Inqilab Logo

রোববার, ২৬ জুন ২০২২, ১২ আষাঢ় ১৪২৯, ২৫ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

আবারও ফুঁসে উঠছেন পাঞ্জাবের কৃষকেরা, চণ্ডীগড়মুখী যাত্রা

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৮ মে, ২০২২, ১২:৩৯ পিএম

আবারও ফুঁসে উঠেছেন ভারতের অন্যতম বৃহৎ প্রদেশ পাঞ্জাবের কৃষকেরা। মঙ্গলবার চণ্ডীগড়-মোহালী সীমান্তের কাছে অবস্থান কর্মসূচি নেন তারা। উৎপাদিত গমের ওপর উদ্বৃত্ত মূল্য এবং আসন্ন ধান রোপণে সরকারী সহযোগিতাসহ বিভিন্ন দাবিতে সরকারের ওপর চাপ প্রয়োগ করতে চণ্ডীগড় রওনা হলে চণ্ডীগড়-মোহালী সীমান্তের কাছে তাঁদের আটকে দেওয়া হয়।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির খবর, পাঞ্জাবের কৃষক নেতা জগজিৎ সিং দালাল বলেছেন, যদি মুখ্যমন্ত্রী ভগবন্ত মান বুধবারের মধ্যে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে আলোচনায় না বসেন এবং তাদের সমস্যা দূর করতে কোনো পদক্ষেপ না নেন তবে তারা ব্যারিকেড ভেঙেই চণ্ডীগড় অভিমুখে রওনা হবেন।

এদিকে, আন্দোলনকারীদের রুখতে চণ্ডীগড়-মোহালী সীমান্তে বিপুল পরিমাণ পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। মোহালী পুলিশ আন্দোলনকারীদের গতি রুখতে ব্যারিকেড স্থাপন, দাঙ্গা পুলিশ মোতায়েনসহ জল কামান প্রস্তুত রেখেছে। চণ্ডীগড় পুলিশের তরফ থেকেও একই ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।
আন্দোলনকারীদের হয়ে এক নেতা বলেছেন, ‘পাঞ্জাবে আমাদের সংগ্রাম শুরু হয়ে গেছে। দাবি না আদায় করা পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলবে। এখানে মাত্র ২৫ শতাংশ কৃষক এসেছেন। আগামীকাল এর চেয়েও বেশি আসবেন। এটি আমাদের জন্য মরণপণ লড়াই।’
গমের দামে কুইন্টাল প্রতি ৫০০ রুপি বেশি দেওয়া, ধান রোপণের সময় এগিয়ে আনা এবং বিদ্যুৎ বিল হ্রাস এবং ১০ থেকে ১২ ঘণ্টা নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিতসহ বিভিন্ন দাবি উত্থাপন করেছে।

সরকারকে চাপ দিতে পাঞ্জাবের বিভিন্ন প্রান্তের কৃষকেরা প্রয়োজনীয় খাদ্য, বিছানা, বৈদ্যুতিক পাখা, বিভিন্ন নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী, গ্যাস সিলিন্ডারসহ বিভিন্ন সামগ্রী নিয়ে মোহালীর গুরুদুয়ারা আম্ব সাহেবে সমবেত হতে থাকেন। সেখান থেকেই তাঁদের যাত্রা শুরু হয় চণ্ডীগড়ের দিকে। সূত্র : এনডিটিভি



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ