Inqilab Logo

বুধবার, ১৭ আগস্ট ২০২২, ০২ ভাদ্র ১৪২৯, ১৮ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

রাশিয়ার রিজার্ভ পূরণ করছে সুদানের স্বর্ণ খনি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৬ জুন, ২০২২, ৬:০৫ পিএম

রাশিয়ান অলিগার্ক ইয়েভজেনি প্রিগোজিন, যিনি ‘পুতিনের শেফ’ নামেও পরিচিত, সুদানে প্রাইভেট মিলিটারি কোম্পানি ওয়াগনারের কার্যক্রম পরিচালনা ও অর্থায়ন করেন, যেখানে অন্যান্য জিনিসের মধ্যে, পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার কারণে রাশিয়ার অর্থনৈতিক ক্ষতি পূরণের জন্য তারা খনি থেকে সোনা উত্তোলন করে। রোববার নিউইয়র্ক টাইমস প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ দাবি করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে, ওয়াগনার পিএমসি, যেটি পূর্বে কেবলমাত্র রাশিয়ান ভাড়াটেদের একটি গ্রুপ হিসাবে বিবেচিত হতো, তারা এখন খনি কোম্পানিগুলোর একটি নেটওয়ার্কে পরিণত হয়েছে। ইউএস স্টেট ডিপার্টমেন্ট প্রিগোজিনকে সুদানের খনি কোম্পানি মেরো গোল্ডের মালিক হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। ওয়াগনার গ্রুপ এখন আর শুধুমাত্র ভাড়াটে যোদ্ধা সরবরাহকারী নয়, তারা এখন ক্রেমলিনের শক্তির একটি হাতিয়ার হয়ে উঠেছে, যাদের মাধ্যমে রাশিয়া অর্থ উপার্জন করে এবং তার স্বর্ণ ও বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ পুনরায় পূরণ করে।

তদন্ত অনুসারে, ওয়াগনারের অপারেশনগুলোর মধ্যে, সুদানে সোনার খনির জন্য লাভজনক ছাড় পাচ্ছে, যা সম্ভাব্যভাবে রাশিয়ার ১৩ হাজার কোটি ডলারের মূল্যমানের সোনার মজুদ বৃদ্ধি করতে সাহায্য করতে পারে। মার্কিন কর্মকর্তাদের দাবি, এ স্বর্ণ ইউক্রেনের বিরুদ্ধে রাশিয়ার যুদ্ধের উপর নিষেধাজ্ঞার প্রভাব কমাতে ব্যবহৃত হয়৷

নিউইয়র্ক টাইমস-এর মতে, ২০১৯ সালে সুদানের প্রেসিডেন্ট ওমর আল-বশিরের পতনের এক সপ্তাহ পরে, প্রিগোজিনের বিমানটি একটি রাশিয়ান সামরিক প্রতিনিধিদলকে নিয়ে রাজধানী খার্তুমে পৌঁছেছিল এবং তারপরে মস্কোতে ফিরে এসেছিল। ওই বিমানে উচ্চ পদস্থ সুদানী প্রতিরক্ষা কর্মকর্তাদের নিয়ে মস্কোতে যান ফিল্ড কমান্ডার এবং বাহিনীর নেতা মোহাম্মদ হামদান দাগালোর ভাই অপারেশনাল সাপোর্ট কমান্ডার রাহিদ আবগালো আবদেল।

তদন্তে আরও উল্লেখ করা হয়েছে যে, ৫ জুন, ২০১৯-এ, অপারেশনাল সাপোর্ট ফোর্স দ্বারা পরিচালিত খার্তুমে রক্তক্ষয়ী গণহত্যার দুই দিন পর, প্রিগোজিনের মেরো গোল্ড কোম্পানি জেনারেল হামদানের পরিবার নিয়ন্ত্রিত কোম্পানির জন্য ১৩ টন দাঙ্গা পুলিশ ঢাল, সেইসাথে হেলমেট এবং ব্যাটন আমদানি করেছিল।

উল্লেখ্য, রাশিয়া লোহিত সাগরে একটি নৌ ঘাঁটি তৈরি করতে এবং সেখানে পারমাণবিক জাহাজ মোতায়েন করতে চায়। প্রকাশনা অনুসারে, ওয়াগনার পুতিনকে উল্লিখিত পরিকল্পনাগুলো বাস্তবায়ন করতে সহায়তা করছে। এই লক্ষ্যে, ওয়াগনেরাইটরা গৃহযুদ্ধ এবং সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। সংবাদপত্রের অনুসন্ধানের একটি লিখিত প্রতিক্রিয়ায়, প্রিগোজিন সুদানে খনির সাথে জড়িত থাকার কথা, মেরো গোল্ডের মালিকানা বা ওয়াগনার গ্রুপের সাথে কোনো সম্পর্কের কথা অস্বীকার করেছেন। সূত্র: নিউইয়র্ক টাইমস।

 



 

Show all comments
  • jack ali ৯ জুন, ২০২২, ১১:২৭ এএম says : 0
    এই মুসলিম নামধারী মুনাফিকরা কাফেরদেরকে সব দিক থেকে সাহায্য করো এইজন্যই কাফেররা আজকে মুসলিমদের কে হত্যা করে আবার এই মুসলিম নামধারী ঘুরতে তাগুত সরকারের ইসলামের নাম শুনলেই ওদের মাথায় আগুন ধরে যায় সেইজন্যই ওরা মুসলিমদেরকে হত্যা করে গুম করে
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ