Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ১১ আগস্ট ২০২২, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯, ১২ মুহাররম ১৪৪৪

অভিবাসীদের সঙ্গে ইইউর সংহতির সমালোচনা ভূমধ্যসাগরীয় দেশগুলোর

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৬ জুন, ২০২২, ১২:০২ এএম

ভূমধ্যসাগরে ইউরোপীয় ইউনিয়নের পাঁচটি দেশ যারা আফ্রিকা থেকে ক্ষুধা-চালিত উদ্বাস্তুদের সম্ভাব্য ঢেউয়ের আশঙ্কা করছে, তারা গত শনিবার অভিবাসীদের সাথে ইউরোপীয় ইউনিয়নের ‘স্বেচ্ছাসেবী’ সংহতি বন্ধ করা এবং তাদের যত্ন নেওয়ার বোঝা পুনরায় বিতরণের একটি ভাল উপায় বের করার আহ্বান জানিয়েছে। ইতালি, সাইপ্রাস, গ্রীস, মাল্টা এবং স্পেনের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীরা রাশিয়ার অভিযানের কারণে ইউক্রেনের শস্য রফতানিতে অবরোধের ফলে আফ্রিকা থেকে বিপুল সংখ্যক শরণার্থী নিয়ে দক্ষিণ ইউরোপ প্লাবিত হতে পারে এমন উদ্বেগের মধ্যে ভেনিসে দুই দিনের আলোচনা শেষ করেছে।
সাইপ্রাসের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নিকোস নরিস সাংবাদিকদের বলেছেন, অভিবাসনের বিষয়ে একটি শক্তিশালী, সাধারণ ইইউ নীতি প্রয়োজন। নুরিস বলেন, ‘সংহতি একটি সেøাগান নয়, বা এটি পদার্থ বর্জিত হতে পারে না’।
পূর্ববর্তী ইইউ নীতিগুলো যেখানে সদস্য রাষ্ট্রগুলো ইতালি, গ্রীস এবং অন্যান্য দক্ষিণ উপকূলে অবতরণকারী কয়েক লাখ অভিবাসীকে গ্রহণ করার প্রস্তাব দিতে পারে তা সম্পূর্ণরূপে অপর্যাপ্ত প্রমাণিত হয়েছিল। ইইউর অনেক দেশই এগোয়নি। অন্যরা, এমনকি তারা চোরাকারবারীদের অচল নৌযান থেকে উদ্ধার করা কয়েক লাখ অভিবাসীর মধ্যে স্বল্প সংখ্যাককে নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল, তা পালন করেনি।
নুরিস বলেন, ‘আমাদের মনে সংহতি স্বেচ্ছায় হতে পারে না’। তিনি বলেন, সাইপ্রাস থেকে অভিবাসী নেওয়ার অনেক বছর পর এখন পূর্ব ভূমধ্যসাগরীয় দ্বীপ-দেশটির জনসংখ্যার ৫ শতাংশ আশ্রয়প্রার্থীদের নিয়ে গঠিত। এ বৈঠকে পোল্যান্ড, হাঙ্গেরি এবং রোমানিয়ার মতো উত্তর ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলোতে সম্প্রতি আসা লক্ষাধিক ইউক্রেনীয় শরণার্থীর কথা বলা হয়নি।
আফ্রিকায় খরা এবং যুদ্ধের আগেও খাদ্যের দাম বৃদ্ধির ফলে সোমালিয়া, মিসর এবং অন্যান্য দরিদ্র দেশগুলোতে ইউক্রেনীয় শস্য পাঠানো অসম্ভব, ইতোমধ্যেই অনাহারে থাকা মানুষদের আশঙ্কার মধ্যে ইউরোপ কীভাবে বিপুল সংখ্যক অভিবাসীকে পরিচালনা করে যা উদ্বেগজনক সংখ্যা বাড়াতে পারে।
সাহেল, সাহারা মরুভূমির ঠিক নীচে আফ্রিকার অংশে, আনুমানিক ১ কোটি ৮০ লাখ মানুষ তীব্র ক্ষুধার সম্মুখীন, কারণ কৃষকরা এক দশকেরও বেশি সময় ধরে তাদের সবচেয়ে খারাপ উৎপাদন মৌসুমের মুখোমুখি।
ইতালির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী লুসিয়ানা ল্যামোরগেস ইউক্রেনে শস্য অবরোধকে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্যদের মধ্যে ‘অভিবাসীদের বিতরণ করার জন্য পর্যাপ্ত ব্যবস্থা’ গড়ে তোলার আরেকটি কারণ হিসাবে উল্লেখ করেছেন।
এটি এমন দেশগুলোর সাথে আরো প্রত্যাবাসন চুক্তির জন্য চাপ দেয় যেগুলোর লোকেরা ইউরোপে একটি উন্নত জীবন চাইছে, কিন্তু তাদের আশ্রয়ের আবেদন প্রত্যাখ্যান করা হয়েছিল, কারণ তারা যুদ্ধ বা নিপীড়ন নয়, দারিদ্র্য থেকে পালিয়েছিল।
ইতালির তিউনিসিয়ার সাথে একটি কার্যকর প্রত্যাবাসন চুক্তি রয়েছে, তবে আফ্রিকা বা এশিয়ার অন্যান্য দেশের সাথে নয়, যাদের নাগরিকরা দক্ষিণ ইউরোপীয় উপকূলে পৌঁছানোর চেষ্টা করার জন্য চোরাকারবারীদের নৌকা নিয়ে যায়। ফলস্বরূপ, তাদের আশ্রয়ের আবেদন ব্যর্থ হলেও অনেক অভিবাসী ইতালিতে থেকে যায়, প্রায়ই অবৈধ কাজ করে বা ভিক্ষা করে।
গ্রিসের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অভিবাসনের আরো আইনি পথের প্রতি সমর্থন প্রকাশ করেছেন। মন্ত্রী নোটিশ মিতারাচি সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা চোরাকারবারীদের সিদ্ধান্ত নিতে দিতে পারি না যে, কে ইউরোপে বসবাস করতে আসবে’। সূত্র : এপি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইইউ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ