Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ১৬ আষাঢ় ১৪২৯, ২৯ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

সমকামী পুরুষদের মধ্যেই ভাইরাস ছড়াচ্ছে মাঙ্কিপক্স সতর্কতা নিয়ে ব্রিটিশ বিজ্ঞানীদের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৩ মে, ২০২২, ১২:০৩ এএম

বৈশ্বিক মহামারী করোনাভাইরাসের মধ্যেই নতুন করে দাপট দেখাচ্ছে মাঙ্কিপক্স ভাইরাস। ব্রিটেন, পর্তুগাল, স্পেন ও বেলজিয়ামের মতো ইউরোপের বিভিন্ন দেশে দ্রুত ছড়াচ্ছে ভাইরাসটি। যা নিয়ে বিভিন্ন দেশে উদ্বেগ বেড়েছে। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে যারা সমকামী ও উভকামী, তাদের সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। সমকামীদের মধ্যেই এই সংক্রমণ ছড়াচ্ছে কি না, তা খতিয়ে দেখছে সংস্থাটি। ব্রিটেনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে পক্ষ থেকে সমকামী ও উভকামীদের মাঙ্কিপক্সকে ঘিরে সতর্ক করা হয়েছে। দেশটিতে নতুন করে আরো চারজনের শরীরে এই সংক্রমণ ধরা পড়েছে। এই নিয়ে ব্রিটেনে মোট আক্রান্তের সংখ্যা সাতজন। ব্রিটেনের হেলথ সিকিউরিটি এজেন্সির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, নতুন করে যে চারজন আক্রান্ত হয়েছেন, তাদের মধ্যে তিনজন লন্ডনের ও একজন উত্তর-পূর্ব ইংল্যান্ডের। যারা সংক্রমিত হয়েছেন তারা সমকামী বা উভকামী। কিভাবে তারা মাঙ্কিপক্স ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এ প্রসাথে ব্রিটেনের হেলথ সিকিউরিটি এজেন্সির প্রধান মেডিক্যাল উপদেষ্টা ডা: সুজান হপকিন্স জানিয়েছেন, যারা সমকামী ও উভকামী তাদের বিশেষ করে সতর্ক করা হয়েছে। কারো শরীরে যদি কোনো র‌্যাশ বা ক্ষত দেখা যায়, তাহলে যেন তারা সাথে সাথে চিকিৎসকের কাছে যান। তিনি আরো বলেন, এটা খুবই বিরল ব্যাপার। এই সংক্রমণের উৎস কোথায়, তা নির্ধারণ করা হচ্ছে। তবে ধারণা করা হচ্ছে, সমকামীদের মধ্যেই এই সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে। ব্রিটেনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের আশঙ্কা, সমকামী ও উভকামী পুরুষদের যৌনচক্র থেকেই তাদের দেশে ছড়িয়েছে মাঙ্কিপক্স ভাইরাসের সংক্রমণ। শুধু ব্রিটেন নয়, স্পেন ও পর্তুগালে যথাক্রমে ৭ ও ৯ জন পুরুষ আক্রান্ত হয়েছেন এই ভাইরাসে, যাদের অধিকাংশই সমকামী কিংবা উভকামী পুরুষ বলে জানা গেছে। তাই সমকামী পুরুষদের আপাতত অতিরিক্ত সতর্ক থাকার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। এদিকে করোনা মহামারির মধ্যেই ইউরোপে মাঙ্কিপক্স ভাইরাসে শনাক্ত হচ্ছেন অনেকে। গত কয়েকদিনে যে হারে শনাক্ত হয়েছে, তা নিয়ে সতর্ক করেছেন ব্রিটিশ বিজ্ঞানীরা। তারা বলছেন, সামনে নতুন করে আরও সংক্রমিত রোগী শনাক্ত হতে পারেন। ইউরোপে ইতোমধ্যে ৯০ জন রোগী শনাক্ত হয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া এবং ব্রিটেনেও মাংকিপক্স রোগী শনাক্ত। এটি আগে পশ্চিম আফ্রিকার মধ্যেই ছিল। হঠাৎ আফ্রিকার বাইরে ছড়িয়ে পড়ায় স্বাভাবিকভাবে দেখছেন না চিকিৎসকরা। এ নিয়ে যুক্তরাজ্যের ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের রোগ বিশেষজ্ঞ শার্লট হ্যামার বলেন, ‹আমি নিশ্চিত যে সামনে আরও শনাক্ত দেখতে যাচ্ছি। স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ সক্রিয়ভাবে সংক্রিমতদের খুঁজছেন। মাংকিপক্সের ইনকিউবেশনের সময়কাল এক থেকে তিন সপ্তাহের মধ্যে হয়ে থাকে। যারা প্রাদুর্ভাবের প্রথমদিকে আক্রান্তদের সংস্পর্শে এসেছেন, তাদের মধ্যে সংক্রমণ দেখতে পাবো। তবে নটিংহ্যাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক কিথ নিল বলেন, ভাইরাসটিকে আপাতত প্রাণঘাতী মনে হচ্ছে না। গত কয়েক সপ্তাহে ব্রিটেন, ফ্রান্স, জার্মানি, বেলজিয়াম, ইতালি, পর্তুগাল, স্পেন, সুইডেন, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র এবং সবশেষ ইসরাইলে মাংকিপক্সে আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, রোগটি বিভিন্ন দেশে হয়ত ছড়িয়ে পড়ছে। টিওআই, দ্য গার্ডিয়ান।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন