Inqilab Logo

সোমবার, ১৫ আগস্ট ২০২২, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৬ মুহাররম ১৪৪৪

র‌্যাংকিং নিয়ে ভাবতে চান না ঢাবি ভিসি

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার : | প্রকাশের সময় : ১৩ জুন, ২০২২, ১২:০৫ এএম

মৌলিক প্যারামিটারগুলোর (সূচক) মান নিশ্চিত করার আগে বিশ্বসেরা বিশ্ববিদ্যালয়ের র‌্যাংকিংয়ে নিজেদের অবস্থান নিয়ে ভাবতে চান না ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. মো. আখতারুজ্জামান। তিনি বলেন, র‌্যাঙ্কিংয়ের দিকে আমাদের অ্যাটেনশন নেই। তবে শিক্ষার গুণগত মান উন্নয়ন, মৌলিক গবেষণার ক্ষেত্র সম্প্রসারণ ও আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে র‌্যাঙ্কিংয়ের জন্য যে প্যারামিটারগুলো আছে, সেগুলো অ্যাড্রেস করা খুব জরুরি। গবেষণা, বিদেশী শিক্ষার্থী, বিদেশী শিক্ষক, শিক্ষার সামগ্রীক পরিবেশ, শিক্ষার্থীদের জীবনমান- এই সব সূচকের আলোকে বিশ্ববিদ্যালয় তৈরি করতে পারলে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে আমাদের অবস্থান আরো স্পষ্ট হবে।
গতকাল শনিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার কেন্দ্র পরিদর্শন গিয়ে তিনি এসব কথা বলেন। যুক্তরাজ্যভিত্তিক শিক্ষা ও গবেষণা সংস্থা কোয়াককোয়ারেলি সায়মন্ডস (কিউএস) গত বুধবার তাদের ওয়েবসাইটে ‘কিউএস ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি র‌্যাংকিং ২০২৩’ শীর্ষক ১৪ শতাধিক বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকা প্রকাশ করে। সেই তালিকায় প্রতিবেশী দেশ ভারতের নয়টি এবং পাকিস্তানের তিনটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বিশ্বসেরা ৫০০ বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকায় স্থান পেলেও বাংলাদেশের নেই একটিও। কিউএস র‌্যাংকিয়ে সেরা ৫০০ বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্দিষ্ট অবস্থান ও স্কোর প্রকাশ করা হয়। এর পরে থাকা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর অবস্থান সুনির্দিষ্ট করে উল্লেখ করা হয় না। আগের মত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও বাংলাদেশে প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) ৮০১-১০০০তম স্থানে রয়েছে। এছাড়া ১০০১-১২০০তম বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকায় রয়েছে দেশের ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয় ও নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়। ২০১২ সালে কিউএস র‌্যাংকিংয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ছিল ৬০১ এর মধ্যে। ২০১৪ সালে তা পিছিয়ে ৭০১তম অবস্থানের পরে চলে যায়। ২০১৯ সালে তালিকায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান আরও পেছনের দিকে চলে যায়। ২০২১ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ছিল ৮০১ থেকে ১০০০-এর মধ্যে।
আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত কিউএস র‌্যাংকিং ২০০৪ থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত যুক্তরাজ্যভিত্তিক শিক্ষা সাময়িকী টাইমস হায়ার এডুকেশনের সঙ্গে যৌথভাবে ‘সেরা বিশ্ববিদ্যালয়ের’ তালিকা প্রকাশ করছিল; ২০১০ সালে আলাদা হয়ে যায় কিউএস।
ছয়টি সূচকে মোট ১০০ নম্বরে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মূল্যায়ন করে কিউএস। এর মধ্যে একাডেমিক খ্যাতি ৪০, চাকরির বাজারে সুনাম ১০, শিক্ষক-শিক্ষার্থী অনুপাত ২০, শিক্ষকদের গবেষণা ২০ এবং আন্তর্জাতিক শিক্ষক অনুপাত ও আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থী অনুপাতে ৫ নম্বর করে ধরা হয়। ২০২৩ সালের কিউএসের তালিকায় টানা ১১ বারের মতো প্রথম স্থানে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি (এমআইটি)। দ্বিতীয় স্থানে ইউনিভার্সিটি অব ক্যামব্রিজ, তৃতীয় স্থানে স্ট্যানফোর্ড ইউনিভার্সিটি, চতুর্থ স্থানে ইউনিভার্সিটি অব অক্সফোর্ড ও পঞ্চম স্থানে হার্ভাড ইউনিভার্সিটি রয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ঢাবি ভিসি


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ