Inqilab Logo

শনিবার, ২০ আগস্ট ২০২২, ০৫ ভাদ্র ১৪২৯, ২১ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

ভবিষ্যতের ভিন্নমত ঠেকাতে প্রবীণ নেতাদের সংগঠিত করছে চীন

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২১ জুন, ২০২২, ৭:০৮ পিএম | আপডেট : ৮:৩৭ পিএম, ২১ জুন, ২০২২

চীনা কমিউনিস্ট পার্টি প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং যুগে সর্বগ্রাসীতাবাদের চপেটাঘাত হিসাবে অবসরপ্রাপ্ত লাখো কমিউনিস্ট নেতাদের ব্যবহার করছে জোড়া চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায়। প্রথমত, দেশটির স্থবির জনসংখ্যা এবং দ্বিতীয়ত, প্রবীণ নাগরিকরা ভবিষ্যতে যাতে সরকারবিরোধী কোনো বিক্ষোভে অংশ না নেয় তা নিশ্চিত করতে তাদের কাজে লাগাচ্ছে।

চীনের কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ কার্যালয় সম্প্রতি ‘নতুন যুগে পার্টি গঠনে অবসরপ্রাপ্ত ক্যাডারদের মতামত’ চালু করেছে। এই দলীয় নীতি সমস্ত অঞ্চল ও বিভাগকে একযোগে এবং প্রশ্ন ছাড়াই বাস্তবায়ন করতে হবে।
এটি বিভিন্ন নিয়ম ও আদেশের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ যা গত কয়েক বছরে দেশের জনসংখ্যাকে সিসিপির সরাসরি নিয়ন্ত্রণে আনতে, পার্টি ও শি জিনপিংয়ের প্রতি জনগণের অন্ধ আনুগত্য প্রকাশে জারি করা হয়েছে।
সিসিপি কোভিড মহামারীর বছরে দেশের ভেতরের নেতিবাচক প্রভাব সম্পর্কে অত্যন্ত সতর্ক। কোভিড মহামারী অর্থনীতিতে গুরুতর আঘাত করেছে। এর ফলে লাখো মানুষ চাকরি হারিয়েছে, উত্পাদন বন্ধ হয়েছে এবং রপ্তানি হ্রাস পেয়েছে। এটি গুরুতর মুদ্রাস্ফীতি দিকে নিয়ে যায়, মূল্যবৃদ্ধি হয় এবং দারিদ্র্যের পরিসংখ্যান ফুলে ওঠে।
শি সরকার পরিস্থিতি সংশোধনের জন্য মরিয়া পদক্ষেপ নিয়েছে, কিন্তু জিরো কোভিড নীতি অর্থনৈতিক অস্থিতিশীলতার দ্বিতীয় পর্যায়ে নিয়ে যায়। কারণ লাখো মানুষকে কোয়ারেন্টাইনে বাধ্য করা হয়েছে।
উৎপাদনশীল মানবসম্পদ ও দিন বা সময় নষ্ট হয়, কলকারখানা-বন্দর বন্ধ হয়ে যায় এবং অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড প্রায় স্থবির হয়ে পড়ে। মানুষ ভয়ানক অর্থনৈতিক ক্ষতির সম্মুখীন হয়। পরিস্থিতি এতটাই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে যে সাংহাইয়ের মতো বড় শহরেও মুদিখানার অভাব হয়ে পড়ে।
জনগণের বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি ও প্রতিবাদ রাজপথে ছড়িয়ে পড়ে। সরকারবিরোধী স্লোগানে সোশ্যাল মিডিয়া উত্তাল হয়। সিসিপি বুঝতে পেরেছে, পরিস্থিতি আরও উত্তপ্ত হলে একদিন দলীয় নেতৃত্বকেই চ্যালেঞ্জ ছুড়তে পারে।
এই সমস্যা সমাধানে লাখ লাখ বয়স্ক ও অবসরপ্রাপ্ত কমিউনিস্ট ক্যাডারদের ব্যস্ত রাখাকে সমাধান মনে করছে কমিউনিস্ট পার্টি। তাদেরকে দলীয় সহজ কাজগুলো করতে এবং গ্রাম পর্যায়ে দলীয় আনুগত্যের বার্তা ছড়িয়ে দিতে ব্যবহার করা হবে।
সিসিপির বরাতে রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা সিনহুয়া জানিয়েছে, অবসরপ্রাপ্ত ক্যাডাররা দলের এবং দেশের মূল্যবান সম্পদ। নতুন বৈশিষ্ট্যের সমাজতন্ত্রকে এগিয়ে নেওয়ার একটি গুরুত্বপূর্ণ শক্তি তারা। দলের কাজে অভিজ্ঞ নেতাদের একটি বিশেষ এবং গুরুত্বপূর্ণ অবস্থানে রয়েছে।
দলের মতামতে জানানো হয়, অবসরপ্রাপ্ত নেতাদের পার্টি গঠনের কাজকে শক্তিশালী করুন এবং দলকে ব্যাপক ও কঠোরভাবে পরিচালনার কৌশলগত নীতি বাস্তবায়নের মূল হিসেবে কমরেড শি জিনপিংয়ের সঙ্গে বিপুল সংখ্যক অবসরপ্রাপ্ত নেতাদের আরও ভালভাবে যুক্ত করুন। নতুন মহান প্রকল্পকে আরও তুলে ধরুন।
অফিসিয়াল আদেশে এটা স্পষ্ট যে, সিসিপি অবসরপ্রাপ্ত ক্যাডারদের সম্পূর্ণ আনুগত্য ছাড়া আর কিছুই চায় না। “...রাজনৈতিক নেতৃত্বকে শক্তিশালী করা, নতুন যুগে পার্টির উদ্ভাবনী তত্ত্বের গভীরভাবে অধ্যয়নের জন্য অবসরপ্রাপ্ত কর্মী এবং পার্টি সদস্যদের সংগঠিত করা ও পরিচালনা করা, একটি নতুন যুগের জন্য চীনা বৈশিষ্ট্যসহ সমাজতন্ত্রের উপর শি জিনপিং চিন্তাধারা সচেতনভাবে অনুশীলন করা প্রয়োজন।”
কোনো ধরনের অস্পষ্টতা ছাড়াই সহজভাবে বলা হয়েছে, “...অবসরপ্রাপ্ত নেতারা এবং দলের সদস্যরা দলের কথা শোনে এবং নিয়মে মেনে চলে তা নিশ্চিত করুন।”
প্রবীণ নেতাদের অন্যতম প্রধান কাজ হলো, ‘দলের সামগ্রিক নেতৃত্ব মেনে চলার দিকে মনোনিবেশ করা’, ‘দল গঠনের মহান চেতনা’ এগিয়ে নেওয়া এবং ‘দলের মহান অর্জন সম্পর্কে ভালোভাবে কথা বলা’।
এগুলোর মাধ্যমে অবসরপ্রাপ্তরা চীনাদের পরবর্তী প্রজন্মকে গাইড করবে, কীভাবে দলের প্রতি প্রতি অনুগত থাকা যায় সে সম্পর্কে। চীনা সমাজকে একত্রিত করার জন্য দলের চেষ্টায় অবদান তাদের রাখতে বলা হবে, যেখানে সংখ্যালঘু জাতি-গোষ্ঠীগুলোকে কমিউনিস্ট মূলধারায় রূপান্তরিত করা হবে।



 

Show all comments
  • Shabnam Hossain Soha ৭ জুলাই, ২০২২, ১২:০০ পিএম says : 0
    কোভিড মহামারী চীনের অর্থনীতির ওপর এক নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। এই অর্থনৈতিক সংকটের মুখে দেশে যাতে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির সৃষ্টি না হয় এবং তাঁর প্রতিবাদে রাজপথে নেমে নাগরিকরা চীনা কমিউনিস্ট নেতৃত্বকে চ্যালেঞ্জ না করতে পারে, সেই কারণে লাখ লাখ কমিউনিস্ট ক্যাডারদের দলীয় কাজে ব্যবহার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে চীনা কমিউনিস্ট সরকার। নবীন চীনের ক্ষোভ প্রশমনে প্রবীণ কমিউনিস্টরা কতটা সফল হবে এখন সেটাই প্রশ্ন!
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: চীন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ