Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ০৯ আগস্ট ২০২২, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯, ১০ মুহাররম ১৪৪৪ হিজরী

পদ্মাসেতুর অনুষ্ঠানে বৃষ্টিতে ভিজলো লাখো মানুষ

কাঁঠালবাড়িয়ার ঘাট থেকে আবুল হাসান সোহেল | প্রকাশের সময় : ২৫ জুন, ২০২২, ৪:১৯ পিএম

স্বপ্নের পদ্মাসেতুর শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে আগত লাখো নেতা কর্মী ও জনতা বৃষ্টিতে ভিজেই উপভোগ করলেন পদ্মাসেতুর শুভ উদ্বোধনী অনুষ্ঠান।

শনিবার ( ২৫ জুন) সকাল ৯ টা থেকো বেলা ১১ টার মধ্যে শরীয়তপুর জাজিরা পয়েন্ট এবং মাদারিপুরের শিবচর পয়েন্টের শিবচরের কুতুবপুর ইউনিয়নের কাঁঠালবাড়িয়ার ঘাট এলাকার প্রায় ৪ কিলোমিটার ব্যাসার্ধের অংশে লাখ লাখ নেতা/ কর্মী সহ বৃহওর ফরিদপুর সহ ২১ জেলার
সর্বস্তরের মানুষ আসলে ঘাট এলাকাটি কানায় কানায় পরিপূর্ণ হয়ে যায়।

কাঁঠালবাড়িয়ার নৌবন্ধর ঘাটটি বেলা সারে এগারোটার মধ্যে জনস্রোতে পরিনত হলে নেমে আসে বৃষ্টি। থেমে থেমে দুই তিন দফা বৃষ্টিতে আগন্তুকরা কাক ভেজা ভিজে যায় বৃষ্টিতে।

এ সময় পিঁপড়ে সারির মত মানুষ এদিক- ওদিকে ছুটতে থাকে। শেষ পর্যন্ত ঘাটে দাড়িয়ে থাকা শত শত লঞ্চ ষ্টীমার ও সার্ভিস ট্রলারে আশ্রয় নেন তারা।

আবার যাদের নৌকায় বা ট্রলারে পলিথিন ব্যবস্হা ছিল তা মাথার উপরে পলিথিন ধরে বৃষ্টির হাত থেকে নিজেদের রক্ষার চেষ্টা করেন। তারপরও কারোর মনে কোন কস্ট নাই।

পাশা-পাশি, মাদারীপুর, শিবচর, শরীয়তপুর, ভাঙ্গা,নগরকান্দা,টেকেরহাট,ফরিদপুরের অর্ধশত স্কুল কলেজের ছাত্ররা মিছিল সহকারে বৃষ্টিতে ভিজে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পদ্মাসেতু উদ্বোধনী সভা স্হলে এসে জড়ো হয়।

এ সময় শিবচর কলেজের এইচ এসসি পরীক্ষার্থী মিনাল কান্তি ইনকিলাবে বললেন, বৃষ্টিতে ভিজে পদ্মাসেতুর সভায় মিছিল নিয়ে আসছি মনে কোন কস্ট নাই। এই সেতু আমাদের ঘরের সেতু তাই। দীর্ঘ দিনের ঘাটের নির্যাতন থেকে আল্লাহতায়ালা বাঁচালেন।

মাদারীপুর, শরীয়তপুর থেকে মিছিল যোগদেন কলেজ রবিন প্রমানিক,কায়কোবাদ তারা ইনকিলাবকে জানান, প্রায় ৫০ মিনিট বৃষ্টিতে ভিজেছি মনে একটুও কস্ট নাই, টাকা মোবাইল সব ভিজেছে তাতেও মনে কোন কস্ট নাই। স্বপ্নের পদ্মাসেতু উদ্বোধন হলো, আমাদের আনন্দের কোন শেষ নাই।



 

Show all comments
  • jack ali ২৫ জুন, ২০২২, ৫:২২ পিএম says : 0
    তারা কি জনগণের রক্ত পানি করে ট্যাক্সের টাকা খরচ করে লক্ষ লক্ষ লোক জড়ো করে উদ্বোধন করে আমাদের দেশের সরকার তারা জানে না কিভাবে দেশের উন্নতি করতে হয় আমাদের দেশের শিক্ষা ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে দিয়েছে যারা শিক্ষিত হয়ে বের হয় তারা কিছুই করতে পারো না তারা সমাজ এবং পরিবারের বোঝা বিদেশের পরে নির্ভরশীল করে রেখেছে আমাদের দেশের সরকার কারণ তাদের কাছ থেকে কাজ করালে যদি এক লক্ষ টাকা দিয়ে কোন কাজ করতে হয় তখন তারা নেবে 10 লক্ষ টাকা এর মধ্যে 9 লক্ষ টাকা তারা মেরে দিবে সরকার এবং পদ্মা সেতুর ক্ষেত্রেও তাই হয়েছে 11 হাজার কোটি টাকার পদ্মা সেতু 30 হাজার কোটি টাকারও বেশি খরচ হয়েছে আবার উদ্বোধন করতে কত হাজার কোটি টাকা খরচ হয়েছে সেটা তারাই জানে এবং কেয়ামতের দিন আল্লাহ বলে দিবে আল্লাহর গজব পড়বে তোমাদের পরে মানুষ বন্যায় ধ্বংস হয়ে গেছে সেদিকে তাদের কোন দায়িত্ব জ্ঞান নাই তারা আনন্দ ফুর্তি করছে
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বৃষ্টিতে ভিজলো
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ