Inqilab Logo

বৃহস্পিতবার, ১৮ আগস্ট ২০২২, ০৩ ভাদ্র ১৪২৯, ১৯ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

রুয়েটের অনিয়ম তদন্ত করলো ইউজিসি

রাজশাহী ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ৬ জুন, ২০২২, ৭:৩৯ পিএম

রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের ২৬ কোটি টাকার প্রকল্পে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)। দুইদিনের সফরে রোববার ইউজিসির তিন কর্মকর্তা রুয়েটে এসেছেন। তারা কিছু নথিপত্র সংগ্রহ করেছেন। সোমবারও তারা প্রকল্পের বিষয়ে সবকিছু তদন্ত করেন।
জানা গেছে, সরকারি সংস্থার মাধ্যমেই রুয়েটের একটি বিভাগ খোলার প্রকল্পে অনিয়মের বিষয়ে জানতে পারে ইউজিসি। এ নিয়ে ইউজিসির সচিব এবং পরিকল্পনা ও উন্নয়ন বিভাগের পরিচালক ড. ফেরদৌস জামান এবং দুই উপপরিচালক রোকসানা লায়লা এবং মো. আব্দুল আলীমকে বিষয়টি খতিয়ে দেখার দায়িত্ব দেওয়া হয়।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, রুয়েটে গ্লাস অ্যান্ড সিরামিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ চালু করতে ২৬ কোটি ১১ লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। ২০১৬ সালে প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হয়। এ প্রকল্প পরিচালক (পিডি) হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন মোট পাঁচজন। সবশেষ পিডি ছিলেন অধ্যাপক ড. আবদুল আলীম। তার বিরুদ্ধে প্রকল্প শেষে বেঁচে যাওয়া টাকা সরকারী কোষাগারে জমা না দেওয়ার অভিযোগ পেয়েছে ইউজিসি। প্রকল্পে প্রায় ১৩ কোটি টাকা নয়ছয় হয়েছে বলে অভিযোগ পেয়েছে ইউজিসি।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে প্রকল্প বাস্তবায়নে কোন অনিয়ম হয়নি দাবি করে ড. আবদুল আলীম বলেন, ইউজিসির সচিবসহ অন্য দুই উপপরিচালক রুয়েটে এসে তাঁর সঙ্গে কথা বলেছেন। তবে তার আগের চার পিডিকে ডাকা হয়নি। ইউজিসি যে টাকা দিয়েছিল তা ঠিকঠাক খরচ হয়েছে কি না, কোন ধরনের যন্ত্রপাতি কেনা হয়েছে এসব দেখতে কর্মকর্তারা এসেছেন। প্রকল্পের ব্যাংক হিসাবে একক স্বাক্ষর দিয়ে টাকা তোলা যায় না। তাই কোন অনিয়মও হয়নি বলেও দাবি করেন রুয়েটের এই অধ্যাপক।
জানতে চাইলে ইউজিসির সচিব ড. ফেরদৌস জামান বলেন, ‘সরকারের একটি সংস্থার মাধ্যমেই আমরা কিছু অনিয়মের খবর পেয়েছি। সেগুলো খতিয়ে দেখতেই আমরা রুয়েটে এসেছি। দুপুরের পর আমরা কিছু কাগজপত্র সংগ্রহ করেছি। আগামীকাল সোমবার আবার সবকিছু দেখলাম। যাচাই বাছাই করে তারপর অনিয়ম হয়েছে কী না আমরা সেই সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পারব। #

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইউজিসি

২১ জানুয়ারি, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ