Inqilab Logo

বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ১৫ আষাঢ় ১৪২৯, ২৮ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

ইসলামাবাদে পিটিআইর লং মার্চ বুধবার, করতে দেবে না সরকার

‘নিষ্ঠুর ক্র্যাকডাউন’-এ ইমরানের নিন্দা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৪ মে, ২০২২, ৬:৫১ পিএম | আপডেট : ৯:২৪ পিএম, ২৪ মে, ২০২২

পাকিস্তান তাহরিকে ইনসাফ বুধবার ইসলামাবাদে এক বিশাল লংমার্চের আয়োজন করেছে। ক্ষমতাসীন মুসলিম লীগ-এন এর নেতৃত্বাধীন জোট সরকার এ লং মার্চ করতে দেবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রানা সানাউল্লাহ মঙ্গলবার ঘোষণা করেছেন যে, ফেডারেল মন্ত্রিসভা সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, তারা পিটিআইকে রাজধানীতে তাদের পরিকল্পিত লং মার্চ করার অনুমতি দেবে না, যা বুধবার হওয়ার কথা।


ইসলামাবাদে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, সরকার পিটিআইকে মার্চের ছদ্মবেশে ‘বিশৃঙ্খলা ও সহিংসতা’ ছড়াতে দেবে না। ‘তাদের থামানো হবে যাতে তারা তাদের বিভ্রান্তিকর এজেন্ডা প্রচার করতে না পারে’।


তিনি সোমবার রাতে লাহোরের মডেল টাউনে পুলিশের অভিযানের সময় গুলিবিদ্ধ কনস্টেবল কামাল আহমেদের কথা উল্লেখ করে বলেন, ‘এ লোকেরা (পিটিআই) গালাগালি থেকে বুলেটে চলে গেছে। লাহোরে একজন পুলিশ কনস্টেবলকে হত্যা করা হয়েছে’। ফেডারেল মন্ত্রীরা এবং পিটিআই এ হত্যার জন্য পরস্পরকে দোষারোপ করেছে। ইতোমধ্যে পিটিআই নেতাদের গ্রেফতারে তাদের বাসায় পুলিশ অভিযান চালিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ‘নিষ্ঠুর ক্র্যাকডাউনের নিন্দা করেছেন চেয়ারম্যান ইমরান খান। এক্সপ্রেস ট্রিবিউনের প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানা গেছে।


প্রাক্তন মানবাধিকার মন্ত্রী শিরিন মাজারির গ্রেফতার এবং পরবর্তীতে মুক্তি পাওয়ার দু’দিন পর একটি ডমিনো ইফেক্টে পুলিশ গত মধ্যরাতে পাকিস্তান তাহরিকে ইনসাফ (পিটিআই) নেতাদের বাড়িতে অভিযান চালায়। পুলিশ লাহোরে প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী হাম্মাদ আজহারের বাড়িতে দৃশ্যত তাকে গ্রেফতার করার প্রয়াসে অভিযান চালায়। অভিযানের কথা উল্লেখ করে, পিটিআই নেতার মা বর্ণনা করেছেন কীভাবে পুলিশ বাহিনী তার বাড়িতে ঢুকে পড়লে বিকট শব্দ তাকে ভয় পাইয়ে দেয়।


আজহারের প্রহরী আরো ব্যাখ্যা করেছেন কীভাবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তাকে আক্রমণ করেছে এবং তার পিতা, একজন শহীদ সৈনিককে অপমান করেছে। পিটিআই নেতা ড. ইয়াসমিন রশিদ আজহারের বাসার বাইরে থেকে অভিযানের চিত্র ধারণ করেন।


আজহার একমাত্র পিটিআই নেতা ছিলেন না যিনি পুলিশ বাহিনী এবং গোপনীয়তা লঙ্ঘনের মুখোমুখি হন, সোমবার প্রাক্তন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ রশিদের বাড়ির বাইরে পুলিশ মোতায়েন ছিল।


হাম্মাদ আজহারের বাড়িতে প্রচুর পুলিশ বাধা দেওয়ার পরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী প্রধানমন্ত্রীর সাবেক বিশেষ সহকারী উসমান দারের বাড়িতেও প্রবেশ করে। আজহারের মতো, উসমান দারও বাড়িতে ছিলেন না তাই পুলিশ তাকে গ্রেফতার করতে পারেনি। আজ বুধবার অনুষ্ঠিতব্য প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের ইসলামাবাদ লং মার্চের সাথে এগুলো জড়িত থাকার সম্ভাবনা বিবেচনা করে এ গ্রেফতারের প্রচেষ্টা নিয়ে জল্পনা প্রকাশ পেয়েছে।
গ্রেফতারের চেষ্টার পরে আজহার একটি বিবাদী টুইট করেছেন, ‘যদি পারেন আমাদের থামান’।


মাইক্রোব্লগিং সাইটে গিয়ে, পিটিআই চেয়ারম্যান বর্তমান সরকারকে সতর্ক করেছেন যে, ‘এ ফ্যাসিবাদী পদক্ষেপগুলো অর্থনৈতিক পরিস্থিতিকে আরো বাড়িয়ে তুলবে এবং দেশকে নৈরাজ্যের দিকে ঠেলে দেবে।


ইমরান একটি গণতান্ত্রিক দেশে শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদের অধিকারকে শক্তিশালী করেছেন এবং ক্ষমতায় থাকা ব্যক্তিদের দ্বারা আরোপিত ‘নিষ্ঠুর ক্র্যাকডাউন’-এর নিন্দা করেছেন। সূত্র : এক্সপ্রেস ট্রিবিউন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: নিন্দা


আরও
আরও পড়ুন