Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৬ আগস্ট ২০২২, ০১ ভাদ্র ১৪২৯, ১৭ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

সহায়তা অব্যাহত রাখতে প্রস্তুত থাকতে হবে পশ্চিমাদের : ন্যাটো

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২১ জুন, ২০২২, ১২:০৩ এএম

পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটো প্রধান সতর্ক করে বলেছেন, বছর পর বছর চলতে থাকা যুদ্ধে ইউক্রেনে সহায়তা অব্যাহত রাখতে পশ্চিমাদের অবশ্যই প্রস্তুত থাকতে হবে। জোটের মহাসচিব জেনস স্টলটেনবার্গ বলেন, যুদ্ধের খরচ অনেক বেশি, কিন্তু মস্কোকে তার সামরিক লক্ষ্য অর্জন করতে দেওয়ার মূল্য আরও বেশি। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনও দীর্ঘমেয়াদি সংঘাতের বিষয়ে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন। এছাড়াও কঠোর সতর্কবার্তায়, ব্রিটিশ সেনাবাহিনীর নতুন প্রধান বলেছেন, যুক্তরাজ্য এবং মিত্রদের রাশিয়ার সঙ্গে স্থল যুদ্ধে জয়ী হতে সক্ষম হতে হবে। গত সপ্তাহে দায়িত্ব নেওয়া ব্রিটিশ সেনাপ্রধান জেনারেল স্যার প্যাট্রিক স্যান্ডার্স বিবিসির হাতে এক অভ্যন্তরীণ নথিতে বলেন, ‘ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসন আমাদের মূল উদ্দেশ্যকে প্রকাশ্য করেছে - যুক্তরাজ্যকে রক্ষা করা এবং স্থলে যুদ্ধ ও জয়ী হওয়ার জন্য প্রস্তুত হওয়া - এবং শক্তির হুমকি দিয়ে রুশ আগ্রাসন রোধ করার প্রয়োজনীয়তাকে শক্তিশালী করেছে’। ন্যাটো মহাসচিব জেনস স্টলটেনবার্গ এবং ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ইউক্রেনে আরও অস্ত্র পাঠানো তাদের জয়ী হওয়ার সম্ভাবনা আরও বাড়াবে। জার্মান সংবাদপত্র বিল্ডকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ন্যাটো মহাসচিব বলেন, ‘আমাদের অবশ্যই প্রস্তুত থাকতে হবে যে এটির জন্য কয়েক বছর সময় লাগতে পারে। আমাদের ইউক্রেনকে সমর্থন করা বাদ দেওয়া উচিত নয়। এমনকি খরচ বেশি হলেও, শুধুমাত্র সামরিক সহায়তার জন্য নয়, শক্তি ও খাদ্যের দাম বৃদ্ধির কারণেও’। পশ্চিমা সামরিক জোট প্রধান বলেন ইউক্রেনকে আরও বেশি আধুনিক সরবরাহ করা হলে দেশটির পূর্বাঞ্চলীয় ডনবাস অঞ্চলকে স্বাধীন করার সম্ভাবনা আরও বাড়বে। ওই অঞ্চলের বেশিরভাগ এলাকা এখন রাশিয়ার নিয়ন্ত্রণে। গত কয়েক মাস ধরে ডনবাস অঞ্চলের নিয়ন্ত্রণের জন্য লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে রুশ ও ইউক্রেনীয় বাহিনী। তবে গত কয়েক সপ্তাহে মস্কোর অগ্রযাত্রার গতি ধীর হয়ে পড়েছে। এদিকে সানডে টাইমস এ লেখা এক নিবন্ধে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন রাশিয়ার ভ্লাদিমির পুতিনকে অভিযুক্ত করেছেন তিনি ‘নিছক বর্বরতার মাধ্যমে ইউক্রেনকে পিষে ফেলার চেষ্টা করছেন’। তিনি লেখেন, ‘আমি ভীত যে আমাদের একটি দীর্ঘ যুদ্ধের জন্য নিজেদের তৈরি করতে হবে। সময় গুরুত্বপূর্ণ ফ্যাক্টর। সবকিছুই নির্ভর করবে রাশিয়ার আক্রমণ করার ক্ষমতা নবায়নের আগেই ইউক্রেন তার ভূমি রক্ষা করার ক্ষমতা জোরালো করতে পারবে কিনা তার ওপর’। গত শুক্রবার ইউক্রেনের রাজধানী পরিদর্শন করা ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বলেন, কিয়েভকে অস্ত্র, সরঞ্জাম, গোলাবারুদ এবং প্রশিক্ষণের সরবরাহ মস্কোর নিজেকে পুনরায় সজ্জিত করার প্রচেষ্টাকে ছাড়িয়ে যেতে হবে। ইউক্রেনের কর্মকর্তারা সাম্প্রতিক দিনগুলোতে রাশিয়ান বাহিনীকে পরাজিত করতে হলে কিয়েভে ভারী অস্ত্রের সরবরাহ বাড়ানোর প্রয়োজনীয়তার বিষয়ে স্পষ্টভাবে কথা বলেছেন। বিবিসি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ন্যাটো


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ