যান্সেলরের ফোনালাপের পরে কথোপকথনটি হয়েছিল,’ তিনি যোগ করেছেন।

ক্রেমলিন প্রেস সার্ভিস শুক্রবারের আগে রিপোর্ট করেছে, কথোপকথনটি জার্মান পক্ষের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হয়েছিল, এর উপসংহারে, পুতিন এবং শোলৎজ বিভিন্ন চ্যানেলের মাধ্যমে যোগাযোগের সময় আলোচনা চালিয়ে যেতে সম্মত হন। ইউক্রেনে রাশিয়ার বিশেষ সামরিক অভিযান শুরু হওয়ার পর থেকে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট এবং জার্মান চ্যান্সেলর ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকবার ফোনে কথোপকথন করেছেন, প্রতিবারই এ বিষয়ে আলোচনা করেছেন। সূত্র: তাস।



 

Show all comments
  • Krishna Dhan Banik +91 ১৫ মে, ২০২২, ১২:৩৮ পিএম says : 0
    ইউরোপ আমেরিকার কথা শুনে চললেই মহা বিপদে পড়বে। কারন রাশিয়া পৃথিবীর মধ্যে সবচেয়ে বেশি গেস ও তেল উৎপাদনকারী দেশ। তেল এবং গেস ছাড়া পুরা পৃথিবী অন্ধকার। তাই রাশিয়ার সাথে হাত মিলিয়ে রাখলে ভালো হবে। আমেরিকা একটি বাজে দেশ। আমেরিকার কথা শুনলে না খেয়ে মরতে হবে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ