Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ১১ আগস্ট ২০২২, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯, ১২ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

গোয়ালন্দে মানসিক ভারসাম্যহীন বৃদ্ধকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে আহত-

গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৬ জুন, ২০২২, ৪:৫১ পিএম

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে অজ্ঞাত পরিচয়ধারী মানসিক ভারসাম্যহীন এক বৃদ্ধকে (৬৫) নৃশংসভাবে কুপিয়ে আহত করেছে দূর্বৃত্তরা।

সোমবার (০৬ জুন) সকাল ৯ টার দিকে পুলিশ ও কয়েকজন যুবক গোয়ালন্দ রাবেয়া ইদ্রিস মহিলা ডিগ্রি কলেজের সামনের যাত্রী ছাউনির ভিতর থেকে ওই বৃদ্ধকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। পরে তার অবস্থা আশংকাজনক হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।
স্হানীয় কয়েকজন বলেন, এই লোকটা বিগত ৫ বছর যাবত গোয়ালন্দের বিভিন্ন এলাকায় থাকতেন। কিছুদিন ধরে তিনি এই যাত্রী ছাউনির নিচে থাকতে শুরু করেন। তবে কে বা কারা এই নৃশংস ঘটনা ঘটিয়েছে নাকি সে পূর্ববর্তী কোন শত্রুতার শিকার হয়েছেন সে সম্পর্কে কোন তথ্য পাওয়া যায় নি।
গোয়ালন্দ পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা রতন শেখ , সোহেল রানা, ইমরান ফকিরসহ কয়েকজন জানান, তারা সকাল সারে ৮ টার দিকে জামতলা বাজারে অবস্থান করছিলেন।এ সময় স্হানীয় কয়েকজনের কাছ থেকে জানতে পারেন রাবেয়া ইদ্রিস মহিলা ডিগ্রি কলেজের সামনের যাত্রী ছাউনির ভিতরে এক বৃদ্ধ রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছেন। আমরা তৎক্ষনাৎ সেখানে গিয়ে তাকে বিভৎস অবস্থায় দেখে ভয় পেয়ে যাই। সেখানে একজন হাইওয়ে পুলিশকে দেখতে পাই। আমরা বৃদ্ধকে হাসপাতালে নিতে চাইলে পুলিশ বলে আমাদের গাড়ি আসছে তারপর নিব। গাড়ি আসতে দেরি হলে আমরা তাকে অটোতে নিয়ে আসতে চাইলে পুলিশ বাঁধা দেয়। প্রায় একঘন্টা পড়ে থাকার পর পুলিশের গাড়ি না দেখে আমরা পুলিশের নিষেধ অমান্য করেই বৃদ্ধকে হাসপাতালে নিয়ে যাই। পুলিশও আমাদের সাথে যায়।

গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ শাহ মোঃ শরিফ জানান, বৃদ্ধের মাথায়, কপালে ও হাতে ধারালো অস্ত্রের গভীর আঘাত রয়েছে। এ রকম একজন দূর্বল বৃদ্ধকে হত্যার উদ্দেশ্যে নৃশংসভাবে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে তা খুবই নির্মমতার কাজ বলে তিনি মন্তব্য করেন।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) স্বপন কুমার মজুমদার জানান, কিছুদিন আগে এ রকম মানষিক ভারসাম্যহীন এক বৃদ্ধকে এলাকার একটি কলেজের বারান্দায় কুপিয়ে হত্যা করে দূর্বৃত্তরা। সেই ঘটনার সাথে আজকের এই ঘটনার অনেকটাই মিল রয়েছে। ঘটনার রহস্য উদঘাটন ও এ ঘটনার সাথে জড়িতদের খুঁজে বের করার চেষ্টা চালছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আহত


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ