Inqilab Logo

শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ১৭ আষাঢ় ১৪২৯, ০১ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

রাষ্ট্রীয় বিপর্যয় সৃষ্টিকারী দেশদ্রোহী-ধর্মদ্রোহী নাস্তিকদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই : ঝালকাঠি জেলা সংবাদদাতা

ঝালকাঠি জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৯ মে, ২০২২, ৭:৩০ পিএম

বিশ্বব্যাপী মুসলমানেরা এক কঠিন পরিস্থিতি অতিক্রম করছে। কী দেশে, কী বিদেশে সর্বত্রই এক মহা অস্থিরতা পরিলক্ষিত হচ্ছে। দেশে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে মানুষের যখন নাভিশ্বাস, সরকার যখন ফড়িয়া-ব্যবসায়ীদের কারসাজি নস্যাতে সচেষ্ট; তখন একদল সুযোগ সন্ধানী ঘর-পোড়ায় আলু পুড়ে খাবার উৎসবে নেমেছে। দেখে শুনে মনে হচ্ছে, এদের সঙ্গে মুনাফাখোড় সিন্ডিকেটের কোন যোগসাজস রয়েছে। এই চিহ্নিত নাস্তিক্যবাদীরা অতীতেও দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করে সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণœ করার চেষ্টা করেছে, এখনও করে যাচ্ছে।’
বৃহস্পতিবার বাদ আসর ঝালকাঠির নেছারাবাদ কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে আলেম-ওলামাদেরপ্রতি নাস্তিক্যবাদী ষড়যন্ত্র ও মামলা-হামলার প্রতিবাদে অনুষ্ঠিত এক সমাবেশে আমীরুল মুছলিহীন হযরত মাওলানা মুহম্মদ খলীলুর রহমান নেছারাবাদী হুজুর এসব কথা বলেন।
তিনি বিদ্যমান পরিস্থিতিতে ওলামায়ে কেরামের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘নাস্তিকদের প্রধান টার্গেট ইসলাম ও মুসলমান। মিথ্যাচার, হয়রানি, মামলা-হামলা ইত্যাদি তাদের কুমতলব হাসিলের অস্ত্র। কে কোন দলের বা কোন মতের তা তাদের বিবেচ্য বিষয় নয় বরং তুমি ওহাবী হও আর সুন্নী হও, দেও বন্দী হও আর রেজভী হও, সুযোগ পেলেই ওরা তোমার ক্ষতি করতে ছাড়বে না, যা ইতোমধ্যে ১১৬জন আলেমের নামের তালিকা থেকে প্রমাণিত। আল্লাহ তায়ালা সূরা আনফালের ৪৬নং আয়াতে এরশাদ করেন, ‘হে মুমিনগণ তোমরা পরস্পরে বিবাদে লিপ্ত হয়ো না। যদি তোমরা বিবাদ কর, বিভিন্ন দলে বিভক্ত হয়ে পড়, তবে তোমরা তোমাদের শক্তি-সামর্থ্য হারিয়ে দুর্বল হয়ে পড়বে এবং তোমাদের প্রভাব চলে যাবে। অতএব দল-মত-ছেলছেলা নির্বিশেষে সর্বশ্রেণির ওলামায়ে কেরাম এবং পীর-মাশায়েখদের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি, আল্লাহরওয়াস্তে আপনারা ঐক্যবদ্ধ হন। আপনারা ঐক্যবদ্ধ থাকলে নাস্তিক-ধর্মদ্রোহীদের ষড়যন্ত্র তৃণখ-ের ন্যায় ভেসে যাবে। আসুন ঈমান রক্ষায়, দেশ রক্ষায়, স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষায় দেশদ্রোহী নাস্তিকদের মোকাবেলায় ঐক্যবদ্ধ থাকি।’
নেছারাবাদী হুজুর দেশের আপামর জনসাধারণের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘আপনারা নাস্তিক্যবাদীদের প্রপাগা-ায় বিভ্রান্ত হবেন না। নাস্তিকদের কাজ হল প্রশাসন ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে ইসলামী ভাবধারা মুছে ফেলে একটি ধর্মহীন সমাজ নির্মাণ করা। বিজ্ঞ ওলামায়ে কেরাম যখন ওয়াজ-মাহফিল, জুমার খুৎবাহ ও অনলাইন মিডিয়ার মাধ্যমে ধর্মশিক্ষার পথ বেছে নিয়েছেন, তখন নাস্তিক্যবাদীরা তাদের ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে ওলামায়ে কেরামকে টার্গেট করে মিথ্যা মামলা দিয়ে তাদের নৈতিকতার জায়গায় কালিমা লেপন ও কণ্ঠ রোধের চেষ্টা করছে। কোন ঈমানদার ওদের কথায় আস্থা রাখতে পারে না। আল্লাহ তায়ালা সূরা হুজুরাতের ০৬নং আয়াতে এরশাদ ফরমান ‘হেঈমানদারেরা যদি কোন পাপাচারী তোমাদের কাছে কোন সংবাদ নিয়ে আসে তবে তোমরা পরীক্ষা করে দেখবে যাতে অজ্ঞতাবশতঃ কোন সম্প্রদায়ের ক্ষতি সাধনে প্রবৃত্ত না হও এবং পরে নিজেদের কৃতকর্মের জন্য অনুতপ্ত না হও। অতএব, নাস্তিক্যবাদীদের প্রপাগা-ায় বিভ্রান্ত না হয়ে আপনারা নিজ নিজ অবস্থান থেকে শান্তিপূর্ণভাবে ইসলাম বিরোধী ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদ করুন।’
নেছারাবাদী হুজুর সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন ‘আলেম ওলামার ভুল-ভ্রান্তি নিরসনে প্রয়োজনে হক্কানী ওলামায়ে কেরামের পরামর্শ নিন, নাস্তিক ধর্মদ্রোহীদের ফাঁদে পা দেবেন না। নাস্তিকরা সরকারের অভ্যন্তরে লুকিয়ে থেকে যেমন রাষ্ট্রবিরোধী অপতৎপরতা চালায়, তেমনি সরকারের বাইরে থেকে সরকার পতনের ষড়যন্ত্রে লিপ্তহয়। আমরা রাষ্ট্রীয় বিপর্যয় সৃষ্টিকারী দেশদ্রোহী-ধর্মদ্রোহী নাস্তিকদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ