Inqilab Logo

শনিবার, ১৩ আগস্ট ২০২২, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৪ মুহাররম ১৪৪৪

ওসমানীনগরে সংঘর্ষে পুলিশ এসল্ট মামলা : উভয় পক্ষের আসামী ৩শ

বালাগঞ্জ (সিলেট) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১০ জুন, ২০২২, ৯:৪৬ পিএম

সিলেটের ওসমানীনগরের তাজপুর বাজারে বৃহস্পতিবারে দু’পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় ওসমানীনগরে পুলিশ এসল্ট মামলা দায়ের করা হয়েছে। ওসমানীনগর থানার এসআই স্বাধীন চন্দ্র তালুকদার বাদী হয়ে আজ শুক্রবারে (১০ জুন) ওসমানীনগর থানায় এ মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় পুলিশ তারেক মিয়া, রাজু আহমদ ও মো: কবিরসহ উভয় পক্ষের অজ্ঞাতনাম ৩০০ জনকে আসামি করে পুলিশ এসল্ট মামলা দায়ের করা হয়।

মামলার এজাহার সুত্রে জানা যায়, ৯ জুন বৃহস্পতিবার দুপুর ১টায় সিলেট ওসমানীনগর থানার তাজপুর ডিগ্রী কলেজের ক্যাম্পাসে এইচএসসি ২য় বর্ষের ছাত্র উপজেলার কাদিপুর গ্রামের শায়েস্তা মিয়ার ছেলে তারেক মিয়া (২২), এবং একই কলেজের এইচএসসি ১ম বর্ষের ছাত্র দির গয়াসপুর গ্রামের তেরাব আলীর ছেলে কবির মিয়া (২৩) মধ্যে সিনিয়র-জুনিয়র বিষয় নিয়ে তর্কাতর্কি হাতাহাতি ও মারামারির ঘটনা ঘটে। বিষয়টি স্থানীয়ভাবে আপোষ মীমাংসা চলমান থাকা অবস্থায় বিরোধটি উক্ত ছাত্র দুজনের গ্রামের লোকদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে। এর ধারাবাহিকতায় অভিযুক্ত তারেক মিয়া কাদিপুর গ্রামবাসীসহ অন্যান্য এলাকার প্রায় ১৫০ জন অজ্ঞাতনামা লোকজন এবং অভিযুক্ত কবির মিয়া পক্ষে দিগরগয়াসপুর, কাশিপাড়া গ্রামবাসীসহ অন্যান্য এলাকার প্রায় ১৫০ জন অজ্ঞাতনামা লোকজন দু’পক্ষ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে ইট পাটকেল নিক্ষেপসহ ভাংচুর করে। ঢাকা-সিলেট মহা-সড়ক অবৈধভাবে অবরোধ করে।এ সময় দফায় দফায় পরস্পর সংঘর্ষে লিপ্ত হয়ে পড়ে। তাজপুর বাজারের একাধিক দোকান-পাট ভাংচুর করে লক্ষাধিক টাকা ক্ষতিসাধন করে।
অভিযোগে বলা হয়, এস আই স্বাধীন চন্দ্র পুলিশসহ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। এ সময় স্থানীয় তাজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কলক পালসহ আরো গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। সবাই মিলে উভয় পক্ষকে শান্ত করার চেষ্টা করেন। এক পর্যায় হ্যান্ড মাইকের মাধ্যমে দাঙ্গা অনুষ্ঠানকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে এবং বেআইনী কার্যক্রম বন্ধের জন্য মৌখিকভাবে অনুরোধ করেন এসআই স্বাধীন। দাঙ্গাকারীদের বন্ধ করতে না পারায় উভয় পক্ষের উপর লাঠি চার্জ করাসহ বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহন করেন। কোনভাবেই পক্ষকে দমিয়ে রাখতে না পারায় আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাাবিক করার লক্ষে শর্টগান হইতে ১০ রাউন্ড রাবার বুলেট ফায়ার করেন। স্থানীয় আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রনে পর ওসমানীনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে তাজপুর বাজারের সকল দোকান পাট ১০ জুন শুক্রবার সকাল ১০ পর্যন্ত বন্ধ ঘোষনা করেন।
অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, ঘটনায় অজ্ঞাতনামা দাঙ্গাকারীদের দ্বারা ঘটনাস্থলের সরকারি দায়িত্বে নিয়োজিত থাকা অবস্থায় এসআই/নি: শাহ আলম মিয়া, তৌফিকুল ইসলাম, সারোয়ার হোসেন আহত হন।

ওসমানীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম মাইন উদ্দিন পুলিশ এসল্ট মামলা দায়েরের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মামলার এজাহার ূক্ত আসামিসহ ঘটনার সাথে জড়িত কাউকে এখনও গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি। পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। আসামি গ্রেফতারে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার বেলা পৌনে ২টার দিকে তাজপুর করেজের দুই শিক্ষার্থীর মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে হাতাহাতি হয়। এ বিষয়কে কেন্দ্র বিকেলে তাজপুর বাজারে দফায় দফায় সংঘর্ষ ঘটে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মামলা


আরও
আরও পড়ুন