Inqilab Logo

রোববার, ১৪ আগস্ট ২০২২, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৫ মুহাররম ১৪৪৪

চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সকে হারিয়ে ডেনিশ চমক

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৫ জুন, ২০২২, ১২:০১ এএম

বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সকে ২-১ গোলে হারিয়ে উয়েফা নেশন্স লিগে উড়ন্ত সূচনা করল কাসপাস হুলমান্ডের ডেনমার্ক। ঘরের মাঠ স্তাদ দো ফ্রান্সে এই ম্যাচে কোচ দিদিয়ের দেশমকে ছাড়াই মাঠে নামে ফরাসিরা। পিতার মৃত্যুর কারণে দলের সাথে যোগ দেননি করিম বেনজেমা, পল পগবাদের বস। গোটা ম্যাচে আধিপত্য করে ও ৬০ শতাংশ বলের দখল রেখেও ম্যাচ জিততে পারেনি ফ্রান্স। অপরদিকে ডেনমার্ক ৯০ মিনিটে গোলমুখে শট নিয়েছে মাত্র ৮ টি, যেখানে স্বাগতিকরা নিয়েছিল ১৯টি!
বিরতির পর ৫১ মিনিটে বেনজেমার চোখজুড়ানো এক গোলে এগিয়ে যায় ফরাসিরা। যদিও প্রথমার্ধে এই রিয়াল মাদ্রিদ তারকা মিস করেন এক সহজ সুযোগ, তার আরেকটি গোল বাতিল হয় অফ সাইডের ফাঁদে পড়ে। তবে এই ম্যাচে ফ্রান্সের একের পর এক আক্রমণ ঠেকিয়ে ডেনিশ গোলকিপার স্মাইকেল নিজেকে অনেকটা রক্ষক দেব রুদের ন্যায় প্রতিষ্ঠিত করে।
পিছিয়ে পড়ে কোচ হুলমাডের ডেনমার্ক সাবধানী ফুটবলের পরিবর্তে খেলার গতি আরও বাড়িয়ে দেয়। যার ফলস্বরূপ বদলি ফরওয়ার্ড কর্নেলিয়াস ম্যাচের ৬৮ মিনিটে দলকে সমতায় ফেরাতে সক্ষম হন। এই গোলের কারিগর স্পার্স তারকা হইবার। আর ম্যাচ শেষ হবার ঠিক দুই মিনিট আগে নিজের এবং দলের দ্বিতীয় গোল করে ড্যানিশদের জয় নিশ্চিত করেন সাবেক আতালান্টা ও পার্মাদর নাম্বার নাইন।
লীগ ‘এ’ অন্তর্ভুক্ত গ্রুপ ওয়ানের আরেক ম্যাচে জয় পেয়েছে অস্ট্রিয়া। সদ্যই রোনালদোদের কোচিং করিয়ে ম্যানইউ থেকে বিদায় নেওয়া রালফ রাংনিক তার নতুন অধ্যায় শুরু করেছেন বিশ্বকাপ রানার্স-আপ ক্রোয়শিয়াকে ৩-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে। ক্রোয়েট ও রিয়াল সুপারস্টার মদ্রিচ অবশ্য এই ম্যাচের শুরুর একাদশে ছিলেন না। তবে তিনি ৫৮ মিনিটে যখন নামলেন ততক্ষণে ম্যাচ হাতছাড়া হয়ে গিয়েছে তাদের। এই জয়ের ফলে অস্ট্রিয়া গ্রুপের শীর্ষে নাম লেখালো।
গতপরশু রাতে গ্রুপ ফোরের আরেক হাই ভোল্টেজ ম্যাচে নেদারল্যান্ডসকে ৪-১ গোলে রীতিমতো বিধ্বস্ত করেছে বেলজিয়ামকে। ফুটবলের অলিখিত রীতি হলো বিরতির ঠিক আগে এবং পরে যেন ভুল বা অসাবধানতা স্বরূপ কোন গোল রিসিভ করতে না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখা। কিন্তু মাস্টারমাইন্ড ম্যানেজার ফন গাল এই সময়টাতেই বেলজিয়ামকে বেসামাল করে দেওয়ার মতন ট্যাকটিস অবলম্বন করেন। আর ততেই লন্ডভন্ড ভর্তেহান ও এল্ডারউইরেল্ডের কাঁধে থাকা বেলজিয়ান ডিফেন্স। বার্সায় গত মৌসুম পার করা ডিপাই করেছেন দুইগোল আর বার্গউইন আর ডেমফ্রিস পেয়েছেন একটি করে গোল। নেশন্স লিগের বাকি ম্যাচগুলোর জন্য বেলজিয়ামের স্পেনিশ বস মার্তিনেজের মাথা ব্যাথার কারণ লুকাকুর ইনজুরি। ম্যাচের ২৯ মিনিটে চোট নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় এই স্টাইকারকে।
এই জয়ের মাধ্যমে শেষ ২৫ বছর বেলজিয়ামকে হারাতে না পারার ব্যর্থতার ঘূর্ণিপাক থেকে বের হলো লুই ফন গালের শিষ্যরা। আর অপরদিকে শেষ ৬ বছর ঘরের মাঠে অপারাজিত থাকার রেকর্ড আপাতত এখানেই শেষ হলো হ্যাজার্ড-ডিব্রুইনাদের।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সকে হারিয়ে ডেনিশ চমক
আরও পড়ুন