Inqilab Logo

বুধবার, ১৭ আগস্ট ২০২২, ০২ ভাদ্র ১৪২৯, ১৮ মুহাররম ১৪৪৪

প্রশ্ন : মরহুম পিতার বদলী হজ্জ করানো প্রসঙ্গে।

রাসেল
ইমেইল থেকে

প্রকাশের সময় : ২৭ জুন, ২০২২, ৮:৫৮ পিএম

প্রশ্নের বিবরণ : গত বছর আমার বাবার হজ্জ ফরজ ছিল। এবছর হজ্জ করার নিয়ত ছিল। কিন্তু আল্লাহর ইচ্ছায় তিনি কিছুদিন আগে ইন্তেকাল করেন। এখন আমি আমার মরহুম পিতার বদলী হজ্জ করাতে চাই। তার বিধান কি এবং কাদেরকে দিয়ে তা করানো যাবে?

উত্তর : বদলী হজ্জ আপনি নিজে করতে পারেন। অন্য কাউকে দিয়ে করাতেও পারেন। একজন পরহেজগার এবং হজ্জ সম্পর্কে বিজ্ঞ ও অভিজ্ঞ ব্যক্তিকে দিয়ে বদলী হজ্জ করানো যেতে পারে।
উত্তর দিয়েছেন : আল্লামা মুফতি উবায়দুর রহমান খান নদভী
সূত্র : জামেউল ফাতাওয়া, ইসলামী ফিক্হ ও ফাতওয়া বিশ্বকোষ।
প্রশ্ন পাঠাতে নিচের ইমেইল ব্যবহার করুন।
[email protected]

 

ইসলামিক প্রশ্নোত্তর বিভাগে প্রশ্ন পাঠানোর ঠিকানা
[email protected]



 

Show all comments
  • Harunur Rashid ২৮ জুন, ২০২২, ৯:০৬ এএম says : 0
    Assalamualikum everyone. just for learning reason, Hajj is fraj on each person with some condition met. Why is necessary someone eles should perform Hajj on that person behalf? Thanks.
    Total Reply(0) Reply
  • নিক্সন সরকার ২৮ জুন, ২০২২, ৪:৪০ পিএম says : 0
    আমি বদলি হজ্ব করে দিতে ইচ্ছুক। এখানে উল্লেখ আমার ফরজ হজ্জ করা আছে। ০১৭১২৬০২২০৭
    Total Reply(0) Reply
  • XT PLANTER ২৮ জুন, ২০২২, ৭:৪৫ পিএম says : 0
    Question says last year my father's hajj became farz. Is that right? On Bodli hajj where did you find that command. Do we believe any body else than Allah?
    Total Reply(0) Reply
  • মোহাম্মদ জসীম উদ্দিন ২৯ জুন, ২০২২, ৬:৫০ পিএম says : 0
    আসসালামু আলাইকুম। কেমন আছেন? আমার প্রশ্ন হচ্ছে আমার বড় বাবুর নাম আব্দুল্লাহ আল ফাইহান। ইসলামের দৃষ্টিতে এই নাম ঠিক আছে কিনা? ফাইহান অর্থ সুগন্ধি।।
    Total Reply(0) Reply
  • মাওলানা মোঃ আবু ছালেহ ১০ জুলাই, ২০২২, ৫:১৩ পিএম says : 0
    আলহামদুলিল্লাহ। ছুম্মা আলহামদুলিল্লাহ। আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তাআলার অপরিসীম দয়া এবং মেহেরবানিতে ২০১৭ সালে পবিত্র হজব্রত পালনের তাওফিকপ্রাপ্ত হয়েছি। কিন্তু প্রিয়তম রবের ঘরের চৌকাঠ ছোঁয়ার ইচ্ছেগুলো আজও প্রতিনিয়ত নিজেকে টেনে নিয়ে যায় প্রিয় বাইতুল্লাহর শহর মক্কাতুল মোকাররমায়, প্রিয়তম রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর স্মৃতিঘেরা মসজিদে নববীর আলো ঝলমলে প্রাঙ্গণে, মদিনাতুল মোনাওওয়ারায়। হজের সফর শেষে ফিরে এসেছি সেই কবে, কিন্তু মন পড়ে আছে আজও সোনালি সেই সফরের স্মৃতিময় বিমুগ্ধতায়! আবার যদি যেতে পারতাম একবার! আরও কিছুটা সময় যদি হেটে আসতে পারতাম মক্কার অলিতে গলিতে! আরও ক'টা দিন কাটাতে পারতাম রওজা মোবারকের নিবিড় সান্নিধ্যে! মিনা, মুযদালিফা, আরাফাতের প্রান্তরে আরও কিছুটা সময় যদি থাকার সুযোগ পেতাম! আবারও যদি ঘুরে আসতে পারতাম জান্নাতুন মা'লা, জান্নাতুল বাকির আলোকিত কবরগাহে! উহুদ! প্রিয় জাবালে উহুদ! এই উহুদের এক পাশেই তো শুয়ে আছেন বীরকেশরী সাইয়িদুশ শুহাদা আমির হামযা রাদিআল্লাহু তাআলা আনহু! যদি সৌভাগ্য হতো তাঁর শাহাদাতগাহের পাশে আরও কিছুটা সময় কাটানোর! জানি না, কবে আবার যেতে পারবো প্রিয় নবিজীর দেশে, কবে পূরণ হবে হৃদয়ের সরোবরে কুলুকুলু রবে বয়ে যাওয়া অবিরাম স্বপ্নের এ ঝর্ণাধারা। অন্তরের গহীনে লুকিয়ে থাকা ছোট্ট প্রত্যাশারা কবে ডানা ঝাপটে উঠবে, কিছুই জানা নেই। প্রিয়তম রব মহান মালিকের একান্ত করুণাই শুধু ভরসা।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ