Inqilab Logo

বৃহস্পিতবার, ১৮ আগস্ট ২০২২, ০৩ ভাদ্র ১৪২৯, ১৯ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

নৃশংস ও জঘন্য ঘৃণাভাষণকে ধিক্কার, নূপুরদের গ্রেফতারির দাবি মমতার

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৯ জুন, ২০২২, ৬:১৬ পিএম | আপডেট : ৬:৪১ পিএম, ৯ জুন, ২০২২

বিজেপির সাবেক (সাসপেন্ডেড) মুখপাত্র নূপুর শর্মা এবং বহিষ্কৃত মুখপাত্র নবীন জিন্দলের আপত্তিকর মন্তব্য নিয়ে এ বার প্রতিবাদ জানালেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ওই ঘটনাকে তীব্র ধিক্কার জানিয়ে টুইটারে দোষীদের গ্রেফতারির দাবি জানিয়েছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। পাশাপাশি জনগণের বৃহত্তর স্বার্থে শান্তি ও শৃঙ্খলা বজায় রাখার আবেদন জানিয়েছেন।

সম্প্রতি একটি সংবাদমাধ্যম আয়োজিত বিতর্কসভায় বিতর্কিত মন্তব্য করেন নূপুর। তার পরে কার্যত একই কথা টুইট করেন গেরুয়া শিবিরের আর এক মুখপাত্র নবীন জিন্দল। তা নিয়ে হইচই শুরু হতেই নূপুরকে সাসপেন্ড এবং নবীনকে বহিষ্কার করে বিজেপি। যদিও তাতে বিতর্ক ধামাচাপা পড়েনি। মধ্য-পূর্ব এশিয়ায় ভারতের পণ্য বয়কট শুরু হয়ে যায়। কাতারের মতো কয়েকটি দেশ সে সব দেশে ভারতীয় রাষ্ট্রদূতকে ডেকে আপত্তির কথা জানায়। সব মিলিয়ে আবর দুনিয়ায় ভারতের ভাবমূর্তি কালিমালিপ্ত হয়েছে বলে মনে করছেন অনেকেই। এ বার সেই প্রেক্ষিতে ঘটনার নিন্দা করলেন মমতা।

পর পর তিনটি টুইটে তিনি লিখেছেন, ‘বিজেপির ধ্বংসাত্মক কয়েক জন নেতার করা জঘন্য এবং নৃশংস ঘৃণাভাষণকে ধিক্কার। এতে শুধু যে হিংসা ছড়ায় তা-ই নয়, আমাদের দেশের বৈচিত্রময় সংস্কৃতিও ক্ষুণ্ণ হয়। আমি অভিযুক্ত বিজেপি নেতাদের অবিলম্বে গ্রেফতার চাই।’ মুখ্যমন্ত্রী টুইটে জনগণের বৃহত্তর স্বার্থে সব ধর্ম, বর্ণ, জাতির মানুষকে শান্তি বজায় রাখারও আবেদন জানিয়েছেন।

নূপুর, নবীনের মন্তব্য ও টুইট নিয়ে বেজায় বেকায়দায় পড়েছে শাসকদল বিজেপি। যদিও এখনও পর্যন্ত এ প্রসঙ্গে একটি শব্দও উচ্চারণ করেননি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এ বার সেই মোদী সরকারের উপরই চাপ বাড়িয়ে দোষীদের অবিলম্বে গ্রেফতারির দাবি তুললেন মমতা। সূত্র: টাইমস নাউ।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মমতা


আরও
আরও পড়ুন