Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২, ১৪ আষাঢ় ১৪২৯, ২৭ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

আবারো বেড়েছে কুষ্টিয়ায় চালের দাম

স্টাফ রিপোর্টার, কুষ্টিয়া থেকে | প্রকাশের সময় : ২২ মে, ২০২২, ১২:০১ এএম

পুরোদমে শুরু হয়ে গেছে বোরো ধান কাটা। এসময়ে কমে আসার কথা চালের দাম। কিন্তু এই ভরা মৌসুমেই বাড়ছে চালের দাম। গত সপ্তাহের চেয়ে কেজি প্রতি ২ টাকা থেকে ৩ টাকা বেড়েছে চালের দাম। মিল মালিকরা বলছেন, ভরা মৌসুমেও ধান বেশি দামে কিনতে হচ্ছে। সে কারণে চালের দামও বেশি। চালের দাম বাড়াকে স্বাভাবিক ব্যাপার বলছেন তারা। এদিকে এ সময়ে ৬০-৬২ টাকা দরে চাল কিনতে গিয়ে ক্ষুব্ধ ক্রেতা সাধারণ। তারা বলছেন, বাজারে সব নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির সঙ্গে চালের বাড়তি দামে নাভিশ্বাস উঠছে তাদের। কার্যকর বাজার মনিটরিং-এর দাবি তাদের।
সারাদেশের মতো কুষ্টিয়াতেও চলছে রোরো ধান কাটা। ধানের এই মৌসুমে বিগত কয়েক বছরগুলোতে সরু চালের কেজি ৫০ টাকার মধ্যেই থাকতো। কিন্তু কেজিতে ২ থেকে ৩ টাকা বাড়িয়ে মিল মালিকরা সরু মিনিকেট এ সপ্তাহে বিক্রি শুরু করেছেন ৫৮ থেকে ৫৯ টাকা কেজি দরে। কুষ্টিয়ার খুচরা বাজারে এসে এই মিনিকেট বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকা কেজি দরে।
আর মজুদ থাকা পুরনো মিনিকেট বিক্রি হচ্ছে ৬২ টাকা কেজিতে। দীর্ঘ সময় ধরে বাড়তি দামের চাল কেনা ভোক্তারা আশায় ছিলেন মৌসুমে কম দামে কিনবেন। কিন্তু ভরা মৌসুমেও চালের দাম না কমায় চরম বেকায়দায় নিম্ন ও মধ্য আয়ের মানুষ।
খুচরা বিক্রেতারা বলছেন, মিল থেকে দাম বেশি নেয়ার কারণে তাদেরও বেশি দামেই বেচতে হচ্ছে। এভাবে চলতে থাকলে চালের দাম আরও বাড়ার আশংকা করছেন তারা।
নতুন ধান আসলে চালের দাম কমানোর ঘোষণা দিয়েছিলেন যারা সেই মিল মালিকরা এখন অজুহাত দেখাচ্ছেন বৃষ্টিতে ধান নষ্ট হয়ে যাওয়ার। তারা বলছেন, ধান বেশি দামে কিনতে হচ্ছে, তাই চালের দাম কমানো যাচ্ছে না। চালের দাম বাড়াকে স্বাভাবিক বলছেন তারা।
কার্যকর বাজার মনিটরিং করা গেলে এদের নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হবে বলে দাবি ভোক্তাদের।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ