Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ০৯ আগস্ট ২০২২, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯, ১০ মুহাররম ১৪৪৪ হিজরী

মোদিকে চ্যালেঞ্জ করা অ্যাক্টিভিস্টকে যেভাবে গ্রেফতার করল গুজরাট পুলিশ

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ জুন, ২০২২, ১০:৩৩ এএম

ভারতের সুপরিচিত অ্যাক্টিভিস্ট ও সমাজকর্মী তিস্তা সেতালভাদকে গুজরাট পুলিশ যেভাবে তার বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে গ্রেফতার করেছে, তার নিন্দায় সরব হয়েছে বহু মানবাধিকার সংগঠন, প্রতিবাদ জানাচ্ছেন বিশিষ্ট আইনজীবীও।

শুক্রবার সুপ্রিম কোর্ট গুজরাটের দাঙ্গায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দায়মুক্তি বিষয়ক একটি মামলার সূত্র ধরে মিস সেতালভাদের ভূমিকার কড়া সমালোচনা করেন।

র প্রায় সাথে সাথেই ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ও শাসক দল বিজেপি নেতারা প্রকাশ্যেই তাকে আক্রমণ করে বিবৃতি দেন। এর পরই তিস্তা সেতালভাদের মুম্বাইয়ের বাড়িতে গিয়ে তাকে আটক করে গুজরাট পুলিশের অ্যান্টি-টেররিজম স্কোয়াড।

রোববার বিকেলে আহমেদাবাদের একটি আদালতে তাকে পেশ করে ১৪ দিনের রিমান্ড চেয়েছে পুলিশ।

ম্যাজিস্ট্রেট অবশ্য পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।

কে এই তিস্তা সেতালভাদ?
নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেলে তিস্তা নিজেকে শিক্ষাবিদ, সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মী হিসেবে পরিচয় দিয়েছেন।

২০০২ সালের গুজরাট দাঙ্গায় স্বজনহারানো ভিক্টিমরা যাতে ন্যায়বিচার পান, তার জন্য গত দুদশক ধরে একটানা লড়াই চালিয়ে আসছেন তিস্তা জাভেদ শেতালভাদ ও তার এনজিও সিটিজেনস ফর জাস্টিস অ্যান্ড পিস (সিজেপি)।

দাঙ্গাপীড়িতরা যাতে যথাযথ আইনি সহায়তা পান ও তাদের আর্থিকভাবে সাহায্য করা যায়, সে উদ্দেশ্য নিয়েই গুজরাট দাঙ্গার ঠিক পর পরই ওই এনজিও-টি গড়ে তোলা হয়েছিল।

কিন্তু সিজেপি কোথা থেকে অর্থ পাচ্ছে, বিদেশী সংস্থাগুলোর কাছ থেকে এনজিও-টি অবৈধভাবে তহবিল সংগ্রহ করছে কি না- তা নিয়ে বিজেপি আমলে সেতালভাদকে বারে বারেই প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়েছে।
এর আগে ২০০৭ সালে কংগ্রেস আমলে তিনি ভারতের অন্যতম শীর্ষ বেসামরিক খেতাব 'পদ্মশ্রী'তে ভূষিত হয়েছিলেন।

সুপ্রিম কোর্টের ভর্ৎসনা
গুজরাট দাঙ্গায় রাজ্যের তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির অব্যাহতিকে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে গিয়েছিলেন সেতালভাদ ও জাকিয়া জাফরি- যার স্বামী ও কংগ্রেস নেতা এহসান জাফরিকে দাঙ্গাকারীরা জীবন্ত জ্বালিয়ে হত্যা করেছিল।

জাকিয়া জাফরি মূল আবেদনকারী হলেও তিস্তা সেতালভাদ ছিলেন সেই মামলার কো-পিটিশনার।

গত শুক্রবার (২৪ জুন) সুপ্রিম কোর্টের তিন সদস্যের বেঞ্চ সেই মামলা খারিজ করে দিয়ে মন্তব্য করে, তিস্তা সেতালভাদ মিস জাফরির আবেগকে অন্যায়ভাবে কাজে লাগিয়েছেন।

বিচারপতি এ এম খানউইলকরের নেতৃত্বে তিন সদস্যের বেঞ্চ আরও বলে, 'মিস সেতালভাদ চাইছেন দাঙ্গা নিয়ে বিতর্কের আগুন যেন জিইয়ে রাখা যায়, বা অন্যভাবে বললে তাওয়া গরম রাখা যায়।' বিবিসি বাংলা



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ