Inqilab Logo

শুক্রবার, ১৯ আগস্ট ২০২২, ০৪ ভাদ্র ১৪২৯, ২০ মুহাররম ১৪৪৪

হঠাৎ ভেঙে গেল বিটিএস!

বিনোদন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৬ জুন, ২০২২, ৯:৫৪ এএম

কয়েক বছর ধরেই কিশোর-তরুণদের উন্মাদনার আরেক নাম ‘বিটিএস আর্মি’। বিশ্বজুড়ে সংগীতপ্রেমীদের মনে জনপ্রিয়তার জাল বিছিয়ে রেখেছে দক্ষিণ কোরিয়ার এই ব্যান্ডটি। তাদের প্রতিটি গান মুক্তির পরই গড়ে নতুন রেকর্ড। কিন্তু হঠাৎ জানা গেল, ভেঙে যাচ্ছে বিটিএস। এখন থেকে তারা দলবদ্ধ হয়ে নয়, বরং একক ক্যারিয়ারে নজর দেবেন। অর্থাৎ যার যার মতো করে আলাদা গান করবেন।

১৩ জুন ব্যান্ডটির জন্য বিশেষ একটি দিন। ঠিক ৯ বছর আগে যাত্রা শুরু হয়েছিল ব্যান্ডটির। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী স্মরণে ১০ জুন মুক্তি পেয়েছে ব্যান্ডটির নতুন অ্যালবাম প্রুফ। সংকলিত এই অ্যালবামে গান রয়েছে ২৮টি। মুক্তির পর যথারীতি আলোচনার শীর্ষে চলে এসেছে অ্যালবামটি। এই নতুন গান প্রকাশের পর তিন দিনে ইউটিউবে গানটির ভিউ ৭৫ মিলিয়ন ছাড়িয়ে গেছে। তবে নতুন অ্যালবামের এই সাফল্যের উদ্‌যাপন মধ্যেই ভক্তদের মন খারাপ করা খবর দিল ব্যান্ডটি।

ব্যান্ডটির বার্ষিক ‘ফিসটা’ ডিনারে এমন মন খারাপ করা ঘোষণা দেন বিটিএসের অন্যতম সদস্য আরএম। এ সময় ব্যান্ডটির ভেঙে যাওয়ার কারণ হিসেবে জানানো হয়, সদস্যরা নিজদের একক ক্যারিয়ারের দিকে মনোযোগ দিতে চাচ্ছেন। সে কারণেই আলাদা হতে হচ্ছে তাদের।

আরএম বলেন, ‘আমি সবসময়ই বিটিএসকে অন্য ব্যান্ডগুলোর চেয়ে আলাদা ভেবেছি। কিন্তু কে-পপ ও পুরো ‘আইডল’ পদ্ধতির সমস্যা হলো এটা আপনাকে পরিণত হওয়ার সুযোগ দেবে না। আপনাকে গান চালিয়ে যেতে হবে এবং কিছু না কিছু করতে হবে।’

এক ভিডিও বার্তায় ব্যান্ডটির আরেক সদস্য সুগা বলেন, ‘আমরা এখন আলাদা হয়ে যাব।’ আরেক সদস্য জিমিন বলেছেন, ‘এখন আমাদের নতুন ভাবনা শুরু হলো। কী ধরনের শিল্পী হিসেবে ভক্তরা আমাদের মনের রাখব।’

বার্ষিক সেই ডিনারে বিটিএস সদস্যদের চোখ ছিল অশ্রুসিক্ত। বোঝা যাচ্ছিল, দীর্ঘ নয় বছরের এই পথচলা থেমে যাওয়ার ভারটা তাদের নিতে কষ্ট হচ্ছে। এখন ভেঙে গেলে ভবিষ্যতে আবারও একত্রিত হওয়ার সম্ভাবনা উড়িয়ে দেয়নি ব্যান্ডটি।

বিটিএসের অন্যতম সদস্য জাংকুক বলেন, ‘প্রতিজ্ঞা করছি নিশ্চিতভাবেই কখনও না কখনও আমরা এখনকার চেয়ে আরও পরিণত হয়ে ফিরে আসব।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সঙ্গীত


আরও
আরও পড়ুন