Inqilab Logo

শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ১১ আষাঢ় ১৪২৯, ২৪ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

সিন্ডিকেটের বদলে স্বচ্ছ নিরাপদ অভিবাসনের কোন বিকল্প নেই

প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপিতে বায়রা নেতৃবৃন্দ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৪ মে, ২০২২, ২:৫০ পিএম

মালয়েশিয়া শ্রমবাজারে অতীতের ১০ সিন্ডিকেটের ন্যায় পুনরায় ২৫ সিন্ডিকেটের অপচেষ্টা বন্ধ করে সকল বৈধ রিক্রুটিং এজেন্সী সমূহের জন্য সকল শ্রমবাজার উন্মুক্তকরণের জোর দাবি জানিয়েছে রিক্রুটিং এজেন্সিজ ঐক্য পরিষদ। সিন্ডিকেটের বদলে সবাইকে সমান সুযোগ দিয়ে স্বচ্ছ এবং নিরাপদ অভিবাসনের কোন বিকল্প নেই। সোমবার রিক্রুটিং এজেন্সিজ ঐক্য পরিষদের সভাপতি এম টিপু সুলতান ও মহাসচিব আরিফুর রহমান প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এক স্মারকলিতে এ দাবি করেন। স্মারকলিপিতে বলা হয়, মালয়েশিয়ার শ্রমবাজারে পূর্বের ন্যায় এবারও প্রস্তাবিত ২৫ টি সিন্ডিকেট বাস্তবায়িত হলে দেশের সুনাম নষ্ট, শ্রমবাজারে অস্থিরতা ও অভিবাসন ব্যয় বৃদ্ধির সাথে সাথে কর্মী প্রেরণে স্বচ্ছতা ও প্রতিযোগিতা থাকবে না। দেশীয় ও আন্তর্জাতিক মিডিয়াতে সিন্ডিকেট এর মাধ্যমে কর্মী প্রেরণ করা হলে বিশে^ বাংলাদেশ সরকার ও উক্ত সেক্টরের ভাবমর্যাদা বিনষ্ট হবে।

নেতৃদ্বয় প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, মালয়েশিয়ার শ্রমবাজারটি প্রায় সাড়ে তিন বছর বন্ধ থাকার পর আপনার নির্দেশনায় ও ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় গত ১৯ ডিসেম্বর ২০২১ সালে দুই দেশের মধ্যে একটি সামঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের খবর সবাইকে আশাবাদী করেছিল। কিন্তু উভয় দেশের স্বাক্ষরিত সমঝোতা স্মারকের ধারা পাশ কাটিয়ে মালয়েশিয়ার মানব সম্পদ মন্ত্রী এম সারাভানান গত ১৪ জানুয়ারি ২৫ টি রিক্রুটিং এজেন্সীর সিন্ডিকেটের মাধ্যমে কর্মী প্রেরণের একটি প্রস্তাব আমাদের প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী কাছে প্রেরণ করেন। মালয়েশিয়া মানব সম্পদ মন্ত্রীর দেয়া ওই চিঠির প্রতিউত্তরে প্রবাসী মন্ত্রী ইমরান আহমেদ আইএলও এর সনদ এবং বাংলাদেশের প্রতিযোগিতা আইন ২০১২ এর বরাত দিয়ে ১৮ জানুয়ারি চিঠিতে বলেছেন, বাংলাদেশ সরকার সীমিত সংখ্যক রিক্রুটিং এজেন্সিকে কাজ দিতে পারে না। বাংলাদেশের প্রতিযোগিতা আইন অনুযায়ী বৈধ লাইসেন্সধারী সব রিক্রুটিং এজেন্সিকে সমান সুযোগ দিতে হবে। চিঠিতে বলা হয়েছে, স্বচ্ছ অনিয়মমুক্ত এবং নিরাপদ অভিবাসন চায় বাংলাদেশ। পাশাপাশি কর্মী পাঠানোর প্রক্রিয়া ঠিক করার জন্য দুই দেশের ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকের প্রস্তাবও দিয়েছেন।
২০১৮ সালে হাহকোর্ট মালয়েশিয়া অভিবাসন সেক্টরে কোন প্রকার সিন্ডিকেট করা যাবে না মর্মে রায় প্রদান করেন। পিটিশন নং ১৩২৮৭।
প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী মালয়েশিয়া শ্রমবাজারে সিন্ডিকেট হবে না মর্মে জাতির সামনে ওয়াদা করেছেন এবং বিভিন্ন মিডিয়ার মাধ্যমে শত শত বার সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে সরকারের অবস্থান ক্লিয়ার করার পরেও বর্তমান সরকারের ভাবমর্যাদা ক্ষুন্ন করার হীন উদ্দেশ্যে অতীতের ১০ সিন্ডিকেটের মূল খলনায়কেরা পুনরায় ২৫ এজেন্সির সিন্ডিকেটের অপচেষ্টা অব্যাহত ভাবে চালিয়ে যাচ্ছেন ।
বিগত দশ সিন্ডিকেটের দরুণ সকল এজেন্সি শুধু মালয়েশিয়াতে লোক পাঠায় তারা বঞ্চিত হয়েছে। সিন্ডিকেট করে কর্মী পাঠালে অভিবাসন ব্যয় বৃদ্ধি, সর্বোপরি মন্ত্রণালয়ের ইমেজ, বায়রার ইমেজ, এই সেক্টরের ইমেজ এমনকি সরকারের ইমেজ ব্যাপক ভাবে ক্ষুন্ন হবে। দেশীয় ও আন্তজার্তিক ভাবে সরকারের ভাবমর্যাদা নষ্ট হবে।
মধ্যসত্বভোগী পরিহার করে সরাসরি ডাটা ব্যাংক থেকে লোক নিয়োগ করলে কম খরচে মালয়েশিয়া (সিন্ডিকেট মুক্ত) কর্মী প্রেরণ করা সম্ভব। এতে রেমিট্যান্স আয় বাড়বে। নেপালের ১৬০০ রিক্রুটিং এজেন্সি মালয়েশিয়াতে কর্মী প্রেরণ করার জন্য রয়েছে। ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলংকা , ইন্দোনেশিয়া, কম্বোডিয়াসহ সকল দেশ সিন্ডিকেট মুক্তভাবে সংশ্লিষ্ট দেশের সকল রিক্রুটিং এজেন্সি মালয়েশিয়াতে কর্মী প্রেরণ করে থাকে। মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ ব্যতীত অন্যান্য ১৩ টি সোর্স কান্ট্রি থেকে সিন্ডিকেটবিহীন স্বাভাবিক নিয়মে কর্মী নিয়োগের বিপরীতে শুধুমাত্র বাংলাদেশ থেকে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে কর্মী নিয়োগ অমর্যাদাকর। অন্যান্য দেশ থেকে কর্মী নেয়ার ক্ষেত্রে নিয়োগকর্তা তার পছন্দসই রিক্রুটিং এজেন্সীকে বেছে নেয়ায় কর্মী প্রেরণের অভিবাসন ব্যয় অনেক কম হয়।
উল্লেখ্য, মালয়েশিয়ায় রিক্রুটিং এজেন্সী সিলেকশনের ক্ষেত্রে প্রস্তাবিত ২৫ টির পরিবর্তে খোঁদ নিজ দেশেই সমালোচনা ও প্রতিবাদের মুখে মালয়েশিয়া সরকার ৫০০ এর অধিক রিক্রুটিং এজেন্সীকে অনুমোদন দেয়। আমাদের দেশের স্বার্থে বৈধ ও যোগ্য সকল রিক্রুটিং এজেন্সীকে কাজ করার সুযোগ প্রদান আবশ্যিক। বাংলাদেশের কম্পিটিশন এক্ট অনুযায়ী সকল এজেন্সির অধিকার সমান সুতরাং সিন্ডিকেট বাস্তবায়িত হলে আইনের অবমাননা হবে। স্মারকলিপিতে আরো বলা হয়, ২০১৬ সালে ১০ এজেন্সি সিন্ডিকেট সরকার নির্ধারিত অর্থের চাইতে ২/৩ গুন বেশি অর্থ গ্রহণ করে মালয়েশিয়াতে কর্মী প্রেরণ করেছিল। বর্তমানে ২৫ সিন্ডিকেট করে দেশের ভাবমর্যাদা নষ্ট করার অপচেষ্টা করছে। একটি স্বাধীন বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিশন গঠন করে এসব সিন্ডিকেট চক্রকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান করতে হবে। স্মারকলিপিতে মালয়েশিয়া শ্রমবাজারে ২৫ সিন্ডিকেটের অপচেষ্টা বন্ধে করে (সিন্ডিকেট মুক্তভাবে) দেশের সকল বৈধ রিক্রুটিং এজেন্সি সমূহকে মালয়েশিয়াসহ বিশে^র সকল দেশে কর্মী প্রেরণের অধিকার নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রধানমন্ত্রীর আশু হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়।



 

Show all comments
  • এম টিপু সুলতান ২৪ মে, ২০২২, ৬:৩০ পিএম says : 0
    মালয়েশিয়া সহ বিশ্বের সকল দেশের সকল প্রকার সিন্ডিকেট বন্ধ করতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা এমপি এর জরুরী হস্তক্ষেপ চাই।
    Total Reply(0) Reply
  • এম টিপু সুলতান ২৪ মে, ২০২২, ৬:৩০ পিএম says : 0
    মালয়েশিয়া সহ বিশ্বের সকল দেশের সকল প্রকার সিন্ডিকেট বন্ধ করতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা এমপি এর জরুরী হস্তক্ষেপ চাই।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ