Inqilab Logo

রোববার, ১৪ আগস্ট ২০২২, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৫ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

রাশিয়ার গ্যাসের অভাবে ধুঁকছে ইউরোপ

প্রতিশ্রুতি ভেঙে কয়লা ব্যবহারের সিদ্ধান্ত

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২২ জুন, ২০২২, ১২:০০ এএম

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ইউরোপীয় ইউনিয়নকে শাস্তি দেয়ার জন্য গ্যাসকে অস্ত্র হিসাবে ব্যবহার করছেন। ইউক্রেন আক্রমণ করার পর আরোপিত নিষেধাজ্ঞার কারণে রাশিয়া তার সেরা গ্রাহকদের মধ্যে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করে দিচ্ছে। ইউরোপ জুড়ে দেশগুলো সোমবার রাশিয়ার পুনর্নবীকরণ সতর্কতার পরে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে। আসন্ন শীতে তাদের ঘর গরম রাখা ও কারখানাগুলো চালানোর মতো যথেষ্ট পরিমাণ জ্বালানি তাদের হাতে নেই। ফলে অনেক দেশই প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করে ফের কয়লা জ্বালিয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদনের পরিকল্পনায় ফিরে যাচ্ছে।

পুতিনের এ সিদ্ধান্ত ইউরোপের সরকারগুলোর উপর প্রচণ্ড রাজনৈতিক চাপ সৃষ্টি করছে, এটি এই শীতকালে ইউরোপীয়দের হিমায়িত করার হুমকি দিচ্ছে এবং দেশগুলো কয়লা দিয়ে গ্যাস-চালিত শক্তি প্রতিস্থাপন করায় ব্লকের আবহাওয়া লক্ষ্যমাত্রা বিপরীতে চলে যাচ্ছে। এমনকি এটি মহাদেশকে মন্দার দিকে ঠেলে দিতে পারে। ব্রুগেল থিঙ্ক ট্যাঙ্কের বিশ্লেষক সিমোন ট্যাগলিয়াপিত্রা রাশিয়ার নীতিকে ‘জ্বালানি ব্ল্যাকমেইল’ বলে অভিহিত করেছেন।

গ্যাসের স্বাভাবিক পরিমাণের মাত্র ৪০ শতাংশ সমুদ্রের তলদেশে রাশিয়া-থেকে-জার্মানি নর্ড স্ট্রীম পাইপলাইন বরাবর প্রবাহিত হচ্ছে, যা ফ্রান্স, ইতালি এবং অস্ট্রিয়ার পাশাপাশি জার্মানিতে সরবরাহকে প্রভাবিত করছে। রাশিয়ার গ্যাস রপ্তানি একচেটিয়া গ্যাজপ্রম ইতিমধ্যেই পোল্যান্ড, বুলগেরিয়া, নেদারল্যান্ডস, ফিনল্যান্ড এবং ডেনমার্কে সমস্ত ডেলিভারি বন্ধ করে দিয়েছে কারণ সেসব দেশের জ্বালানি সংস্থাগুলো ক্রেমলিনের কাছে রুবেল সরবরাহের জন্য অর্থ প্রদানের দাবিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে।

এর প্রতিক্রিয়ায় কিছু দেশ কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র চালু করার পরিকল্পনা করছে। জার্মান অর্থনীতি ও জলবায়ু মন্ত্রী রবার্ট হ্যাবেক রোববার দেরীতে এক টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ‘এটা অবশ্যই স্বীকার করতে হবে যে পুতিন ইউরোপে গ্যাস সরবরাহ কিছুটা কমিয়ে দিচ্ছে, দাম বাড়াতে এবং আমাদের অবশ্যই আমাদের পদক্ষেপের সাথে প্রতিক্রিয়া জানাতে হবে,’ যোগ করেছেন যে, ‘এটি একটি উত্তেজনাপূর্ণ, গুরুতর পরিস্থিতি।’ অস্ট্রিয়া আবার কয়লা পোড়ানোর জন্য একটি বন্ধ পাওয়ার প্ল্যান্ট গোপনে খোলার পরিকল্পনা করেছে। পোল্যান্ড ঘর গরম করার জন্য ব্যবহৃত কয়লা ভর্তুকি দেয়ার লক্ষ্য রাখে। সোমবার নেদারল্যান্ডস তার চারটি কয়লা চালিত বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে উৎপাদন সীমিত করার আগের পরিকল্পনা বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। জলবায়ু মন্ত্রী রব জেটেন বলেন, ‘যদি এই বিশেষ সময় না হতো, তাহলে আমরা কখনোই এটা করতাম না।’

ইতালির সরকার মঙ্গলবার একটি সঙ্কট বৈঠকের পরিকল্পনা করছে এবং প্রধানমন্ত্রী মারিও ড্রাঘি তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাসের জন্য দুটি পুনর্গঠন ইউনিটের নির্দেশ দিয়েছেন এবং কাতার, অ্যাঙ্গোলা এবং আলজেরিয়া সহ দেশগুলির সাথে গ্যাস সরবরাহের চুক্তিতে স্বাক্ষর করার জন্য কথা বলছেন। ব্রাসেলস আত্মবিশ্বাস দেখাতে করতে আগ্রহী কিন্তু উদ্বেগ স্পষ্ট। ‘আমরা যে পরিস্থিতিকে খুব গুরুতর অবস্থায় নিয়েছি তা নিয়েছি। তবে আমরা প্রস্তুত আছি,’ সোমবার সাংবাদিকদের সাথে এক বৈঠকে ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভন ডার লেইন বলেছেন, ‘আমরা কঠিন সময়ে আছি। সময় সহজ হচ্ছে না।’

সঙ্কট এবং আকাশচুম্বী গ্যাসের দাম নীতিনির্ধারকদের জন্য মাথাব্যথা বাড়িয়েছে যা ইতিমধ্যেই ক্রমবর্ধমান মুদ্রাস্ফীতি এবং একটি ম্লান অর্থনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে উদ্বিগ্ন। ইতালির এনি বলেছে যে, তাদেরকে তাদের চাহিদার থেকে অনেক কম গ্যাস দিতে পারবে বলে জানিয়েছে রাশিয়ার গ্যাজপ্রম। এটি দেশটিকে একটি সতর্কতা ঘোষণার কাছাকাছি ঠেলে দেবে যা গ্যাস-সংরক্ষণের পদক্ষেপগুলোকে স্ফুলিঙ্গ করবে। রাশিয়ান এনার্জি জায়ান্ট পোল্যান্ড, বুলগেরিয়া, ফিনল্যান্ড এবং নেদারল্যান্ড সহ বেশ কয়েকটি ইউরোপীয় দেশে সরবরাহ বন্ধ করেছে। জার্মানি, যা নিম্ন রুশ প্রবাহের মুখোমুখি হয়েছে, রোববার গ্যাস সঞ্চয়ের মাত্রা বাড়ানোর জন্য তার সর্বশেষ পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে এবং বলেছে যে, তারা কয়লা-চালিত বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলো পুনরায় চালু করতে পারে যা যা পর্যায়ক্রমে বন্ধ করার লক্ষ্য ছিল। সূত্র : ডেইলি সাবাহ, পলিটিকো।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রাশিয়া-ইউক্রেন


আরও
আরও পড়ুন