Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ১১ আগস্ট ২০২২, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯, ১২ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

ভয়াবহ পরিস্থিতির শঙ্কা হু হু করে বাড়ছে সংক্রমণ

দেশে করোনাভাইরাস

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৮ জুন, ২০২২, ১২:০০ এএম

সারাদেশে আবারও ভীতিকর রূপ নিচ্ছে প্রাণঘাতি করোনাভাইরাস। তবে দেশের জেলা শহরগুলোর তুলনায় মহানগরগুলোর করোনা সংক্রমণ বেশি ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। এরইমধ্যে রাজধানী ঢাকায় সংক্রমণ বেড়েছে উদ্বেগজনক হারে। ধারণা করা হচ্ছে, ঢাকায় দ্রুতই ভয়ংকর রূপ নিতে পারে করোনাকরোনায় টানা ১৮ দিন কেউ মারা না গেলেও সবশেষ ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৪৩৩ জন। যা গত ১৪ সপ্তাহে সর্বোচ্চ। গত ৮ মার্চ এর বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছিল একদিনে, সেদিন ৪৪৬ জনের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়েছিল। করোনা আবারও ভয়াবহ রূপ নেয়ায় সবাইকে শিগগিরই টিকার বুস্টার ডোজ নেয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক
গতকাল শুক্রবার যে ৪৩৩ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে তার মধ্যে ৩৯৩ জনই ঢাকা মহানগর ও জেলার বাসিন্দা। এর বাইরে চট্টগ্রামে ৩৭ জন, রাজশাহীতে ১ জন, খুলনায় ২ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে।
সব মিলিয়ে গত আটদিনে ১ হাজার ৪৮০ জন শনাক্ত হয়েছে শুধুমাত্র ঢাকা মহানগরীতে। এনিয়ে দেশে এ পর্যন্ত ১৯ লাখ ৫৫ হাজার ৪২৭ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হলো এবং তাদের মধ্যে মারা গেছেন ২৯ হাজার ১৩১ জন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের তথ্যানুযায়ী, সবশেষ ২৪ ঘণ্টায় ৬ হাজার ৯০১টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয় ৬ হাজার ৯০৫টি নমুনা। পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ৬ দশমিক ২৭ শতাংশ, যা আগের দিন ৫ দশমিক ৭৬ শতাংশ ছিল। সবশেষ ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ৯৩ জন। এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৯ লাখ ৫ হাজার ৭১১ জন।

এরআগে ২ জুন ২২ জন, ৩ জুন ২৯ জন, ৪ জুন ৩১ জন, ৫ জুন ৩৪ জন, ৬ জুন ৪৩ জন, ৭ জুন ৫৪ জন, ৮ জুন ৫৮ জন, ৯ জুন ৫৯ জন, ১০ জুন ৬৪ জন, ১১ জুন ৭১ জন, ১২ জুন ১০৯ জন, ১৩ জুন ১২৮ জন, ১৪ জুন ১৬২ জন, ১৫ জুন ২৩২ ও ১৬ জুন ৩৫৭ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়।
স্বাস্থ্য অধিদফতরের তথ্য বলছে, জানুয়ারিতে শনাক্ত ছিল ২ লাখ ১৩ হাজার ২৯৪ জন, ফেব্রুয়ারিতে ১ লাখ ৪৪ হাজার ৭৪৪ জন, মার্চে ৮ হাজার, এপ্রিলে ১ হাজার ১১৪ জন এবং মে’তে ৮১৬ জন। আর জুন মাসের ১৫ দিনেই শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ৪৮৭ জন।

হাসপাতাল পরিস্থিতি বলছে, ঢাকার সরকারি হাসপাতালগুলোতে ৩ হাজার ৯৪টি সাধারণ শয্যার মধ্যে বর্তমানে ৩ হাজার ৮২টি খালি আছে। আর ৩৫১টি আইসিউ’র মধ্যে ৩৪২টি খালি। ৪১৩টি হাই ডিপেন্ডেন্সি ইউনিটের (এইচডিইউ) মধ্যে ৪০৫টি খালি আছে। করোনা পরিস্থিতির ক্রমাগত অবনতির প্রেক্ষাপটে সবাইকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। গত গত বৃহস্পতিবার তিনি বলেন, দেশ ও দেশের বাইরে মহামারি করোনাভাইরাস সংক্রমণ আবারও বাড়ছে। তাই সবাইকে শিগগিরই টিকার বুস্টার ডোজ নিতে হবে। যারা এখনো বুস্টার ডোজ নেননি, শিগগির নিয়ে নিন। কারণ করোনা কিছুটা হলেও প্রতিদিনই বাড়ছে। আশপাশের দেশগুলোতেও সংক্রমণ বাড়ছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, স্বাস্থ্যের কোনো বিষয় চাপিয়ে দেয়ার নয়। এটা স্বাধীন দেশ, সব নাগরিকের স্বাধীন চিন্তাভাবনা রয়েছে। আমাদের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব তাদের অবহিত করা। টিকা নিলে কী সুবিধা, না নিলে কী অসুবিধা- এ বিষয়গুলো আমরা তুলে ধরছি। বাকি সিদ্ধান্ত যার যার, এখানে চাপিয়ে দেয়ার কিছু নেই। আমরা চাপিয়ে দিতেও পারব না। বুস্টার ডোজ নিলে আপনি সুরক্ষিত থাকবেন উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, যারা নিয়েছেন তাদের মৃত্যুঝুঁকি নেই বললেই চলে। তাই আমরা আহ্বান করব, যারা এখনও বুস্টার ডোজ নেননি, অতি শিগগির নিয়ে নিন।
দেশে করোনা সংক্রমণের সাম্প্রতিক ঊর্ধ্বমুখী পরিস্থিতিতে এখনই বুস্টার ডোজ নেয়ার প্রকৃত সময় বলেও উল্লেখ করেন তিনি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস

৮ আগস্ট, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ