Inqilab Logo

বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ১৫ আষাঢ় ১৪২৯, ২৮ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

নিয়মিত মহড়া দিলেও পুলিশের খাতায় জাকির মেম্বার পলাতক!

দেবিদ্বার (কুমিল্লা) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৭ মে, ২০২২, ১২:০২ এএম

কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার বরকামতা এলাকায় দখল বাণিজ্য, মাদকবিক্রি, আধিপত্য বিস্তার ও চাঁদা আদায়ের জন্য ২৫-৩০ জন তরুণকে নিয়ে গড়ে তুলেছেন শক্তিশালী কিশোর গ্যাং। সেই গ্যাংয়ের নেতৃত্ব দেয়া মেম্বার জাকির হোসেন ও অন্যান্যরা বিভিন্ন মামলার আসামি।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, এ মিশনের অগ্রভাগে ছিল দখল বাণিজ্যের নেতা জাকির মেম্বার। এক বাড়ি দখলের বাঁধা দেয়ার কারনে স্থানীয় কুলসুমের পরিবারের খাবার টেবিল থেকে নারীদের চুলের মুঠি ধরে টানাহেঁচড়া করে বের করাই নয়, মায়ের কোল থেকে ৭ মাসের কন্যা সন্তানকে ছিনিয়ে নিয়ে বাইরে ছুড়ে ফেলা এবং বাড়িঘরে ভাঙচুর চালায় তারা। ওই বাড়িটিকে স্থিতাবস্থায় বজায় রাখতে আদালতের নির্দেশনা থাকলেও পুলিশের পক্ষ থেকে দখলবাজদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা না নেয়ারও অভিযোগ করেন আরেক মামলার বাদী কুলসুম বেগম।
তাদের হাত থেকে রক্ষা পায়নি সাংবাদিক শাহিদুল ইসলাম, সোহেল রানা ও ইসহাক হাসানও। গত ১৩ মে আহত সাংবাদিক শাহিদুল ইসলাম বাদী হয়ে মামলা করেন। কিন্তু এ মামলার প্রধান আসামি জাকির হোসেন মেম্বার এবং অন্যান্যরা গত ৬ দিনেও গ্রেফতার না হয়ে ধরাছোঁয়ার বাইরে থেকে চালিয়ে যাচ্ছেন মাদকসহ দখল বাণিজ্যের রমরমা ব্যবসা, চাঁদাবাজি ও আধিপত্য বিস্তারের মহড়া। এলাকায় প্রকাশ্যে এ দখলবাজ ও মাদক কারবারিরা মহড়া দিয়ে বেড়ালেও পুলিশের খাতায় জাকির হোসেন মেম্বার ও তার সহযযোগীরা পলাতক। আর তাদের ভয়ে আতঙ্কিত এলাকার সাধারণ মানুষ। তাদের অপকর্মের প্রতিবাদ করলেই নেমে আসে অত্যাচার-নির্যাতন। এ বিষয়ে জাকির হোসেন মেম্বার বলেন, বিষয়টি ভিন্নখাতে নেয়ার জন্য রাজনৈতিক একটি প্রতিপক্ষ উঠে পড়ে লেগেছে। এ ঘটনায় তাকে জড়ানোর চেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে তিনি দাবি করেন।
দেবিদ্বার থানার ওসি আরিফুর রহমান দৈনিক ইনকিলাবকে বলেন, এ মামলার এক আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আর ধরাছোঁয়ার বাইরে থাকা জাকির মেম্বারকে গ্রেপ্তারে পুলিশের একাধিক টিম কাজ করছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন