Inqilab Logo

শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ১৮ আষাঢ় ১৪২৯, ০২ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

বিক্ষোভে উত্তাল মেঙ্গালুরু বিশ্ববিদ্যালয়

ফের মাথাচাড়া দিল হিজাব বিতর্ক

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৮ মে, ২০২২, ১২:১০ এএম

ফের মাথাচাড়া দিয়ে উঠলো হিজাব বিতর্ক। বৃহস্পতিবার মেঙ্গালুরু বিশ্ববিদ্যালয়ে আচমকাই হিন্দু কট্টরপন্থীরা বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে। তাদের দাবি, বিশ্ববিদ্যালয়ে ঢুকতে গেলে মুসলিম ছাত্রীদের হিজাব খুলে ঢুকতে হবে। যারা খুলে আসবে না, তাদের ঘাড়ধাক্কা দিয়ে বের করে দিতে হবে। ক্যাম্পাসেই তারা তাদের দাবিতে স্লােগান দিতে শুরু করে। পরিস্থিতি রীতিমতো অগ্নিগর্ভ। জানা গেছে, আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলছেন বিশ্ববিদ্যাল কর্তৃপক্ষ। তবে এখনও পর্যন্ত পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়নি।
এদিন হিজাব ইস্যুতে ৪০ থেকে ৫০ জন ছাত্র আচমকাই ‘হিজাব পরিধানের’ প্রতিবাদে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে। তারা তাদের দাবিপ স্বপক্ষে কর্নাটক হাইকোর্টের একটি রায়ের উল্লেখ করে। আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের হাতে ছিল পোস্টার-ব্যানার। সেখানে লেখা হিজাব বিরোধী স্লােগান। আন্দোলনরতদের দাবি, কলেজ ডেভেলপমেন্ট অথরিটি অবিলম্বে মুসলিম শিক্ষার্থীদের জানিয়ে দিক, ‘ক্যাম্পাসে কোনোভাবেই হিজাব পরে আসা যাবে না। অঘোষিত এই কর্মসূচিতে বিশ্ববিদ্যালয়ে তৈরি হয় অচলাবস্থা’।
শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হিজাব নিষিদ্ধ করার বিষয়টি ঘিরে বিগত বেশ কয়েক মাস ধরেই উত্তাল হয়ে আছে কর্নাটক। মামলাটি কর্নাটকে হাইকোর্টে গড়িয়েছিল। হিজাব নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে যে পিটিশনগুলি দায়ের করা হয়েছিল, তা খারিজ করে দিয়েছে কর্নাটক হাইকোর্ট।
উচ্চতর আদালত জানিয়েছে, হিজাব পরা অপরিহার্য ধর্মীয় রীতি নয়। আবেদনকারীরা দাবি করেছিলেন, হিজাব নিষিদ্ধ করে তাদের ধর্ম পালনে বাধা দেওয়া হচ্ছে। তাঁদের দাবি ছিল, হিজাব পরা ইসলাম ধর্মে বাধ্যতামূলক। তবে আবেদনকারীদের সেই দাবিকে নাকচ করে দিয়েছে হাইকোর্টের বেঞ্চ।
ইসলামে হিজাব বাধ্যতামূলক নয়। ফলে এক্ষেত্রে সংবিধানের ২৫ নং ধারার রক্ষাকবজ পাওয়া যাবে না। হিজাব বিতর্কে মঙ্গলবার এমনটাই রায় দিয়েছে কর্ণাটক হাইকোর্ট। অর্থাৎ স্কুলে কোনো ধর্মীয় পোশাক পরে আসা যাবে না। কর্ণাটক হাইকোর্টের ওই রায়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেলেও রায় নিয়ে সন্তুষ্ট নয় শিক্ষার্থীরা।
রায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে আপিল করেছে এক শিক্ষার্থী। ফলে আপাতত হাইকোর্টের রায়েও জট কাটল না হিজাব বিতর্কের। এদিনের বিক্ষোভের জেরে ফের মাথা চাড়া দিয়ে উঠলো হিজাব বিতর্ক।
বৃহস্পতিবারের এ আন্দোলনের প্রেক্ষিপ্তে মাঙ্গালুরু বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্দোলনরত ছাত্ররা দাবি করেন, কর্ণাটক হাইকোর্টের রায়ের পরেও একদল মুসলিম ছাত্র কলেজে হিজাব পরেই ক্লাস করছে, এ ব্যাপারে একাধিকবার কলেজ কর্তৃপক্ষকে চিঠি দিয়েও কোন সুরাহা হয়নি তাই তারা আন্দোলনের পথ বেছে নিয়েছে। সেই সঙ্গে তাদের দাবি যদি মুসলিম ছাত্রদের হিজাব পরে কলেজে ক্লাস দেওয়া হয়, আমরাও জাফরান শাল পরে কলেজে আসব’। এপ্রসঙ্গে কলেজের এক মুসলিম ছাত্রী দাবি করেন, এটি তাদের ইউনিফর্মের একটা অংশ। তিনি বলেন যে, তারা এ বিষয়ে জেলা শাসকের সঙ্গে দেখা করবেন এবং সুবিচার চাইবেন, পাশাপাশি আইনি লড়াইয়েও সামিল হবে। সূত্র : ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিক্ষোভে উত্তাল মেঙ্গালুরু বিশ্ববিদ্যালয়
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ