Inqilab Logo

শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ১৮ আষাঢ় ১৪২৯, ০২ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

বিপ্লবের পদত্যাগ ত্রিপুরার নতুন মুখ্যমন্ত্রী মানিক সাহা

ঘোষণা হতেই হাতাহাতিতে জড়ান মন্ত্রী-বিধায়করা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৫ মে, ২০২২, ১২:০০ এএম

ইস্তফা দিয়েছেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব। গতকাল শনিবার বিকেল চারটার পর রাজ্যপালের কাছে গিয়ে ইস্তফা দিয়ে আসেন ত্রিপুরার বিজেপি দলীয় মুখ্যমন্ত্রী। এর পরেই নানা জল্পনা তৈরি হয়েছে আগরতলায়। প্রথম প্রশ্ন, কেন ইস্তফা দিলেন বিপ্লব?

এদিকে ত্রিপুরার নতুন মুখ্যমন্ত্রীর নাম ঘোষণা হতেই দেখা দেয় উত্তেজনা। বিপ্লব দেব মানিক সাহাকে উত্তরীয় পরানোর সময়ে হইহট্টগোল বাধে। বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের ভূমিকায় অসন্তুষ্ট মন্ত্রী রামপ্রসাদ পাল। হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন ত্রিপুরার মন্ত্রী ও কয়েকজন বিধায়ক। নিরাপত্তারক্ষীরা দু’পক্ষকে সরিয়ে দেয়।
বিজেপি সূত্রে জানা গেছে, নিজের ইচ্ছায় ইস্তফা দেননি বিপ্লব। কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের নির্দেশেই তিনি রাজ্যপালকে পদত্যাগপত্র পাঠিয়েছেন। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই বিজেপি পরিষদীয় দলের বৈঠক বসে। মনে করা হচ্ছে, কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব ইতোমধ্যেই পরের মুখ্যমন্ত্রীর নাম স্থির করে ফেলেছেন। পরিষদীয় দল সেই নামে সিলমোহর দেবে।
বিপ্লব মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পরে অনেক বারই বিজেপির অস্বস্তি বাড়িয়েছেন। তার নানা মন্তব্য নিয়ে বিভিন্ন সময় বিতর্ক তৈরি হয়েছে। দলের অস্বস্তি বাড়িয়ে এক বার তিনি মুখ্যমন্ত্রীর পদে থাকবেন কি না, তা ঠিক করতে গণভোট দরকার বলেও মন্তব্য করেছিলেন। সেই সময়েও বেজায় চটেন দলের নেতৃত্ব। কিন্তু এবার কেন তাঁকে আচমকা সরিয়ে দেওয়া হল, তার স্পষ্ট কারণ জানা যায়নি।

তবে অনেকে মনে করছেন, আগামী বছর হতে চলা ত্রিপুরা বিধানসভা নির্বাচনে বিপ্লবকে মুখ করে লড়তে চাইছে না বিজেপি। সেই কারণেই সময় থাকতে তাঁকে সরিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত। বিপ্লবকে মুখ্যমন্ত্রী রেখে নির্বাচনে গেলে প্রতিষ্ঠান- বিরোধী হাওয়া জোরালো হতে পারে বলেও গেরুয়া শিবিরের আশঙ্কা। একই সঙ্গে, বিপ্লবের বিভিন্ন মন্তব্য রাজ্যে দলের সংগঠনেও প্রভাব ফেলছিল। মনে করা হচ্ছে, সেই সব কারণেই বিপ্লবকে সরিয়ে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে নতুন কোনও ‘সর্বজনগ্রাহ্য’ মুখ নিয়ে আসতে চাইছে বিজেপি। সূত্র : এনডিটিভি, এবিপি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ