Inqilab Logo

বৃহস্পিতবার, ১৮ আগস্ট ২০২২, ০৩ ভাদ্র ১৪২৯, ১৯ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

বন্যাকবলিত এলাকায় মোবাইল নেটওয়ার্ক পর্যবেক্ষণে বিটিআরসির মনিটরিং সেল

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৯ জুন, ২০২২, ৪:৪৬ পিএম

 দেশে বিদ্যমান বন্যা পরিস্থিতির প্রেক্ষাপটে দুর্গত এলাকাগুলোতে নিরবচ্ছিন্ন টেলিযোগাযোগ সেবা দিতে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) একটি শক্তিশালী মনিটরিং সেল গঠন করেছে। রবিবার (১৯ জুন) বিটিআরসির পক্ষ থেকে এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, কমিশনের চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদারের সরাসরি তত্ত্বাবধানে বিটিআরসির ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড অপারেশন্স বিভাগের একজন পরিচালকের নেতৃত্বে সংশ্লিষ্ট বিভাগ ও শাখাগুলোর কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে এই সেল বন্যাদুর্গত এলাকার মোবাইল নেটওয়ার্ক, অপটিক্যাল ফাইবার ট্রান্সমিশন ব্যবস্থা, ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার ও ব্যান্ডউইথ ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত বিষয়গুলো নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছে।

বন্যা দুর্গত এলাকায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর কার্যক্রমকে সহজ করার লক্ষ্যে বিটিআরসির উদ্যোগে টোল ফ্রি নম্বর চালু করা হয়েছে। এছাড়া এই কার্যক্রমকে আরও সহজ করার জন্য কমিশন থেকে ২০টি মোবাইল হ্যান্ডসেট সরবরাহ করা হয়েছে। বিটিআরসির লাইসেন্সপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর মাঠ পর্যায়ের কর্মীরা বন্যা দুর্গত এলাকার সর্বশেষ অবস্থার হালনাগাদ তথ্য কমিশনকে অবহিত করছে এবং মনিটরিং সেলের নির্দেশনায় কার্যকরী টেলিযোগাযোগ সেবা নিশ্চিত করতে কাজ করে যাচ্ছে।

তাদের মতে, বর্তমানে সুনামগঞ্জ, সিলেট ও নেত্রকোনায় টেলিযোগাযোগ অবকাঠামো প্রায় অচল হয়ে পড়েছে এবং পানির অবাধ প্রবাহের কারণে মোবাইল নেটওয়ার্ক অবকাঠামো পুনরায় সচল করার কাজটি চ্যালেঞ্জিং হয়ে পড়েছে। তা সত্ত্বেও সংশ্লিষ্ট মোবাইল অপারেটর, এনটিটিএন অপারেটর, আইএসপি সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের মাধ্যমে নেটওয়ার্ক সচল ও নিরবচ্ছিন্ন ইন্টারনেট সেবা দেওয়ার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় জেনারেটর, অপটিক্যাল ফাইবার ও পর্যাপ্ত জ্বালানি তেলের যোগান দেওয়ার ব্যবস্থা চলমান আছে।

শুক্রবার থেকে প্রবল ভারী বর্ষণ ও অতি বৃষ্টির কারণে সুনামগঞ্জ, সিলেট, নেত্রকোনা— এই তিন জেলা প্লাবিত হয় এবং জেলাগুলোর অধিবাসীরা চরম দুর্ভোগের শিকার হয়েছেন। এসব এলাকায় চারটি মোবাইল নেটওয়ার্ক অপারেটরের মোট ২,৫২৮ সাইট (বিটিএস) রয়েছে। বন্যাপ্লাবিত এলাকায় অবস্থিত ১,১৫৯ সংখ্যক সাইট বিদ্যুৎ-বিচ্ছিন্ন হয়ে বন্ধ হয়ে যাওয়ায় সাইটভুক্ত এলাকায় মোবাইল নেটওয়ার্ক পাওয়ায় প্রতিবন্ধকতা দেখা দেয়। শনিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত মোট ১৫৭টি সাইট পুনরায় সচল করা হয়েছে এবং বাকি সাইটগুলো সচল করার জন্য প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে বলে বিটিআরসি জানিয়েছে।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ