Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ০৯ আগস্ট ২০২২, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯, ১০ মুহাররম ১৪৪৪ হিজরী
শিরোনাম

শাহরুখ খানও ছিলেন মাফিয়াদের নিশানায়!

বিনোদন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৪ জুন, ২০২২, ১০:৩৮ এএম

র‍্যাপার সিধু মুসেওয়ালা হত্যাকাণ্ডের পর নতুন করে আবারও আলোচনায় মাফিয়াভীতি। ইতোমধ্যেই মুসেওয়ালাকে হত্যার দায় স্বীকার করেছে এক গ্যাংস্টার। সেই খবর ছড়িয়ে পড়তেই অরিজিৎ সিং সহ বলিউডের অনেকেই জানিয়েছেন মাফিয়াদের সাথে তাদের তিক্ত অভিজ্ঞতার কথা। সম্প্রতি মৃত্যুর হুমকি পেয়েছেন সুপারস্টার সালমান খান ও তার বাবা সেলিম খান। তবে এটাই প্রথম নয়, এর আগে বলিউড বাদশা শাহরুখ খানও নিশানায় ছিলেন মাফিয়াদের।

ভারতের অন্যতম কুখ্যাত গ্যাংস্টার আবু সালেম। একটা সময় আন্ডারওয়ার্ল্ডের ডন ছিলেন। তার ভয়ে তটস্থ থাকত তাবড় তারকারাও। সেই আবু সালেম হুমকি দিয়েছিলেন বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খানকে! কিন্তু বিস্ময়কর ব্যাপার হলো, ভয় না পেয়ে শাহরুখ দারুণ কৌশলে সেই হুমকি থেকে নিজেকে মুক্ত করে ফেলেন। ঘটনাটি উঠে আসে অনুপমা চোপড়ার লেখা বই ‘কিং অব বলিউড: শাহরুখ খান অ্যান্ড দ্য সিডাক্টিভ ওয়ার্ল্ড অব ইন্ডিয়ান সিনেমা’তে।

সম্প্রতি সিধু মুসেওয়ালার খুন হওয়া ও সালমান খানের খুনের হুমকি পাওয়ার পর শাহরুখের ঘটনাও ফের উঠে আসছে সামনে।

সময়টা তখন ১৯৯৭ সাল। জনবহুল রাস্তায় প্রভাবশালী প্রযোজক গুলশান কুমার খুন হন। সেই ঘটনায় পুরো বলিউড ভয়ে কাঁপছিল। আরও কয়েকজন তারকাও নাকি তখন নিশানায় ছিলেন। তাদের একজন শাহরুখ খান। শোনা যায়, কিং খানকে খুন করতে নাকি শার্প শ্যুটারকে ভাড়াও করেছিলেন গ্যাংস্টার আবু সালেম। কারণ, সালেমের ঘনিষ্ঠ এক প্রযোজকের সিনেমায় কাজ করতে রাজি হননি শাহরুখ।

অনুপমা চোপড়ার লেখা বই ‘দ্য কিং অফ বলিউড’-এ এই অভিজ্ঞ সাংবাদিক লিখেছেন কীভাবে শাহরুখ খান আবু সালেমের মতো গ্যাংস্টারকে সমুচিন জবাব দিয়েছিলেন। যশ চোপড়ার পরিচালনায় ‘দিল তো পাগল হ্যায়’ ছবির শুটিং চলাকালীন একাধিক ফোন এসেছিল শাহরুখের কাছে। তবে দমে যাননি শাহরুখ, বরং পালটা হুঙ্কার তুলেছিলেন। বলেছিলেন, ‘আমি তোমাকে ঠিক করে দিই না তুমি কাকে গুলি করবে, তাহলে তুমিও আমাকে বলে দিও না আমি কোন ছবিতে কাজ করব’।

অনুপমা চোপড়া যোগ করেন, প্রথমবার যখন আবু সালেমের কাছ থেকে ফোন পান শাহরুখ, তখন প্রশ্ন করেছিলেন- কে বলছেন? ওই প্রান্ত থেকে হিন্দিতে একটি অশ্রাব্য গালি উড়ে আসে! এরপরেও নিজের মেজাজ হারাননি শাহরুখ। ইংরেজিতে নিজের বক্তব্য রাখেন অভিনেতা।

তবে ঝুঁকি আঁচ করতে পেরে মুম্বাই পুলিশ শাহরুখ খানের নিরাপত্তা বাড়িয়ে দেয়। তার সঙ্গে সার্বক্ষণিক দেহরক্ষী নিয়োগ করে। এমনকি কোথাও যাওয়ার সময় একাধিক গাড়ি বদল করে করে নিয়েও যাওয়া হতো কিং খানকে। জীবনের এই সময়টাকে অত্যন্ত ‘হতাশাজনক এবং ভয়ঙ্কর’ বলে উল্লেখ করেছেন শাহরুখ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বলিউড


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ