Inqilab Logo

বুধবার, ১৭ আগস্ট ২০২২, ০২ ভাদ্র ১৪২৯, ১৮ মুহাররম ১৪৪৪

উচ্চ হতাহতের হার ইউক্রেনকে যুদ্ধের শেষ প্রান্তে ঠেলে দিচ্ছে

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১১ জুন, ২০২২, ৪:৫৪ পিএম

আপনি যেভাবেই এটি গণনা করুন না কেন, পরিসংখ্যানটি কঠোর: ইউক্রেনীয় হতাহতের হার প্রতিদিন ৬০০ থেকে ১০০০ এর মধ্যে চলছে। প্রেসিডেন্টের একজন উপদেষ্টা, ওলেক্সি আরেস্টোভিচ, এই সপ্তাহে গার্ডিয়ানকে বলেছেন, প্রতিদিন ১৫০ জন নিহত এবং ৮০০ জন আহত হচ্ছে; আরেকজন, মাইখাইলো পোডোলিয়াক, বিবিসিকে বলেছেন যে, প্রতিদিন ১০০ থেকে ২০০ ইউক্রেনীয় সেনা নিহত হচ্ছে।

নিছক সংখ্যা - প্রতি মাসে ২০ হাজারেরও বেশি হতাহতের সংখ্যা - যুদ্ধ শরৎকালে টেনে নিয়ে গেলে ইউক্রেনের সেনাবাহিনী কী অবস্থায় থাকবে তা নিয়ে প্রশ্ন তোলে। কিয়েভের বাহিনী পতন এখনও না হলেও কয়েক মাসের উচ্চ হতাহতের কারণে তাদের লড়াইয়ের শক্তি উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস পাবে। এদিকে, ইউক্রেনের বাহিনী ইতিমধ্যেই ডনবাস আর্টিলারি বোমাবর্ষণের কারণে কোনঠাসা হয়ে পড়েছে এবং সেখান থেকে বেঁচে থাকা অনেকের উপর শেল-শক প্রভাব ফেলতে পারে। মনোবল হারিয়ে এখন ইউক্রেনের সেনারা পালিয়ে যাচ্ছে বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে।

তাই চাপের পরিস্থিতি যে যুদ্ধের অভিজ্ঞতা সম্পন্ন বিদেশীরা যারা আন্তর্জাতিক সৈন্যবাহিনীতে যোগদানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয় তারা ইউক্রেনের সীমান্ত অতিক্রম করার পর এক মাসেরও কম সময়ের মধ্যে ফ্রন্টলাইন থেকে পালাতে পারে। কিন্তু আবার, এখন যে উচ্চ স্তরের হতাহতের কথা খোলামেলাভাবে আলোচনা করা হচ্ছে তা ভবিষ্যতে নিয়োগকারীদের জন্য প্রতিবন্ধক হিসেবে কাজ করতে পারে।

গোলাবারুদ অবশ্যই ইউক্রেনীয় পক্ষের স্বল্পতা রয়েছে, এটি তাদের নিজস্ব স্বীকারোক্তি। ইউক্রেনের সামরিক গোয়েন্দা বিভাগের উপ-প্রধান ভাদিম স্কিবিটস্কি বলেছেন, ইউক্রেন প্রতিদিন ৫ থেকে ৬ হাজার আর্টিলারি রাউন্ড ব্যবহার করছে এবং তাদের সোভিয়েত ১৫২ মিমি স্ট্যান্ডার্ড শেলগুলির মজুদ ‘প্রায় শেষ’ হয়েছে। তারা এখন ন্যাটো-স্ট্যান্ডার্ড ১৫৫ মিমি হাউইটজারের উপর নির্ভর করছে; এর মধ্যে কতগুলি আছে তা স্পষ্ট নয়।

পশ্চিমা কর্মকর্তারা রক্ষকদের উপর যুদ্ধের প্রভাব নিয়ে আলোচনা করতে পছন্দ করেন না, পরিবর্তে তাদের ব্রিফিংয়ে রাশিয়ানদের জন্য সমস্যাগুলি তুলে ধরেন। তারা রুশ সেনাদের মৃত্যুর খবর তুলে ধরছে। কিন্তু তারা ইউক্রেনের জন্য অনুরূপ অনুমান প্রদান না করা বেছে নিয়েছে, যা একটি একমুখী ধারণা তৈরি করতে পারে যে, রাশিয়ানদের অবস্থাই শুধু আরও খারাপ হচ্ছে। প্রকৃতপক্ষে, ইউক্রেনীরা অস্ত্র ও জনবল সঙ্কটে ভুগছে। বরং রাশিয়ানদের হতাহতের হার এই মুহূর্তে অনেক কম, কারণ আর্টিলারি সুবিধার কারণে তারা ইউক্রেনীয়দের চেয়ে আরও বেশি দূরত্ব থেকে মৃত্যু মোকাবেলা করতে সক্ষম। সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান।

 



 

Show all comments
  • Md.Elias patowary ১২ জুন, ২০২২, ৯:৩৩ এএম says : 0
    পরের জন্য গর্ত খুড়লে নিজেকে পড়তে হয়।গত বছর যখন সন্ত্রাসী ইজরায়েল ফিলিস্তিনে নির্বিচার বোমা ফেলে ফিলিস্তিনিদের হত্যা করছিল তখন কপট জেলেনস্কি তার প্রভু ইজরায়েল কে অস্ত্র দিয়ে সাহায্য করেছিল। এখন নিজের ঘরে বোমা পড়ছে। স্বাদ টা মনে হয় অনুভব করতে সহজ হচ্ছে।অভিশপ্ত ইয়াহুদিরা এমনই জগন্য প্রকৃতির হয়।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ