Inqilab Logo

বৃহস্পিতবার, ১৮ আগস্ট ২০২২, ০৩ ভাদ্র ১৪২৯, ১৯ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে সম্পৃক্ত হতে চায় বাংলাদেশ

মতবিনিময় সভায় সালমান এফ রহমান

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৪ জুন, ২০২২, ১২:০০ এএম

চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে এতে সফলভাবে সম্পৃক্ত হতে সরকারের নানা পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান। গতকাল সোমবার স্যামস্যাং রিসার্স অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ইনন্সিটিউট পরিদর্শন করতে এসে এক মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা জানান।

সালমান এফ রহমান বলেন, রোবোটিক্স, আর্টিফিশিয়াল ইন্টিলিজেন্স, কোয়ান্টাম ম্যাকানিক্স নিয়ে কাজ করতে হলে প্রথমে আমাদের কোডিং এর ভাষা শিখতে হবে। এই জন্য আমরা প্রাইমারি স্কুল পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের কোডিং এর ধারণা দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছি, যা পরবর্তীতে তাদের দক্ষ প্রোগ্রামার হতে সহায়তা করবে। প্রধানমন্ত্রীর এই উপদেষ্টা আরো বলেন, তথ্য প্রযুক্তিতে দেশের নতুন প্রজন্মকে এগিয়ে নিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় সরকার বিভিন্ন ধরনের কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। আমরা ইতিমধ্যে ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ বাস্তবায়ন করেছি। আমরা এখন ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ প্রতিষ্ঠার দিকে এগিয়ে যাচ্ছি। এ সকল কাজে কোরিয়া সব সময় আমাদের সহযোগিতা করে আসছে।

স্যামস্যাং রিসার্স অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ইনন্সিটিউটে বাংলাদেশের তরুণ প্রকৌশলীরা দক্ষতার সাথে কাজ করছে জেনে সন্তুষ্টি প্রকাশ করে দক্ষিণ কোরিয়ার সরকার এবং স্যামস্যাংকে ধন্যবাদ জানান সালমান এফ রহমান।
ইনন্সিটিউট কর্তৃপক্ষ জানায়, এখানে কাজের অভিজ্ঞতা নিয়ে বিদেশের মাটিতেও সুনামের সহিত কাজ করছে বাংলাদেশি তরুণ প্রকৌশলীরা। বাংলাদেশে অবস্থিত স্যামস্যাং রিসার্স অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ইনন্সিটিউটে আরো বেশি সংখ্যক বাংলাদেশি তরুণদের কাজের সুযোগ সৃষ্টিতে সহায়তার জন্য বাংলাদেশে নিযুক্ত দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত লি জ্যাং কিউনের প্রতি আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রীর বিনিয়োগ উপদেষ্টা।

এ সময় বাংলাদেশে নিযুক্ত দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত লি জ্যাং কিউন বলেন, বিশ্বের ১৪টি দেশের মতো বাংলাদেশেও এই রিসার্স অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ইনন্সিটিউটটি চালু করা হয়েছে স্যামস্যাং গ্রুপের উদ্যেগে এবং দক্ষিণ কোরিয়ার সরকারের সহায়তায়। এখানে কর্মরত বাংলাদেশি রিসার্সার্চারদের কাজে সেন্টার কর্তৃপক্ষ ও রাষ্ট্রদূত সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন। রাষ্ট্রদূত মনে করেন, বাংলাদেশের সাথে সুসম্পর্কের ধারাবাহিকতায় আরো কোরিয়ান কম্পানি এদেশে বিনিয়োগে এগিয়ে আসবে এবং সেখানে বাংলাদেশি কর্মীরা কাজের সুযোগ পাবেন।
পরে তিনি এবং রাষ্ট্রদূত স্যামস্যাং রিসার্স অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ইনন্সিটিউটে বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা পরিদর্শন করেন এবং গবেষণা কার্যক্রম পযবেক্ষণ করেন।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দূতাবাসের প্রথম সচিব ইয়ংমিন শি, কোরিয়া ট্রেড ইনভেস্টমেন্ট প্রমোশন এজেন্সির মহাপরিচালক ডংহিউন কিম, স্যামস্যাং রিসার্স অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট সেন্টারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক উনমো কু ও প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টার একান্ত সচিব জাহিদুল ইসলাম ভূঞা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সালমান এফ রহমান


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ