Inqilab Logo

শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ১৭ আষাঢ় ১৪২৯, ০১ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

লালপুরে বোরোর বাম্পার ফলন

বিগত দিনের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে চান চাষিরা

মো. আশিকুর রহমান টুটুল, লালপুর (নাটোর) থেকে | প্রকাশের সময় : ২৫ মে, ২০২২, ১২:০৩ এএম

উচুঁ ও কম বৃষ্টিপাতের এলাকা হওয়ায় নাটোরের লালপুরে তেমন বোর ধানের চাষ না হলেও চলতি মৌসুমে রেকর্ড পরিমান জমিতে বোর ধানের চাষ হয়ছে। নিবিড় পরিচর্যা ও আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় এবার বোর ধানের ফলনও হয়েছে ভালো। তাই তো কৃষকরা বলছে উৎপাদিত ধানের ভালো দাম পেলে বিগত বছরের ক্ষতি অনেকটাই পুষিয়ে যাবে।
লালপুর উপজেলা কৃষি অফিস বলছে, ‘১ হাজার ১৫০ হেক্টর জমিতে বোর ধান চাষের লক্ষমাত্রা থাকলেও চলতি মৌসুমে লালপুরে ১ হাজার ১৯০ হেক্টর জমিতে বোর ধানের চাষ হয়েছে। যা রেকর্ড পরিমান। এই সকল জমি থেকে ৭ হাজার ৮৫৪ মেক্ট্রিক টন ধান ও ৫ হাজার ২৩৬ মেক্ট্রিক টন চাল উৎপাদনের লক্ষমাত্রা নির্ধারণ করেছে কৃষি বিভাগ।
সরেজমিনে উপজেলার বিভিন্ন এলাকার মাঠ ঘুরে দেখা গেছে, জমির পাকা ধান ঘরে তুলায় ব্যস্ত সময় পার করছে কৃষক ও তার পরিবার। উপজেলার মোট চাষকৃত ধানের প্রায় ৮৫% এখন কৃষকের ঘরে উঠেছে। এসময় ধান চাষি শিপন বলছেন, এবছর ৩ বিঘা জমিতে বোর ধানের চাষ করেছে তিনি। কৃষি অফিসের সার্বিক সহযোগিতায় ও নিবিড় পরিচর্যায় ধানের আশনুরূপ ফলন হয়েছে। উৎপাদিত ধানের সঠিক বাজার দর পেলে বিগত দিনের ক্ষতি অনেকটাই পুষিয়ে যাবে বলে জানান এই কৃষক।’
সেলিম রেজা নামের এক ধান চাষি জানান, ‘৩ বিঘা জমিতে বঙ্গবন্ধু ধানের চাষ করেছেন তিনি। অনুকুল আবহাওয়া থাকায় ও পোকামাকড়েরর আক্রমন তেমন না হওয়ায় তার ধান ভালো হয়েছে। এখনো ধান কাটা হয়নি। তবে অন্য জাতের ধানের চেয়ে বঙ্গবন্ধু ধানের ফলন ভালো হবে বলে আশা করছেন তিনি।’
লালপুর উপজেলা কৃষি অফিসার রফিকুল ইসলাম বলেন, চলতি মৌসুমে লালপুরে রেকর্ড পরিমান জমিতে বোর ধানের চাষ হয়েছে। আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। উৎপাদিত ধানের সঠিক বাজার দর পেলে কৃষকদের বিগত দিনের ক্ষতি অনেকটাই পুষিয়ে যাবে এবং আগামীতে এই উপজেলায়া বোর ধানের চাষ আরো বৃদ্ধি পাবে বলে জানান এই কর্মকর্তা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন