Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২, ১৪ আষাঢ় ১৪২৯, ২৭ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

লালমোহনে মাদরাসা সুপারকে পেটালেন দুই শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সভাপতি

জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের প্রতিবাদ

ভোলা জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৮ মে, ২০২২, ২:৫৩ পিএম

ভোলার লালমোহন উপজেলার ধলীগৌরনগর মাহমুদা খাতুন বালিকা দাখিল মাদ্রাসার সুপার মাওঃ নুরুল ইসলামকে মাদ্রাসার অফিস কক্ষে দুই শিক্ষক ও মানেজিং কমিটির সাবেক সভাপতি মিলে মারধর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ১৬ মে সোমবার মাদ্রাসা চলাকালীন সময়ে অফিস কক্ষে এ ঘটনা ঘটে। তজুমদ্দিন উপজেলার চাঁচড়া ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা সুপার মাওঃ নুরুল ইসলাম তজুমদ্দিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

আহত সুপার মাওঃ নুরুল ইসলাম জানান, আমাকে হয়রানীর উদ্দেশ্যে কিছুদিন পূর্বে সহকারী মৌলভী মাওঃ জামাল উদ্দিন মাদ্রাসার ইউনিক আইডি ও উপবৃত্তি আইডি পার্সওয়ার্ড পরিবর্তন করেন। এছাড়াও ২০২২-২৪ সালের জন্য বিধি অনুযায়ী ম্যানেজিং গঠন করলে সভাপতি থেকে বাদ পড়েন ইউসুফ মিয়া। সহকারী শিক্ষিকা ও সাবেক সভাপতির স্ত্রী রাফিয়া আক্তার চৌধুরীর কাছে থাকা মাদ্রাসার একাউন্টের চেক বই চাইলে তারা ক্ষিপ্ত হয়।
তিনি আরো জানান, দুই শিক্ষক ও সাবেক সভাপতি মিলে ১৬ মে সোমবার মাদ্রাসা চলাকালীন সময়ে অফিস কক্ষে ডুকে আমাকে কিল, ঘুষি, লাথি মেরে মাটিতে ফেলে বুকে পা দিয়ে চেপে ধরে। শিক্ষক ছানাউল্লাহ জানান, আমরা সুপারকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করি।
অভিযুক্ত সহকারী মৌলভী মাওঃ জামালউদ্দিনের কাছে এ বিষয়ে জানতে ফোন দিলে সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে ফোন কেটে দেন। পরে কয়েকবার ফোন দিলেও রিসিভ করেননি। অপর শিক্ষিকা রাফিয়া আক্তার চৌধুরী কাছে জানতে চাইলে বলেন, আমার শ্বশুরকে নিয়ে বাজে মন্তব্য করায় আমার স্বামী রাগান্বিত হয়ে চড়-থাপ্পড় দেন।

অভিযোগের বিষয়ে সাবেক সভাপতি ইউসুফ মিয়ার কাছে জানতে চাইলে বলেন, আমরা মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করেছি। সুপার উল্টাপাল্টা কথা বলেছে তাই নিজেকে নিয়ন্ত্রণ রাখতে পারিনি।

লালমোহন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার রফিকুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে বলেন, মাদ্রাসা সুপারের উপর হামলার বিষয়ে মোবাইলে জেনেছি। আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের পরামর্শ দিয়েছি। এ দিকে এ ঘটনার তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদ ও বিচার দাবী জানিয়েছেন ভোলা জেলা জমিয়াতুল মোদারেছিনের সাধারন সম্পাদক উপাধ্যক্ষ আলহাজ্ব মাওঃ মোবাশ্বেরুল হক নাইম, লালমোহন জমিয়াতুল মোদারেছিনের সভাপতি অধ্যক্ষ মাওঃ মোশারফ হোসেন,সাধারন সম্পাদক মাওঃ আবু জাফর সহ সকল নেতৃবৃন্দ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: প্রতিবাদ

১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২২
২ জানুয়ারি, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ