Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৬ আগস্ট ২০২২, ০১ ভাদ্র ১৪২৯, ১৭ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

দেশে শেখ মুজিব, আর শেখ হাসিনা ছাড়া আর কেউ নেই- সিলেটে মির্জা ফখরুল

সিলেট ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২৩ জুন, ২০২২, ৭:৪২ পিএম

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ক্ষমতাশীন দল সিলেটবাসীর এই দুঃসময়ে বন্যা দুর্গতদের পাশে নেই। গত দুদিন আগে প্রধানমন্ত্রী সিলেটে এসে হেলিকাপ্টারে ঘুরে গেছেন। তিনি সার্কিট হাউজে এসে মন্ত্রী এমপি সহ বড় বড় কর্মকর্তাদের সাথে মিটিং করেছেন। আর ৭ জন মানুষকে নিয়ে গিয়ে লোক দেখানো ৭টা প্যাকেট তুলে দিয়ে গেছেন। যেখানে বন্যার পানিতে লাখ লাখ মানুষ পানিবন্দি হয়ে গেছে। তাদের ঘরবাড়ি, ব্যবসা, কৃষি ফসল, গবাদী পশু ভেসে গেছে। তাদের জন্য তিনি কোন কিছু দেন নাই। তিনি ৩০ লক্ষ বন্যার্থদের জন্য ৬০ লক্ষ টাকা দিয়েছেন। এই টাকার বিপদগ্রস্থ লক্ষ লক্ষ মানুষের কি হবে। সরকারের এত বড় বিশাল বিশাল বাহিনী না কি কাজ করছে ? তাদের এমপিরা তো জনগনের কাছে নাই। এর মুল কারন হচ্ছে তারা বিনা ভোটে জোর করে ক্ষমতা দখল করে আছে। জনগনের সাথে আওয়ামী লীগের সম্পর্ক নাই।

আজ বৃহষ্পতিবার দুপুরে বন্যা দুর্গত সিলেটে বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন শেষে জৈন্তাপুর উপজেলার দরবস্ত ইউনিয়নের গর্দনা এলাকার খাজার মোকাম উচ্চবিদ্যালয় আশ্রয় কেন্দ্রে সিলেট জেলা বিএনপি কর্তৃক আয়োজিত বন্যার্থদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। তিনি আরো বলেন, তারা উন্নয়নের শ্লোগান দিচ্ছে। তারা দুর্ণীতি করার জন্য শুধু বড় বড় প্রজেক্ট করছে, যেখান থেকে তারা লুটপাট করতে পারবে। তারা সাধারণ জনগনের জন্য কিছু করছে না। তারা এখন পদ্মা সেতু নিয়ে ব্যস্থ আছে। বন্যায় মানুষ ভেসে যাচ্ছে, খাবার পাচ্ছেনা, চিকিৎসা পাচ্ছেনা। সেদিকে সরকারের কোন নজর নেই। তাকে ভাবে মনে হয় দেশে শেখ মুজিব আর শেখ হাসিনা ছাড়া আর কেউ নেই।
বিএনপি মহাসচিব বলেন, মাওয়ায় ৯০টি পশ্রাব খানা ৯ কোটি টাকা দিয়ে তৈরি করেছে। এই টাকা যদি সিলেটের বন্যার্থদের দেয়া হত তাহলে মানুষকে এত দুর্ভোগ পোহাতে হত না। আওয়ামী লীগ যত দিন ক্ষমতায় থাকবে তত দিন তারা মানুষের জন্য কোন কাজ করবেনা। মির্জা ফখরুল বলেন, ২০০৪ সালে যখন বন্যা হয়ে ছিল তৎক্ষালিন প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালদা জিয়া নিজে এসে, নিজ হাতে আপনাদেরকে খাদ্য সহায়তা দিয়ে গিয়েছিলেন। আওয়ামী লীগ সরকার খালেদা জিয়া মিথ্যা মামলা দিয়ে গৃহবন্দি করে রেখেছে। আমাদের নেতা তারেক রহমানকে মিথ্যা মামলা দিয়ে নির্বাসনে রেখেছে। এই সরকার ক্ষমতা থেকে বিতাড়িত করে জনগনের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট এমরান আহমদ চৌধুরীর সঞ্চলনায় খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু। সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, আমরা দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে আপনাদের কাছে এসেছি। আমরা জানি আপনাদের চাহিদা অনুযায়ী কিছু দিতে পারনা। তার পরও আমরা সাধ্যমত নিয়ে এসেছি। এই সরকার জনগনের পাশে নেই, কারন তারা বিনা ভোটে ক্ষমতা দখল করে আছে। বিএনপি অতিতেও আপনাদের পাশে ছিল, এখনো আছে, ভবিষ্যতেও থাকবে ইনশাআল্লাহ। এসময় উপস্থিত ছিলেন- বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ড. এনামুল হক চৌধুরী, বিএনপির কেন্দ্রীয় ত্রাণ ও পুণর্বাসন বিষয়ক সম্পাদক হাজী ইয়াসিন, জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ডা. শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী, জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শামীম আহমদ, জৈন্তাপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুর রশিদ চেয়ারম্যান, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হাফিজ, উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি আব্দুল মতিন, সারেক সাধারণ সম্পাদক মুহিবুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক ইন্তাজ আলী চেয়ারম্যান, দরবস্ত ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বাহারুল ইসলাম বাহার প্রমূখ। এর আগে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সকালে সিলেটে পৌঁছে হযরত শাহ জালাল (র.) ও হযরত শাহ পরান (র.) এর মাজার জিয়ারত করেন। পরে সিলেট জেলার বিভিন্ন বন্যা কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেন তিনি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মির্জা ফখরুল


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ